লজেন্সের প্রলোভনে যৌন নির্যাতন, আলিপুর স্কুলের চৌকিদারের কুকীর্তি ফাঁস

 জিডি বিড়লা, এমপি বিড়লা, কারমেলের পর এবার আলিপুর মাল্টি পারপাস গার্লস। সরকারি স্কুলে এবার শিশুদের যৌন নির্যাতনের অভিযোগ। কাঠগড়ায় আলিপুর মাল্টিপারপাসের চৌকিদার রামেশ্বর সিং।

Updated: Mar 8, 2018, 01:34 PM IST
লজেন্সের প্রলোভনে যৌন নির্যাতন, আলিপুর স্কুলের চৌকিদারের কুকীর্তি ফাঁস

নিজস্ব প্রতিবেদন:  জিডি বিড়লা, এমপি বিড়লা, কারমেলের পর এবার আলিপুর মাল্টি পারপাস গার্লস। সরকারি স্কুলে এবার শিশুদের যৌন নির্যাতনের অভিযোগ। কাঠগড়ায় আলিপুর মাল্টিপারপাসের চৌকিদার রামেশ্বর সিং। 

আরও পড়ুন: ঘরে ঢুকতেই স্ত্রীকে অন্য পুরুষের সঙ্গে বিছানায় দেখলেন স্বামী! গাইঘাটায় মনুয়াকাণ্ডের ছায়া

দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে চৌকিদারের কাজ করে রামেশ্বর। অভিযোগ, বিভিন্ন সময়ে ছাত্রীদের লজেন্স খাওয়ানোর নামে নিজের কোর্য়াটারে ডাকে। তারপর শুরু হয় কুইঙ্গিত। গায়ে হাত দেওয়ার মতো ন্যক্কারজনক ঘটনা। ২০১৫ সালে রামেশ্বরের বিরুদ্ধে স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগও দায়ের করেন অবিভাবকরা। কিন্তু, তারপরও কোনও ফল হয়নি। রামেশ্বর বহাল তবিয়তেই রয়ে গেছে স্কুলে।

আরও পড়ুন: বাসে পাশে বসেই এক মহিলা এই ব্যক্তির সঙ্গে যা করলেন...

মাঝে কিছুদিন পরিস্থিতি ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে ফের শুরু হয়েছে রামেশ্বরের কেচ্ছা। সেই একই কায়দায়, অর্থাত্ লজেন্স দেওয়ার নাম করে স্কুলে খুদে পড়ুয়াদের নিজের কোয়ার্টারে ডেকে নিয়ে যায় সে। এরপর তার সঙ্গে অশ্লীল কাজ করে। এভাবে গত কয়েকদিনে বেশ কয়েকজন ছাত্রীর সঙ্গে সে একাজ করেছে বলে অভিযোগ। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে, যখন বুধবার এক ছাত্রী বাড়ি গিয়ে অভিভাবকদের সেকথা জানায়।

আরও পড়ুন: ঘরে ঢুকে মায়ের সামনেই মেয়েকে ধর্ষণ পুলিসকর্মীর

বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলে হাজির হন ওই ছাত্রীর অভিভাবক। স্কুল কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানান তাঁরা। অভিভাবকদের দাবি, স্কুল কর্তৃপক্ষ নাকি তাঁদের জানান, রামেশ্বরের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ মেলেনি। তাই তার বিরুদ্ধে কোনও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। এরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাকি অভিভাবকরা। স্কুলের পিছনের কোয়ার্টারেই থাকে রামেশ্বর। অভিভাবকরা সেখান থেকেই তাকে বার করে আনেন। চলে কিল, চড়, ঘুষি। গণধোলাইয়ের পর রামেশ্বরকে পুলিসের হাতে তুলে দেওয়া হয়। রামেশ্বরকে আপাতত ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। 

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close