আন্ত্রিকের প্রকোপ বাঁকুড়ার তেতুলডাঙা ও অধিরামপুর গ্রামে, আক্রান্ত শতাধিক

আন্ত্রিকের প্রকোপ বাঁকুড়ার তেতুলডাঙা ও অধিরামপুর গ্রামে, আক্রান্ত শতাধিক

আন্ত্রিকের প্রকোপ বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাঁটি ব্লকের, তেতুলডাঙা ও অধিরামপুর গ্রামে। গত এক সপ্তাহ ধরে ছড়াচ্ছে রোগ। দুটি গ্রাম মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ইতিমধ্যে শতাধিক। অসুস্থদের বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ,  অমরকানন গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নার্সিংহোমেও চিকিত্‍সা চলছে অনেকের। এলাকায় ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে মেডিক্যাল টিম।

ফের হাতির তাণ্ডব বাঁকুড়ায় ফের হাতির তাণ্ডব বাঁকুড়ায়

ফের হাতির তাণ্ডব বাঁকুড়ায়। সপ্তাহখানেক বন্ধ থাকার পর বেলিয়োতোড়ে রাতভর দাপিয়ে বেড়াল হাতির দল। হাতির হামলার প্রতিবাদে পথ অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

অবহেলায় নষ্ট হতে বসেছে বাঁকুড়ার দেড় হাজার বছরের প্রাচীন মন্দির! অবহেলায় নষ্ট হতে বসেছে বাঁকুড়ার দেড় হাজার বছরের প্রাচীন মন্দির!

সংস্কারের বালাই নেই। নেই সংরক্ষণের ব্যাবস্থাও। আছে শুধু মন্দির অধিগ্রহণের নির্দেশিকা লেখা পুরাতত্ব বিভাগের নোটিশ। সংরক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে ইতিমধ্যেই মন্দির লাগোয়া সীমানা পাঁচিলের একাংশ নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে। দুষ্কৃতীদের হাত পড়েছে মন্দিরের দেওয়ালেও। কার্যত অবহেলায় ধীরে ধীরে নষ্ট হতে বসেছে বাঁকুড়ার গোকুলনগর গ্রামের প্রায় দেড় হাজার বছরের প্রাচীন মন্দির।বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর। মল্লারাজদের রাজধানী। বিষ্ণুপুর থেকে খানিকটা দূরেই জয়পুর। এই জয়পুরের লাউগ্রাম ও পার্শ্ববর্তী  কয়েকটি গ্রামের দখল নিয়ে রাজত্ব শুরু হয় মল্ল রাজ বংশের। প্রথম রাজা আদি মল্ল। আদিমল্লের ছেলে জয়মল্ল  বিষ্ণুপুরে রাজধানী সরিয়ে আনেন। বিষ্ণপুরে বহু মন্দির নির্মাণ করেণ মল্লরাজারা। তবে ভুলে যাননি জয়পুরকে। জয়পুরের কাছে গোকুলনগরে তৈরি করেন একটি মন্দির। গোকুলচাঁদ মন্দির।

পুলিসকে টাকা দিয়ে ভুয়ো চালান দেখিয়ে অবৈধ বালির রমরমা কারবার বাঁকুড়ায় পুলিসকে টাকা দিয়ে ভুয়ো চালান দেখিয়ে অবৈধ বালির রমরমা কারবার বাঁকুড়ায়

বাঁকুড়ায় পুলিসকে টাকা দিয়ে, ভুয়ো চালান দেখিয়ে চলছে অবৈধ বালির রমরমা কারবার। প্রশাসনের কাছে বারবার জানিয়েও ফল না হওয়ায় শতাধিক বালির ট্রাক আটকে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা। ঘটনাস্থলে যেতে হয় পুলিস প্রশাসনকে। আটক করা হয়েছে একজনকে।

আক্রান্ত বড়জোড়ার সিপিএম বিধায়ক সুজিত চক্রবর্তী আক্রান্ত বড়জোড়ার সিপিএম বিধায়ক সুজিত চক্রবর্তী

আক্রান্ত হলেন বাঁকুড়ার বড়জোড়ার সিপিএম বিধায়ক সুজিত চক্রবর্তী। গতকাল দুপুরে বড়জোড়ার পখন্না গ্রামে তৃণমূলের বিজয় মিছিল থেকে সিপিএমের পার্টি অফিস ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ। ভাঙা হয় চেয়ার-টেবিল ও সিপিএম নেতাদের ছবি।

আজই এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহী সুভাষ পালের শেষকৃত্য আজই এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহী সুভাষ পালের শেষকৃত্য

রাজ্যে ফিরলেন সুভাষ পাল। ফিরল এভারেস্ট জয়ী এই পর্বতারোহীর নিথর দেহ। কলকাতা বিমানবন্দরে পৌছনর পর তা পূর্ণ মর্যাদায় বাঁকুড়ার বাড়ির উদ্দেশে রওনা করিয়ে দেওয়া হয়। রাতেই কফিনবন্দি দেহ নিয়ে যাওয়া হয় বাঁকুড়ায়। রাতে পুলিস লাইনের হাসপাতালে রাখা হয় সুভাষ পালের দেহ। ভোরে দেহ নিয়ে যাওয়া হয় পর্বতারোহীর বাড়িতে। মৃত পর্বতারোহীর কফিন বন্দি দেহ ঘরে পৌছতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন শোকস্তব্ধ পরিবার। আজ মৃত পর্বতারোহীর স্মরণে শোক মিছিল পরিক্রমা করবে বাঁকুড়া শহর। দুপুরে সুভাষ পালের দেহ নিয়ে যাওয়া হবে তার গ্রাম বরুটে। সেখানেই শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে পর্বতারোহীর।

বাঁকুড়া জেলার প্রথম এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহীকে চির বিদায় জানাতে গার্ড অফ অনার বাঁকুড়া জেলার প্রথম এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহীকে চির বিদায় জানাতে গার্ড অফ অনার

কাল ভোরে বাঁকুড়া শহরে পৌঁছবে সুভাষ পালের দেহ। জেলার প্রথম এভারেস্ট জয়ী পর্বতারোহীকে চির বিদায় জানাতে গার্ড অফ অনার দেবে বাঁকুড়া জেলা পুলিস। শোক বিহ্বল গোটা জেলা। 

এভারেস্টে বাঙালি অভিযাত্রী সুভাষ পালের মৃত্যুতে শোকের ছায়া পাল পরিবারে এভারেস্টে বাঙালি অভিযাত্রী সুভাষ পালের মৃত্যুতে শোকের ছায়া পাল পরিবারে

গতকালের খবর বদলে গেল আজ। এভারেস্টে এক বাঙালি অভিযাত্রীর মৃত্যুর খবর। ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পর্বতারোহী সুভাষ পালের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল উদ্ধারের পরেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে এখনও নিখোঁজ পরেশ নাথ ও গৌতম ঘোষ। দাবি সরকারের উদ্ধারকারী দলের সদস্য দীপঙ্কর ঘোষের। সুনীতা হাজরাকে উদ্ধার করে লুকলায় আনা হয়েছে। সেখান থেকে তাঁকে নিয়ে আসা কাঠমাণ্ডু নিয়ে আসা হবে। লুকলা থেকে বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলেছেন সুনীতা। গতকাল দুপুরেই এভারেস্টের ৪ নিখোঁজ বাঙালি অভিযাত্রীকে উদ্ধারের খবর দেয় রাজ্য সরকার। কিন্তু সন্ধের পরই খবর বদলে যায়।

বাঁকুড়া জেলার ফল বাঁকুড়া জেলার ফল

এই জেলায় বামেরা যে তিনটি আসনে জিতেছে সেগুলি হল - বড়জোড়া, সোনামুখি, ছাতনা

বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম জল নিয়েই লাঠালাঠি বেধে যাওয়ার অবস্থা বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম জল নিয়েই লাঠালাঠি বেধে যাওয়ার অবস্থা

প্রচণ্ড গরম।  তারওপর শুরু হয়েছে জলকষ্ট। পুকুর শুকিয়েছে, কুয়ো শুকিয়েছে। সত্তর ফিট গভীর টিউবওয়েলেও জল উঠছে না। পুরসভা, পঞ্চায়েত টাইম কলে যে জল দিচ্ছে তাতে আশ মিটছে না। বাঁকুড়া,পুরুলিয়া,বীরভূম জল নিয়েই লাঠালাঠি বেধে যাওয়ার অবস্থা। সাধারণ মানুষের মতই আকাশের দিকে তাকিয়ে রয়েছে প্রশাসনও। কবে বৃষ্টি নাবে?

বাঁকুড়ায় হাতির তাণ্ডব বাঁকুড়ায় হাতির তাণ্ডব

একে নির্বাচনের উত্তেজনা। তায় আবার মাত্রাছাড়া গরম। তার ওপর এসে জুটল হাতির তাণ্ডব। হাতির আতঙ্কে তটস্থ বাঁকুড়ার ইন্দাস ও আশেপাশের এলাকার বাসিন্দারা। দুটি হাতি কার্যত দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এলাকা জুড়ে।

দাবদাহ রাজ্য জুড়ে, একনজরে কোন জেলায় কত তাপমাত্রা দাবদাহ রাজ্য জুড়ে, একনজরে কোন জেলায় কত তাপমাত্রা

দক্ষিণবঙ্গে তাপপ্রবাহ চলবে সতর্কতা জারি করল আলিপুর আবহওয়া দপ্তর। আগামি তিনদিন তাপপ্রবাহ জারি থাকবে। তবে কলকাতা তাপমাত্রা গতকালের তূলনায় খানিকটা কম। শুধু গরমেই নাজেহাল নয়, তীব্র জলকষ্টে ভুগছে অনেক জায়গার মানুষ। এল নিনোর প্রভাবে অতিরিক্ত পরিমানে গরমে প্রাণ যায় যায় অবস্থা দেশের মানুষের।

কড়া নজরদারিতে আজ দ্বিতীয় দফার ভোট বাঁকুড়ায় কড়া নজরদারিতে আজ দ্বিতীয় দফার ভোট বাঁকুড়ায়

দ্বিতীয় দফায় আজ বাঁকুড়ার ৯ আসনে ভোট।  ভোট যুদ্ধের লড়াইয়ে মোট ৫৪ জন প্রার্থী। মোট বুথের সংখ্যা ২ হাজার ৪২৮। স্পর্শকাতর বুথের সংখ্যা ১ হাজার ১০৬টি।

 মহানগরের পারদ ছুঁয়েছে চল্লিশ ডিগ্রি! বাঁকুড়ায় তাপমাত্রা ছুঁয়েছে পঁয়তাল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াস! মহানগরের পারদ ছুঁয়েছে চল্লিশ ডিগ্রি! বাঁকুড়ায় তাপমাত্রা ছুঁয়েছে পঁয়তাল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াস!

এপ্রিলের সবে শুরু। কিন্তু ভোটের উত্তাপ গায়ে মেখে গ্রীষ্মের শুরুতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে রাজ্য। তাপমাত্রার পারদ চড়ছে হু হু করে।কাল মরুশহর রাজস্থানকে পিছনে ফেলে মহানগরের পারদ ছুঁয়েছে চল্লিশ ডিগ্রি। আজ সকালে এক দু পশলা বৃষ্টি হলেও পরিস্থিতির যে উন্নতি হবে না তা আগেই জানিয়ে রেখেছে আবহাওয়া দফতর। আগামী দু-এক দিনে পরিস্থিতি এরকমই থাকবে, গরম আরও বাড়বে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। ঝাড়খণ্ড থেকে গরম হাওয়া ঢুকছে বলেই তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস।  

এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে, নাজেহাল মানুষ এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে, নাজেহাল মানুষ

এপ্রিলের শুরুতেই প্রবল দাবদাহ শহরজুড়ে। আজ দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগামী দু-এক দিনেও পরিস্থিতি এরকমই থাকবে বলে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে। অস্বস্তি থাকবে। গরমও বাড়বে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপপ্রবাহ চলবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

পরের দফায় আরও কড়া ভূমিকায় কমিশন পরের দফায় আরও কড়া ভূমিকায় কমিশন

আরও কড়া কমিশন। জারি নয়া ফরমান। তবে কেন এত কড়া দাওয়াই প্রেসক্রাইব করল কমিশন? ঠিক কী ঘটেছিল প্রথম দফার ভোটে?  ক্যামেরায় ধরা পড়েছে কমিশনের নিয়মকে বুড়ো আঙুলের একাধিক ছবি। বেআব্রু কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঢিলেঢালা নিরাপত্তা। ভোটের পারদ যত তেতেছে, তখন গাছের ছায়ায় জিরিয়ে নিতে দেখা গেছে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনীকে। পুরুলিয়া, বাঁকুড়ায় দেখা গেছে বুথের ভিতরে পুলিস, বাইরে বাহিনীকে।