নারদের স্টিং অপারেশন নিয়ে কে কী বললেন নারদের স্টিং অপারেশন নিয়ে কে কী বললেন

নারদ নিউজের স্টিং অপারেশনকে হাতিয়ার করে সরব বিরোধীরা। আজ সাংবাদিক সম্মেলন করে ২৫ মিনিটের ফুটেজ দেখান বিজেপি নেতা সিদ্ধার্থনাথ সিং। তাঁর দাবি, ফুটেজ থেকেই স্পষ্ট দুর্নীতিতে ডুবে আছে তৃণমূল সরকার। ফুটেজ নিয়ে সরব বামেরা শিবিরও। কমিশনের কাছে প্রয়োজনে ভোট স্থগিত রাখার আর্জি জানাচ্ছে বামেরা। তৃণমূল শিবিরের পাল্টা যুক্তি, রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে ষড়যন্ত্র করছে বিরোধী শিবির। গোটা ভিডিওটাই আদতে ভুয়ো। নারদ নিউজের এডিটর ম্যাথিউ স্যামুয়েলের পাল্টা দাবি, তাদের হাতে ৫২ ঘণ্টার ফুটেজ রয়েছে। যদিও, ফুটেজ খতিয়ে দেখেনি ২৪ ঘণ্টা।

নেতাজি ফাইল প্রকাশের পর নেহরুর চিঠি নিয়েই উত্তাল জাতীয় রাজনীতি নেতাজি ফাইল প্রকাশের পর নেহরুর চিঠি নিয়েই উত্তাল জাতীয় রাজনীতি

নেতাজি যুদ্ধপরাধী! ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এটলিকে লেখা চিঠিতে এমনটাই নাকি লিখেছিলেন জওহরলাল নেহরু! আর এই নথি সামনে আসতেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। কংগ্রেসের দাবি  চিঠিটি জাল! চিঠিতে নেই নেহরুর কোনও সইও। তাইহোকু বিমান দুর্ঘটনাতেই কী নেতাজির মৃত্যু হয়েছিল? পঁয়তাল্লিশের আঠারোই অগাস্টের পরও কী জীবিত ছিলেন সুভাষচন্দ্র বসু? বিমান দুর্ঘটনায় সুভাষচন্দ্রের মৃত্যু হয়েছে এমনটা সম্ভবত বিশ্বাস করতে পারেননি নেহরু। আর তাই চিঠি লিখে বসেছিলেন তত্কালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ক্লেমেন্স এটলিকে। নেতাজি ফাইল প্রকাশ্যে আসায় সামনে এসছে এমনই একটি চিঠি। আর সেই চিঠি ঘিরেই উত্তাল জাতীয় রাজনীতি। পয়তাল্লিশেরই ডিসেম্বরে এটলিকে  নেহরু লিখছেন , বিশ্বস্ত সূত্রে তিনি জানতে পেরেছেন, এটলির চোখে যুদ্ধপরাধী  সুভাষ চন্দ্র বসু কে রাশিয়ায় ঢোকার অনুমতি দিয়েছেন স্টালিন।আর এ চিঠি সামনে আসতেই উঠছে একের পর এক প্রশ্ন?