রাজনীতিতে 'নাম বদনাম' শুধু অভিনেত্রীদেরই কেন?

২০২১ সালেও পুরুষতান্ত্রিক সমাজ দাঁত-নখ বের করছে!  

Reported By: অনুসূয়া বন্দ্যোপাধ্যায় | Updated By: Mar 3, 2021, 06:39 PM IST
রাজনীতিতে 'নাম বদনাম' শুধু অভিনেত্রীদেরই কেন?

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজনীতির ময়দানে এখন শিরোনামে তারকারা। প্রতিদিনই গেরুয়া শিবির অথবা ঘাসফুলে নাম লেখাচ্ছেন সেলেবরা। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ঘটা করে দলের প্রচার সারছেন তাঁরা। নতুন যাত্রায় শুভেচ্ছাও আসছে ভুরি ভুরি। তবে তার মাঝেই থাকছে আপত্তিকর মন্তব্য ও বিদ্রুপ। যশ, রাজ চক্রবর্তীরা রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হলেও বিদ্রুপের শিকার মহিলা শিল্পীরাই। ব্যক্তিগত জীবন বা বডি শেমিং- নানা ধরনের মন্তব্য উড়ে আসছে নায়িকাদের দিকে। কিন্তু, শুধু অভিনেত্রীরাই কেন টার্গেট? কেন বারবার এহেন আপত্তিকর মন্তব্য করা হচ্ছে তাদের উদ্দেশে? ২০২১ সালেও পুরুষতান্ত্রিক সমাজ দাঁত-নখ বের করছে!  

সদ্য তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন পরিচালক সুদেষ্ণা রায় (Sudeshna Roy)। তাঁর মতে, 'নারীরাই বেশিরভাগ আক্রমণের নিশানা। নোংরা নোংরা কথা বলা হচ্ছে। এটা পুরো নারী জাতির অপমান। বহু পুরুষেরও ১০টা-৫টা বিয়ে থাকতে পারে, তখন তো এই প্রশ্ন ওঠে না। ব্যক্তিগত জীবনে কে কটা বিয়ে করলেন তা কখনই তাঁর কাজ বা প্রতিভার মাপকাঠি হতে পারে না। আগে মিমি, নুসরতকে ট্রোল করা হত। তাঁরা কাজ করেছেন, নিজেদের প্রমাণ করেছেন, ফলে ট্রোল অনেকটা কমেছে। নেতিবাচক মন্তব্য যাঁর সম্পর্কে করা হচ্ছে, তিনি ছোট হচ্ছেন না, বরং যিনি মন্তব্য করছেন তিনিই ছোট মনের পরিচয় দিচ্ছেন।'

দিন কয়েক আগে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন অভিনেত্রী পায়েল সরকার (Paayel Sarkar)। তাঁর কথায়, 'সেলিব্রিটিদের নিয়ে সবসয়ই স্ক্রুটিনি চলতে থাকে। রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পর  তা মাত্রাতিরিক্ত হয়ে গেছে। ট্রোলিংয়ের শিকার হতে হয় প্রতিনিয়ত। কারও বডিশেমিং করা হচ্ছে। কখনও আবার প্রশ্ন তোলা হচ্ছে চরিত্র নিয়ে। নেতিবাচক মন্তব্য বা ট্রোলিংকে খুব বেশি সিরিয়াস নেওয়া উচিত্‍ নয়। আমি যা চাই, তাতেই আমায় ফোকাস করতে হবে। নেতিবাচক বিষয়কে অগ্রাধিকার দিলে আসল কাজের ক্ষতি।'

তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কিছুদিন আগে সায়নী ঘোষকে (Saayoni Ghosh) নিয়েও চলেছে বিস্তর ট্রোলিং। বিভিন্ন জায়গা থেকে এসেছিল আক্রমণের ঝড়। সিনেমার ক্লিপিং ভাইরাল করে নায়িকার চরিত্র নিয়ে তুলে দেওয়া হয়েছিল প্রশ্ন। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হননি সায়নী। বরং রবীন্দ্রনাথকে উদ্ধৃত করে নিন্দুকদের উদ্দেশে লিখেছিলেন-'চিত্ত যেথা ভয় শূণ্য, উচ্চ যেথা শির'। 

পরিশেষে বলা যায়, 'কুছ তো লোগ কহেঙ্গে লোগো কা কাম হে কহেনা, ছোড়ো এ বেকার কে বাতে।'

আরও পড়ুন- Aaveera যেন হুবহু Sunny Leone, অন্তর্জালে ভাইরাল ছবি