লক ডাউনে ওষুধ খান বুঝে শুনে, সুস্থ থাকুন আগাম সতর্কতা আর পর্যাপ্ত বিশ্রামে

জেনে নিন এ বিষয়ে ঠিক কী বলছেন বিশেষজ্ঞ চিকিত্সক ডঃ প্রতিম সেনগুপ্ত...

Reported By: সুদীপ দে | Updated By: Mar 29, 2020, 11:37 AM IST
লক ডাউনে ওষুধ খান বুঝে শুনে, সুস্থ থাকুন আগাম সতর্কতা আর পর্যাপ্ত বিশ্রামে

সুদীপ দে: করোনা আক্রান্ত রোগীদের ওপর ম্যালেরিয়ার ওষুধ প্রয়োগের কথা বলেছেন কিছু গবেষক। এই বিষয় নিয়েই অনেক প্রশ্ন এসেছে। আপনি যদি সম্প্রতি কোনও করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে ঘুরে আসেন বা কোনও করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসেন তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

তবে এক্ষেত্রে কিডনি-রোগ বিশেষজ্ঞ (নেফ্রোলজিস্ট) চিকিত্সক ডঃ প্রতিম সেনগুপ্তর মত, নিজের থেকে কখনওই অ্যান্টি ম্যালেরিয়া ওষুধ খেতে যাবেন না। কারণ, এর ফলে হৃদরোগের সমস্যা বেড়ে যাওয়ার একটা আশঙ্কা থেকেই যায়। সর্দি কাশি হলে সাধারণত অ্যাজিথ্রোমাইসিন ব্যবহার করা হয়। আর আপনি যদি অ্যান্টি ম্যালেরিয়া ওষুধ ও অ্যাজিথ্রোমাইসিন একসঙ্গে ব্যবহার করেন তাহলে এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য মারত্মক বিপদজনক হতে পারে! বিশেষ করে বয়স্কদের জন্য।

এ ক্ষেত্রে ডঃ সেনগুপ্তর পরামর্শ হল, প্রয়োজন হলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে প্রতিদিন মাল্টিভিটামিন ওষুধ খেতে পারেন। এছাড়াও নিয়মিত সাইট্রাস জাতিয় ফল (লেবু, আমলকী) বেশি করে খান যা আপনার স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। ডঃ সেনগুপ্ত জানান, কিছু নিয়ম ঠিক মতো মেনে চলতে পারলে দূরে থাকতে পারেন এই ভাইরাস থেকে। আসুন সেগুলি সম্পর্কে সবিস্তারে জেনে নেওয়া যাক...

লক ডাউনে বা হোম কোয়ারেন্টাইনে কী ভাবে নিজেকে সুস্থ রাখবেন? জেনে নিন এ বিষয়ে ঠিক কী বলছেন বিশেষজ্ঞ চিকিত্সক ডঃ প্রতিম সেনগুপ্ত...

COVID-19

১) নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। যেহেতু এখন আপনি বাড়ির বাইরে বেরোতে পারছেন না, তাই বাড়িতেই সকাল-সন্ধ্যা নির্দিষ্ট সময় মেনে শরীরচর্চা করুন। এছাড়াও সকাল সন্ধ্যায় চা খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করার চেষ্টা করুন।

২) প্রতিদিন ১-২ ঘণ্টা ধ্যান বা মনের ব্যায়াম করুন।

৩) দিনে ১ ঘণ্টার বেশি সোশ্যাল মিডিয়ায় সময় না দেওয়ার চেষ্টা করুন।

৪) ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম ১ ঘণ্টার বেশি ব্যবহারের অভ্যাস ত্যাগ করার চেষ্টা করুন।

৫) টিভিতে বেশিক্ষণ করোনা সম্পর্কিত কোনও খবর দেখবেন না। খুব বেশি হলে ২০-৩০ মিনিট দেখুন।

আরও পড়ুন: জানেন কাচের গ্লাস, থালা-বাসনে কতক্ষণ সজীব থাকে করোনাভাইরাস?

৬) দিনে অন্তত ২ থেকে ৩ ঘণ্টা সৃজনশীল কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকার চেষ্টা করুন। যেমন, কবিতা লেখা, গল্প লেখা, ছবি আঁকা, গান গাওয়া ইত্যাদি।

৭) টিভিতে বার বার একই খবর না দেখে গল্প বা উপন্যাস পড়ুন।

৮) ঘুমাতে যাওয়ার আগে ফোনের, সম্ভব হলে বাড়ির ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট কানেকশন বন্ধ করে দেবেন। কারণ, সঠিক পরিমাণে ঘুম হচ্ছে সব রোগেরই প্রতিষেধক। তাই ঘুমের আগে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকুন।

৯) নিয়মিত নিজের হাত ভাল করে ধুতে ভুলবেন না।

১০) নিজের প্রতিদিনের কাজ করার সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের সদস্যদেরও কাজে সহায়তা করুন।