মোহনবাগানকে হারিয়ে শিল্ড ফাইনালে ইস্টবেঙ্গল

নমস্কার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন থেকে আপনাকে স্বাগত। আইএফএ শিল্ডের দ্বিতীয়
সেমিফাইনালে মুখোমুখি মোহনাবাগান-ইস্টবেঙ্গল। সেই ম্যাচের লাইভ আপডেট--

দলকে জেতানোর শপথ নেওয়ালেন করিম

ডার্বি ম্যাচের চব্বিশ ঘণ্টা আগেই ইস্টবেঙ্গলের কাটাছেঁড়া সেরে ফেললেন মোহনবাগান কোচ। মরগ্যানের দলের ভূয়সী প্রশংসা করেও মরোক্কান কোচ জানিয়ে দিলেন, পরিকল্পনা করে খেললে আটকে দেওয়া যায় চিডি-বোরিসিচদের।

জয় হাতছাড়া হওয়ায় হতাশ করিম

টোলগের গোলে তিন পয়েন্টের স্বপ্ন প্রায় ছোঁ মেরে কেড়ে নিল রন্টির গোল। নির্বাসন থেকে মুক্তির পর তাই মোহনবাগানের আই লিগে তিন ম্যাচে দাঁড়াল দুই পয়েন্ট। পারফরম্যান্সের মোড় ঘোরানোর জন্য নতুন চুক্তিবদ্ধ দুই ফুটবলার সুশান্ত ম্যাথু ও কুইন্টন জ্যাকবসকে নামানো থেকেও বিরত হননি কোচ করিম। কিন্তু জয় অধরাই থেকে গিয়েছে। করিম কিন্তু জয় হাতছাড়া হওয়া ম্যাচ থেকে ইতিবাচক দিকই খুঁজছেন। আর মোহনবাগান কোচের কাছে ইতিবাচক দিক একটাই,জড়তা কাটিয়ে দল আবার প্রতিযোগিতার মানসিকতায় ফিরে আসছে।

চাপের মুখেও করিম সমালোচনাকে পাত্তা দিচ্ছেন না

ট্রেভর জেমস মরগ্যানের মতোই তোপের মুখে মোহনবাগান কোচ করিম বেঞ্চরিফাও। আই লিগ থেকে নির্বাসনের পর শুরুটা মোটেই ভাল হয়নি মোহনবাগানের। নিজের পুরনো দলের কাছে হারতে হয়েছে করিমকে। মোহনবাগানের দায়িত্ব নেওয়ার পর আই লিগে এখনও জয়ের মুখ দেখাতে পারেননি  করিম। সমালোচনাকে অবশ্য পাত্তা দিতে নারাজ বাগান কোচ। করিমের মতে, কোনও কিছুই তাঁকে তার লক্ষ্য থেকে সরাতে পারবে না।

সালগাঁওকরকে হারিয়ে আই লিগের খেতাবি দৌড় শুরু মোহনবাগানের

করিম বেঞ্চারিফা আসার আগের দিনই কোচ মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে আইলিগে অস্বস্তির মেঘ কাটিয়ে স্বস্তির ঝলমলে আলোয় মোহনবাগান। সালগাঁওকরের বিরুদ্ধে ৩-০ গোলে জয়। নবনিযুক্ত কোচ ডেভিড বুথের স্ট্র্যাটেজি হার মানল বাঙালি কোচ মৃদুলের ট্যাকটিক্সের কাছে। মূলত দুটি উইংকে সচল রেখে লুসিয়ানোদের ব্যস্ত রেখে বাজিমাত করেন মৃদুল।

মিশন সাঁলগাওকরে বাগানের ভরসা `ছায়া মানুষ`

করিম জমানা শুরু হওয়ার আগে বাগানে স্বাধীনভাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত মৃদুলের শেষ ম্যাচ। সালগাঁওকর ম্যাচের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। স্ট্র্যাটেজি মিলিয়ে চলছে প্রস্তুতি। ডেভিড বুথের দলের বিরুদ্ধে পুরো তিন পয়েন্ট পেতে এবার সালগাঁওকর ম্যাচের সিডি খুঁজছেন মোহনবাগান কোচ মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায়। চার্চিল ব্রাদার্স-সালগাঁওকর ম্যাচের সিডি জোগাড় করার চেষ্টা হচ্ছে। রবিবাসরীয় প্রতিপক্ষ সালগাঁওকরকে করিম হাতের তালুর মত চেনেন। তবে সাব্রোসা-রুনিদের দলের শক্তি-দুর্বলতা নিয়ে কোচ মৃদুলের সঙ্গে কোনও আলোচনা করেননি করিম। মৃদুল মনে করেন,এ কজন পেশাদার কোচের এমনই হওয়া উচিত। বোঝাই যাচ্ছে করিম বাগানের এই ম্যাচে ছায়া মানুষ হয়ে ঘুরবেন।  

মেরুন সবুজের দায়িত্ব এবার করিমের কাঁধে

সরকারি ঘোষণার শুধুমাত্র অপেক্ষা। মোহনবাগানের কোচ হিসেবে করিম বেঞ্চিরিফাই যে দায়িত্ব পেতে চলেছেন,তা ইতিমধ্যেই জেনে গিয়েছেন সবুজ-মেরুন সমর্থকরা। মরক্কোন কোচের হাত ধরেই এসেছিল মোহনবাগানে শেষ ট্রফি। আবার ট্রফির আশা বাড়ছে করিমকে ঘিরেই।

করিমকে ছাড়তে নারাজ সালগাঁওকর

শনিবার সকালে সালগাঁওকর কর্ণধারের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেন ফেডারেশন সচিব কুশল দাস। দুর্দান্ত সফল করিমকে যে কোনমতেই ছাড়া সম্ভব নয়,তা স্পষ্টভাষায় জানিয়ে দেন শিবানন্দ সালগাঁওকর। সালগাঁওকর প্রধানের দেওয়া যুক্তি মেনে নিয়েছেন ফেডারশন সচিব।