দলকে জেতানোর শপথ নেওয়ালেন করিম

ডার্বি ম্যাচের চব্বিশ ঘণ্টা আগেই ইস্টবেঙ্গলের কাটাছেঁড়া সেরে ফেললেন মোহনবাগান কোচ। মরগ্যানের দলের ভূয়সী প্রশংসা করেও মরোক্কান কোচ জানিয়ে দিলেন, পরিকল্পনা করে খেললে আটকে দেওয়া যায় চিডি-বোরিসিচদের।

Updated: Mar 16, 2013, 08:50 PM IST

ডার্বি ম্যাচের চব্বিশ ঘণ্টা আগেই ইস্টবেঙ্গলের কাটাছেঁড়া সেরে ফেললেন মোহনবাগান কোচ। মরগ্যানের দলের ভূয়সী প্রশংসা করেও মরোক্কান কোচ জানিয়ে দিলেন, পরিকল্পনা করে খেললে আটকে দেওয়া যায় চিডি-বোরিসিচদের। ডার্বি ম্যাচ জয়ের জন্য দলের ফুটবলারদের কাছে করিম শপথও চেয়ে নিয়েছেন বলে খবর
মোহনবাগানের মতই দুরন্ত ফর্মে আছে ইস্টবেঙ্গলও। টানা চোদ্দ ম্যাচে অপরাজিত তারা। ভিয়েতনাম থেকে ফেরার পর বারবারই ক্লান্তির কথা তুলে ধরছে ইস্টবেঙ্গল শিবির। তাঁকে অবশ্য পাত্তা দিতে নারাজ মোহনবাগান শিবির।
নয়ই ফ্রেবুয়ারির পর শিল্ডের সেমিফাইনালে রবিবার আবার ডার্বি ম্যাচ। একমাস আগে মরগ্যানের দলের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে মোহনবাগানের লক্ষ্য ছিল অন্তত এক পয়েন্ট। একমাস পর অবশ্য বদলে গেছে সবুজ বাগানের পুরো চিত্রটাই। বড়ম্যাচে নামার আগে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে মোহনবাগান ফুটবলাররা। ওডাফাদের মতই চনমনে কোচ করিম বেঞ্চিরিফাও। শিল্ডের সেমিফাইনাল। তাই এখানে অঙ্ক একটাই। জিতে জায়গা করে নিতে ফাইনালে। সুপার সানডে-তে শিল্ডের মেগা সেমিফাইনালের আগে মোহনবাগান কোচ বলছেন, ৯ ফ্রেবুয়ারির ডার্বির পারফরম্যান্সে কিছুটা উন্নতি করতে পারলেই,তারা তাদের লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবেন।
 
বড়ম্যাচের আগের দিন দল নিয়ে ধোঁয়াশা রাখলেন কোচ করিম। সবাই একপ্রকার ধরেই নিয়েছিল যে পেন-ওপারাদের বিরুদ্ধে মোহনবাগানের তিন বিদেশি হচ্ছেন ইচে, কুইন্টন আর ওডাফা। সাংবাদিক সম্মেলনে এসে টোলগের প্রশংসা করে ধোঁয়াশা বাড়িয়ে দিয়ে যান করিম। তবে পরিস্থিতি যা তাতে গোড়ালির চোট কাটিয়ে ফিরে এলেও, রিজার্ভ বেঞ্চেই বসছেন টোলগে। মেহতাব-পেনের ছন্দ নষ্ট করতে মাঝমাঠে জ্যাকবল আর ডেনসনই বাজি হতে চলেছে করিমের।

নয়ই ডিসেম্বর আই লিগের ডার্বিতে লাল কার্ড দেখে তিন ম্যাচ নির্বাসিত হতে হয়েছিল ওডাফাকে। শনিবারই ইস্টবেঙ্গল অধিনায়ক সঞ্জু প্রধান বলেছিলেন, মাথা গরম করে ফেললে খেলার ছন্দ নষ্ট হয়ে যায় ওডাফার। কিন্তু নাইজেরীয় গোলমেশিনের সতীর্থদের ধারণা এই ওডাফা একেবারে অন্য ফুটবলার। বিতর্কিত অধ্যায়ের পর নিজেকে একেবারে বদলে ফেলেছেন তিনি। মাঠে অযথা মাথা গরম করেন না। নিজের পারফরম্যান্স সামনে রেখে দলকে উজ্জীবিত করেন। নিয়মিত গোলও করেন। তাই ইস্টবেঙ্গল ফুটবলাররা তাঁর মাথা গরম করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও তিনি ফাঁদে পা দেবেন না। ডার্বি ম্যাচের আগে করিমের গলাতেও টিমম্যান ওডাফার কথা।

গত মরসুমে দুটো ডার্বিতে গোল করে দলকে জিতিয়েছিলেন ওডাফা। এবার একটা বড়ম্যাচেও গোল নেই তার। শনিবারই বড়ম্যাচে গোলের খরা কাটাতে চাইছেন মোহনবাগানের তারকা স্ট্রাইকার।