ফিক্সিং: বুকিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে

আইপিএল ছয়ে ম্যাচ ফিক্সিংয়ে অভিযুক্ত এস শ্রীসন্থ, অজিত চান্ডিলা ও অঙ্কিত চৌহানকে আজ আদালতে পেশ করবে দিল্লি পুলিস। রাজস্থান রয়ালসের এই তিন খেলোয়াড়কে গত বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করা হয়। সেইসঙ্গে ১০ জন বুকিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ আদলালতে অভিযুক্তদের আরও এক দফা হেফাজতে চাইতে পারে পুলিস।

Updated: May 21, 2013, 09:00 AM IST

আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ে কাণ্ডে ধৃত চারজন বুকিকে ৪ জুন পর্যন্ত জেল হেফাজতের নির্দেশ দিল দিল্লি আদালত। ওই চারজনের বিরুদ্ধে ৪২০, ১২০ বি এবং ৪০৯ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও হতে পারে। কিছুক্ষণ আগেই অভিযুক্ত তিন ক্রিকেটারকে পেশ করা হয়েছে দিল্লির আদালতে। পেশ করা হয়েছে ধৃত শ্রীসন্থ, অজিত চান্ডিলা এবং অঙ্কিত চৌহানকে।
চান্ডিলার কিটব্যাগের মধ্যে থেকেই উদ্ধার হয়েছে হিসাব বহির্ভূত টাকা।  গ্রেফতারের পর তদন্তে শ্রীসন্থের মহিলাপ্রীতি সংক্রান্ত আরও তথ্য পেয়েছে তদন্তকারীরা। তাঁর ল্যাপটপে পাওয়া গেছে একঝাঁক উঠতি নায়িকা ও মডেলের ছবি। যে আইডি থেকে বলিউডের উঠতি নায়িকার ছবি শ্রীসন্থের ইমেলে আসত, সেটা একজন মুম্বইয়ের কাস্টিং ডিরেক্টরের। এরমধ্যে বেশ কিছু ইমেল ডিলিটও করা হয়েছে।  আজ চেন্নাই থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে প্রশান্ত নামে এক বুকিকে। তার কাছ থেকে ছ লক্ষ টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।
 
রাজস্থান রয়ালসের এই তিন খেলোয়াড়কে গত বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করা হয়। সেইসঙ্গে ১০ জন বুকিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ আদলালতে অভিযুক্তদের আরও এক দফা হেফাজতে চাইতে পারে পুলিস।
ইতমধ্যেই তিন ক্রিকেত্তারকে সাসপেন্ড করেছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার। চুক্তি ভাঙার জন্য শ্রীসন্থের বিরুদ্ধে এফআইআরও দায়ের করা হয়েছে। ওদিকে টানা পাঁচ দিন ধরে ধৃত তিন খেলোয়ারকে ম্যারাথন জেরা করছে দিল্লি পুলিস। গতকাল তাঁদের মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয়। পুলিসি জেরার মুখে দোষ স্বীকার করলেও ফিক্সিংয়ের পাঁকে নামানোর জন্য একে অপরকেই দায়ী করেছেন তাঁরা।
সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, জেরার মুখে টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন চান্ডিলা। দিল্লি পুলিস চান্ডিলার আত্মীয়র বাড়ি থেকে ২০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করেছে।