এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ফ্রান্সে কবে কোথায় কী কী হামলা হয়েছে

গত কয়েক বছরে বারবার জঙ্গি নিশানায় ফ্রান্স । মৃত্যু হয়েছে অসংখ্য নিরীহ মানুষের। সন্ত্রাস মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে সংস্কৃতির এই প্রাণকেন্দ্রে। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, ফ্রান্সে কবে কোথায় কী কী হামলা হয়েছে।

Updated: Apr 21, 2017, 09:06 AM IST
এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ফ্রান্সে কবে কোথায় কী কী হামলা হয়েছে

ওয়েব ডেস্ক: গত কয়েক বছরে বারবার জঙ্গি নিশানায় ফ্রান্স । মৃত্যু হয়েছে অসংখ্য নিরীহ মানুষের। সন্ত্রাস মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে সংস্কৃতির এই প্রাণকেন্দ্রে। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, ফ্রান্সে কবে কোথায় কী কী হামলা হয়েছে।

জানুয়ারি, ২০১৫

ফরাসি ম্যাগাজিন চার্লি হেবদোর অফিসে হামলা চালায় দুই বন্দুকবাজ। ৭ জানুয়ারি থেকে তিনদিনের এই হামলায় প্রাণ হারান ১২জন। বন্দুকবাজরা নিজেদের আল কায়দার সদস্য বলে দাবি করে।

আরও পড়ুন ফের জঙ্গি নিশানায় ফ্রান্স, বৃহস্পতিবার রাতে চ্যাম্প এলিসিসের সামনে হামলা চালাল এক বন্দুকবাজ

১৩ নভেম্বর, ২০১৫

সেদিন সন্ত্রাস হানায় রক্তাক্ত হয়েছিল প্যারিস। ধারাবাহিক বিস্ফোরণ, জঙ্গিদের গুলি, গ্রেনেড হামলায় কেঁপে উঠেছিল ফ্রান্স। একটি রেস্তোরাঁয় আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায় সন্ত্রাসবাদী সংগঠন আই এস। বাতাক্লাঁ কনসার্ট হলে ওই হামলায় প্রাণ হারান ১৩০জন। ধারাবাহিক ওই বিস্ফোরণে তিন সন্ত্রাসবাদীরও মৃত্যু হয়। হামলার দায় স্বীকার করে IS ।

১৪  জুলাই ২০১৬

জাতীয় দিবস ‘বাস্তিল ডে’ উদযাপনে মানুষের ঢল নেমেছিল নিস শহরে। আচমকা প্রচণ্ড গতিতে বেপরোয়াভাবে দৌড়তে থাকে একটি ট্রাক। চাপা পড়তে থাকেন একের পর এক মানুষ।  নির্বিচারে পিষে হত্যা করা হয় ৮৪জনকে। ট্রাক থেকে গুলিও ছোঁড়া হয়। পরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয় ট্রাক চালকের। ঘটনায় দায় স্বীকার করে IS ।

১৭ মার্চ, ২০১৭

প্যারিসে ইন্টারন্যাশনাল মনিটরি ফান্ডের দফতরে পত্রবোমা বিস্ফোরণ।  আহত হন ১ মহিলা কর্মী। গ্রিসের একটি জঙ্গি সংগঠন ওই পত্রবোমা পাঠিয়েছিল বলে অনুমান করা হয়।

১৮ মার্চ, ২০১৭

প্যারিসের ওরলি বিমানবন্দরে ছুরি নিয়ে এক ব্যক্তি হামলা চালায়। এক পুলিসকর্মী গুরুতর জখম হন। পরে পুলিসের গুলিতে নিহত হয় ওই আততায়ী।

আরও পড়ুন রোদে সানবার্ন নিয়ে চিন্তা করছেন? জেনে নিন কীভাবে সানবার্ন প্রতিরোধ করবেন

২৫  মার্চ, ২০১৭

লিলে মেট্রো স্ট্রেশনের খুব কাছেই তাণ্ডব চালায়  এক বন্দুকবাজ। তাঁর এলোপাথাড়ি গুলিতে জখম বেশ কয়েকজন।