সুদ মকুব অধরাই, ভবিষ্যতে 'রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত' নেওয়ার ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যের জন্য আর্থিক প্যাকেজ এবং সুদ মকুবের `দাবি` আদায়ের লক্ষ্যে শুক্রবার ৭ রেসকোর্স রোডে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে সমাধানসূত্র না মেলায় স্বভাবতই `রুষ্ঠ` মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান `আরও কিছুদিন অপেক্ষা করে তারপর রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত` নেবেন তিনি।

Updated: May 4, 2012, 07:24 PM IST

রাজ্যের জন্য আর্থিক প্যাকেজ এবং সুদ মকুবের `দাবি` আদায়ের লক্ষ্যে শুক্রবার ৭ রেসকোর্স রোডে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে সমাধানসূত্র না মেলায় স্বভাবতই `রুষ্ঠ` মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান `আরও কিছুদিন অপেক্ষা করে তারপর রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত` নেবেন তিনি। তিনি আরও বলেন রাজ্যের আর্থিক অবস্থা বেহাল। বিগত ৩৪ বছরের সরকারের করা ঋণের দায় বহন করছে বর্তমান সরকার। ফলে অন্য রাজ্যের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের তুলনা করা অনুচিত।
পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রস্তাবিত `জাতীয় সন্ত্রাস দমন কেন্দ্র`(এনসিটিসি) গঠনের উদ্যোগ ঘিরে রাজ্যের আপত্তির ক্ষেত্রগুলি সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন মুখ্যমন্ত্রী। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন `যুক্তরাষ্ট্র পরিকাঠামোর সীমানায়` কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করবে তাঁর দল।
তবে, বৈঠকে রাষ্ট্রপতি প্রার্থী নিয়ে আলোচনার সম্ভবনা নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা থাকলেও, বৈঠক শেষে এ বিষয় পরিষ্কার কোনও মন্তব্য করলেন না মুখ্যমন্ত্রী।
এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর কাছে রবীন্দ্র-জয়ন্তীর দিনটিকে জাতীয় ছুটি ঘোষণা করার প্রস্তাব দিয়েছেন। এপ্রসঙ্গে বিশ্বভারতীর জন্য আর্থিক অনুদান দেওয়ার কথাও বলেন তিনি।
তবে স্বাভাবিক ভাবেই এই সবকিছুকে ছাপিয়ে প্রাধান্য পেয়েছে আর্থিক প্যাকেজের ইস্যু। রাজ্যের আর্থিক অবস্থার তথ্য প্রমাণ প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করলেও ঋণ পরিকাঠামো পুনর্গঠন নিয়ে কোনও সমাধানসূত্র না মেলায় ভবিষ্যতে `রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত` নেওয়ার আগাম হুমকি দিয়ে রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।