জোড়া ধর্ষণ: কালনায় আদিবাসী তরুণীকে, কাঁকিনাড়ায় বালিকাকে

Last Updated: Wednesday, June 26, 2013 - 09:22

আদিবাসী তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল কালনার পূর্বস্থলীতে। গতকাল অচৈতন্য অবস্থায় ওই তরুণীকে রাস্তা থেকে উদ্ধার করা হয়। থানায় অভিযোগ দায়ের হলেও কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। উত্তর চব্বিশ পরগনার কাঁকিনাড়ায় এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল  গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত গৃহশিক্ষককে ব্যাপক মারধরের পর পুলিসের হাতে তুলে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 
মঙ্গলবার সকালে গৃহশিক্ষক ছোটু দাসের বাড়িতে পড়তে গিয়েছিল কাঁকিনাড়ার রায়বাহাদুর রোডের বাসিন্দা আট বছরের এক বালিকা। সেখানেই ছুটির পর তাকে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। রক্তাক্ত অবস্থায় ওই তাকে উদ্ধার করে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।  অভিযুক্ত শিক্ষককে  মারধর করে স্থানীয় বাসিন্দারা জগদ্দল থানার পুলিসের হাতে তুলে দেন।  
 
এক আদিবাসী তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল কালনার পূর্বস্থলী এলাকার জামালপুর গ্রামে। সোমবার রাতে মায়ের সঙ্গে ঝগড়া হওয়ায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান ওই তরুণী। অভিযোগ, সেই সময় তিনজন যুবক তাঁকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। বাধা দেওয়ার ওই তরুণীকে ব্যাপক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।  মুখ খুললে ওই তরুণীকে খুনের  হুমকিও দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে।
মঙ্গলবার অচৈতন্য অবস্থায় রাস্তার ধার থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তরুণীর পরিবারের তরফে পূর্বস্থলী থানায় গণধর্ষণের অভিযোগ দায়ের  হয়েছে। কামদুনি, গেদে সহ রাজ্য জুড়ে চলা ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে মঙ্গলবার বাঁকুড়ায় পথে নামেন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীরা। 



First Published: Wednesday, June 26, 2013 - 10:14


comments powered by Disqus