আগলি বার শুধুই সৌম্য সরকার

Updated By: Mar 18, 2016, 05:00 PM IST
 আগলি বার শুধুই সৌম্য সরকার

স্বরূপ দত্ত

 

ফিল্ডিং জিনিসটা ঠিক কী! এটা পাড়ার মাঠে ছেলেবেলায় যখন খেলতাম, তখন বুঝতাম। কারণ, নিজে নাকি খুব ভালো ফিল্ডিং করতাম। কনুই ছড়ে যেত। নুন-ছাল উঠে যেত। তিন্তু শরীরটাকে উড়িয়ে দিয়ে ক্যাচ নিতে খুব ভালোবাসতাম। এক-দুরান বা বাউন্ডারিও বাঁচাতাম বইকি। তারপর টিভিতে খেলা দেখতে বসে দেখতাম, নরেন্দ্র হিরওয়ানি বা মনোজ প্রভাকররা কীভাবে অবলীলায় পায়ের তলা দিয়ে বল গলিয়ে দিতেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ওই গাস লোগি ছাড়া 'আমার থেকে ভালো' ফিল্ডার আমার চোখে পড়ত না। একনাথ সোলকারদের নাম অনেক শুনেছি। কিন্তু কত বড় ফিল্ডার ছিলেন? সে যুগের সেরা। কিন্তু সর্বকালের সেরা? অবাক লাগতো।

আমার ঘুম ভেঙে গেল তাঁকে দেখে। আমার একারই বা কেন! গোটা দুনিয়ারও কী নয়! দেখলাম জন্টি রোডস নামক এক উড়ন্ত পাখিকে! ফিল্ডিং জিনিসটা ঠিক কতটা দৃষ্টিনন্দন হতে পারে, ঠিক কতটা কার্যকরি হতে পারে বুঝিয়ে দিলেন মানুষটা। কে বলে মানুষ উড়তে পারে না! জন্টি রোডস দেখালেন, দিব্যি পারে। সেই শুরু। তারপর থেকে শুধু ফিল্ডিংয়েই চোখ টেনেনিলেন যাঁরা।

১) রিকি পন্টিং - কত বড় ক্যাপ্টেন! কত বড় ব্যাটসম্যান! এগুলো নিয়ে একটা বাক্যও খরচ করার মানে হয় না। কিন্তু রিকি পন্টিং কত বড় ফিল্ডার, এটা নিয়েও কিছু বলার নেই। ইনজিরিতে একটাই শব্দ 'আউটস্টান্ডিং'।

২) হার্সেল গিবস - এরকম ব্যাটসম্যান যে বড় মনের কাছের হয়ে উঠেছিলেন। মারতেন অনেকেই। কিন্তু দু হাতে থুতু দিয়ে আমার পাড়ার ক্রিকেটে যেমন দাদারা ক্রিকেট খেলতো, সেভাবে মারতেন। ভালো লাগবে না! আর গিবসের ফিল্ডিং! হু....হু...দারুণ।

৩) ডেভিড ওয়ার্নার - বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান। ওই উচ্চতা নিয়ে বাউন্সার কীভাবে সামলাবেন ভাবতামফ পরে দেখলাম, ওয়ার্নার ব্যাটিংটাও বাউন্সারের মতো করে করেন! কী সব শট নেন! আর ফিল্ডি! দাঁড়ানো ছবিই পাওয়া যায় না গুগলে। সব ছবিতেই ওয়ার্নার উড়ছেন।

৪) রোশন মহানামা - শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার আবার ফিল্ডিং করবে কী! অর্জুনা রনতুঙ্গার মতো শরীর চোখের সামনে থেকে সরতো না কিছুতেই। কিন্তু রোশন মহানামা অন্য জাতের ফিল্ডার। দ্বীপের মাঠে বেশি ঘাস থাকে না। কিন্তু মহানামার ফিল্ডিং দেখে মনে হতো, লোকটা ইংল্যান্ডের মাঠে খেলে বড় হয়েছেন।

৫) মহম্মদ আজাহারউদ্দিন - কখনও রানটাই সব কথা নয়। রানটা ব্যাটসম্যান কীভাবে করল, সেটাও বিচার্য হয়। আজাহার কত রান বাঁচালেন সেটা তো ছিলই। কিন্তু আজাহার যে ফিল্ডিংটা করতেন, সেটা কোনও কোচ কাউকে শেখাতে পারেবন না। তিনি সেরা ছিলেন। আছেন। পরেও মনে মনে থাকবেন। কারণ, তাঁর ফিল্ডিংয়ের কেরামতিটা শুধু শারীরিক সক্ষমতা ছিল না। ছিল উদ্ভাবনী শক্তিতে ভরপুর।

৬) সৌম্য সরকার - নাম ছ নম্বরে নিলাম। কিন্তু আপাতত বুকের সব থেকে কাছের হয়ে উঠেছে। আসলে বাঙালি। কোনও বাঙালি এই ফিল্ডিং করতে পারে! রোজ অবাক হওয়া বাড়ছে। কী সব ক্যাচ ধরছেন সৌম্য। একটার রেশ কাটতে না কাটতে আর একটা ক্যাচ ধরছেন! সৌম্য সত্যিই বাংলাদেশের, এমনকি বাঙালির ফিল্ডিংয়ের মানটাই বাড়িয়ে দিয়েছেন। গর্বিত করেছেন। সৌম্য সত্যিই স্যালুট আপনাকে। তাই আওয়াজটা তুললাম আপনার জন্য। আগলি বার সৌম্য সরকার!