রাজীব গান্ধী হত্যাকারীদের মুক্তির উপর স্থগিতাদেশ শীর্ষ আদালতের

রাজীব গান্ধীর তিন হত্যাকারীর মুক্তির উপর স্থগিতাদেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। বুধবার তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা ঘোষণা করেছিলেন হত্যাকাণ্ডে সাজাপ্রাপ্ত সাতজনকে মুক্তি দেবে রাজ্য সরকার। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে যায় কেন্দ্র। আদালত জানিয়েছে দোষীদের মুক্তি দেওয়ার অধিকার রাজ্য সরকারের থাকলেও আইনি প্রক্রিয়া মেনে সরকারকে এগোতে হবে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর হত্যাকারীদের মুক্তি নিয়ে তামিলনাড়ু সরকারের সিদ্ধান্তের উপর স্থগিতাদেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। পরবর্তী সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত স্থিতিবস্থা বজায় রাখতে বলেছে শীর্ষ আদালত।

সমকামিতা অপরাধ- শীর্ষ আদালতের রায়ে গভীর হতাশায় সোনিয়া, চিদম্বরম, কপিল

সমকামিতা অপরাধ। দেশের শীর্ষ আদালতের রায়ে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড়। সমালোচনায় মুখর হয়েছে রাজনৈতিক মহল, বুদ্ধিজীবী মহল, বিনোদন জগত। আদলতের রায় শুনে কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী বলেন, হাইকোর্ট নিষ্ঠুর, মানবাধিকার বিরোধী একটা আইনের বিরোধিতা করেছিল। সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে যে রায় দিয়েছে তাতে আমি হতাশ। আমাদের সংবিধানের ঐতিহ্য রয়েছে, আমাদের সংবিধান মুক্ত মনে কথা ভাবার, কথা বলার অধিকার দিয়েছে। তার জোরেই আমরা এই রায়ের বিরোধিতা করছি। আশা করি সংসদে এই বিষয়টা তোলা হবে এবং ভারতের সব নাগরিকদের জন্য স্বাধীন ভাবে বাঁচার অধিকার প্রতিষ্ঠা করা যাবে।

সম্পত্তি নিয়ে অস্বস্তিতে মুলায়ম, অখিলেশ

ফের অস্বস্তিতে মুলায়ম সিং যাদব। হিসাব বর্হিভুত সম্পত্তি মামলায় মুলায়ম সিং যাদব ও তাঁর ছেলে অখিলেশের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।তবে, সিবিআইয়ের তদন্তের আওতা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে অখিলেশের স্ত্রী ডিম্পল যাদবকে। ২০০৭-এ আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তির কারণে যাদব পরিবারের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন এক আইনজীবী। সেই মামলার প্রেক্ষিতে শীর্ষ আদালত যাদব পরিবারের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয়। সেই রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে ফের আবেদন করেন মুলায়ম সিং যাদব। তাঁদের দাবি ছিল কোনও প্রমাণ না থাকলেও, শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে হেনস্থা করা হচ্ছে তাঁদের।