জেলাশাসক অপহরণ, সুর নরম মাওবাদীদের

জেলাশাসক অপহরণ কাণ্ডে মাওবাদীদের কোর্টেই বল ঠেললেন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং। আর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জেলাশাসককে মুক্তি দিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর আশ্বাস জেলাশাসক ফেরার এক ঘণ্টার মধ্যে মাওবাদীদের দাবিগুলি খতিয়ে দেখতে গঠিত কমিটি তার কাজ শুরু করবে। জেলাশাসকের মুক্তি নিয়ে সরকার ও মধ্যস্থতাকারীদের মধ্যে আজ এক সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন তিনি সমঝোতা রক্ষা করবেন।

Updated: Apr 30, 2012, 05:50 PM IST

জেলাশাসক অপহরণ কাণ্ডে মাওবাদীদের কোর্টেই বল ঠেললেন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং। আর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জেলাশাসককে মুক্তি দিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর আশ্বাস জেলাশাসক ফেরার এক ঘণ্টার মধ্যে মাওবাদীদের দাবিগুলি খতিয়ে দেখতে গঠিত কমিটি তার কাজ শুরু করবে। জেলাশাসকের মুক্তি নিয়ে সরকার ও মধ্যস্থতাকারীদের মধ্যে আজ এক সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন তিনি সমঝোতা রক্ষা করবেন।
অন্য দিকে, পূর্বঘোষিত অবস্থান থেকে কিছুটা নরম হয়ে এদিন অ্যালেক্স পল মেননের মুক্তির বিনিময়ে ৮ জন জেলবন্দি কমরেডের মুক্তির দাবি জানিয়েছে মাওবাদীরা। পাশাপাশি রমন সিং সরকারকে দেওয়া চরমসীমা ২ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে মাওবাদীরা।
প্রাথমিকভাবে সুখমার জেলাশাসকের মুক্তির বিনিময়ে ১৭ জন মাওবাদীর মুক্তির দাবি জানানো হয়েছিল। কিন্তু শনিবার তারমেটলার জঙ্গলে আলোচনা করতে যাওয়া মাওবাদীদের নিযুক্ত দুই মধ্যস্থতাকারী, বিডি শর্মা ও হরগোপালের কাছে সিপিআই(মাওবাদী)-র তরফে আরও কয়েকজন বন্দির মুক্তির দাবি জানানোর পর পরিস্থিতি জটিল হয়ে যায়। রবিবার সকালে দুই মধ্যস্ততাকারী জঙ্গলের বাইরে আসার পর খবর মেলে, বিডি শর্মাকে একটি পেন-ড্রাইভ দিয়েছে মাওবাদীরা। ওই পেন ড্রাইভে আরও ৭০ থেকে ৭৫ জন মাওবাদী বন্দির নাম দেওয়া হয়েছে।
হেলিকপ্টারে রায়পুর ফিরে গিয়ে রবিবার সকালেই সরকার নিযুক্ত দুই মধ্যস্থতাকারী নির্মলা বুচ ও এসকে মিশ্রের সঙ্গে আলোচনা করেন বিডি শর্মা ও হরগোপাল। সরকার নিযুক্ত মধ্যস্থতাকারী নির্মলা বুচ জানান, দুই মধ্যস্থতাকারী বি ডি শর্মা ও হরগোপাল মাওবাদীদের কাছ থেকে যে বার্তা এনেছেন তা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পোঁছে দেওয়া হবে। এরপর সোমবার সকালে ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের মন্ত্রিগোষ্ঠী বৈঠক করেন। সরকার এবং মাওবাদী প্রস্তাবিত মধ্যস্থতাকারীরাও দফায় দফায় আলোচনা করেন। শেষ পর্যন্ত বিকেলে মাওবাদীদের তরফে সুর নরমের বার্তা পৌঁছয় সরকারের কাছে।