টিকা আবিষ্কারের পরেও বিশ্ব থেকে কোনও দিনই হয়তো সম্পূর্ণ নির্মূল হবে না করোনাভাইরাস!

সম্প্রতি ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা!

Edited By: সুদীপ দে | Updated By: May 29, 2020, 04:06 PM IST
টিকা আবিষ্কারের পরেও বিশ্ব থেকে কোনও দিনই হয়তো সম্পূর্ণ নির্মূল হবে না করোনাভাইরাস!

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনার টিকা আবিষ্কারের চেষ্টা চালাচ্ছেন বিশ্বের একাধিক দেশের শতাধিক বিজ্ঞানী ও গবেষকরা। কিন্তু কবে হাতে আসবে করোনার টিকা? বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ যখন এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষায় দিন গুণছেন, তখন উদ্বেগ বাড়াল ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত মার্কিন বিশেষজ্ঞের আশঙ্কা!

সম্প্রতি ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে মার্কিন বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, প্রতিষেধক বা টিকা আবিষ্কারের পরেও হয়তো কয়েক দশক পৃথিবীতে থেকে যাবে করোনাভাইরাস। ডিসেম্বর (মতান্তরে অক্টোবরের শুরু থেকে) থেকে শুরু হয়ে মে মাস শেষ হতে চলল, এখনও এই ভাইরাসের সংক্রমণকে বাগে আনতে পারছেন না বিজ্ঞানী ও গবেষকরা। হাম, চিকেন পক্স, এইচআইভির উদাহরণ টেনে শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, প্রতিষেধক আবিষ্কারের পরেও হয়তো কয়েক দশক থেকে যাবে এই ভাইরাস। সব মহামারির ক্ষেত্রেই এমনটা দেখা গিয়েছে।

মে মাসের শুরুতে WHO-এর করোনা বিশেষজ্ঞ ডেভিড নাবারো আশঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছিলেন, এমন বেশ কিছু ভাইরাস আছে, যেগুলির টিকা এখনও আবিষ্কার করা যায়নি। যেমন, HIV বা ডেঙ্গির টিকা এখনও আবিষ্কার করা যায়নি। অথচ বিগত কয়েক দশক ধরে এই দুই ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে লক্ষ লক্ষ মানুষের। একই ভাবে ডেঙ্গির ক্ষেত্রেও কোনও প্রতিষেধক তৈরি করতে পারেননি গবেষকরা। তেমনই করোনার প্রতিষেধক আদৌ তৈরি করা সম্ভব হবে কি না, সে ব্যাপারে নিশ্চিত ভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: আরও ভয়ঙ্কর হতে পারে পরিস্থিতি! করোনার ‘সেকেন্ড ওয়েভ’ সম্পর্কে সতর্ক করল WHO

তবে আশঙ্কার পাশাপাশি আশার কথাও শুনিয়েছেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা। ওয়াশিংটন পোস্টের ওই প্রতিবেদনে তাঁরা জানান, ভবিষ্যতে হয়তো পরিস্থিতি এতটাও খারাপ থাকবে না। ধীরে ধীরে শক্তি ক্ষয় হবে করোনাভাইরাসের। মানুষের শরীরেও এই ভাইরাসের যুঝে নেওয়ার মতো প্রতিরোধ ক্ষমতা হয়তো তৈরি হয়ে যাবে। তৈরি হয়ে যাবে করোনার টিকা বা ভাইরাস রোধী একাধিক ওষুধও। তাঁরা জানান, বর্তমানে পৃথিবীতে এ রকম অনেক ভাইরাস ‘এন্ডেমিক’ হিসেবেই থেকে গিয়েছে। Covid-19-এর ক্ষেত্রেও হয়তো সেটাই হবে।