করোনায় আর্থিক ক্ষতি থেকে রাজ্যকে টেনে তুলতে নোবেলজয়ীর নেতৃত্বে গ্লোবাল বোর্ড : মুখ্যমন্ত্রী

একসময় ম্যালেরিয়া-ডেঙ্গিতেও অনেকে আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই সংখ্যা লাখ থেকে ধীরে ধীরে কমতে কমতে ৫০ নেমেছে।

Reported By: অঞ্জন রায় | Updated By: Apr 6, 2020, 06:50 PM IST
করোনায় আর্থিক ক্ষতি থেকে রাজ্যকে টেনে তুলতে নোবেলজয়ীর নেতৃত্বে গ্লোবাল বোর্ড : মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন :  করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের পাশে দাঁড়ায়নি, রাজ্যকে প্রয়োজনীয় সাহায্য দেয়নি বলে এদিন সাংবাদিক বৈঠকে ফের অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি বলেন, রাজ্য সরকার এখনও পর্যন্ত ১১ লাখ PPEঅর্ডার দিয়েছে। তারমধ্যে ২ লাখ ৬০ হাজার ১০০ হাতে এসেছে। বাকি ৮ লাখ হাতে পেতে বাকি। এদিকে কেন্দ্র এতদিনে মাত্র ৩ হাজার PPE পাঠিয়েছে। কেন্দ্রের পাঠানো সেই PPE-গুলি আবার 'বিশেষ' হলুদ রঙের বলেও তোপ দাগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আরও জানান, কেন্দ্র  n95 মাস্ক দিয়েছে মাত্র ১০ হাজার। সেখানে রাজ্য সরকার ৭ লাখ ৯২ হাজার অর্ডার দিয়েছে। তারমধ্যে এখনও পর্যন্ত ৭৮ হাজার ৭৫০ হাতে এসেছে। রাজ্যের তরফে ২০ হাজার থার্মাল গান অর্ডার দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যে ম্যালেরিয়া ও ডেঙ্গির প্রকোপের পূর্ব পরিসংখ্যান তুলে ধরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, একসময় ম্যালেরিয়া-ডেঙ্গিতেও অনেকে আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই সংখ্যা লাখ থেকে ধীরে ধীরে কমতে কমতে ৫০ নেমেছে। তাই করোনা নিয়েও উদ্বেগের কোনও কারণ নেই। একইসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, করোনা পরিস্থিতি থেকে রাজ্য়ের অর্থনীতিকে পুনরায় চাঙ্গা করতে 'গ্লোবাল অ্যাডভাইসরি বোর্ড ফর কোভিড রেসপন্স পলিসি ইন ওয়েস্ট বেঙ্গল' তৈরি করা হচ্ছে। রাজ্যের অর্থনীতির হাল ফেরাতে মুখ্যমন্ত্রীকে সাহায্য করবে এই বোর্ড। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই কমিটি গঠন করা হবে। বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা কৃতী বাঙালিদের আহ্বান জানানো হবে এই বোর্ডে যোগদানের জন্য। বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে কো-অর্ডিনেট করবেন ড. অভিজিৎ চৌধুরী ও ড. সুকুমার মুখোপাধ্যায়।

পাশাপাশি, নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এদিন মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানান, কেন্দ্রীয় সরকার চা বাগান খোলার কথা বললেও এখনই তা সম্ভব নয়। তাঁর কথায়, পরিস্থিতি এখনও অনুকূল নয়। তাই চা বাগান খোলা সম্ভব হচ্ছে না। তবে করোনা মোকাবিলায় কিট ও সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ করলেও, ৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতিনিধি থাকবেন বলে জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে কেন্দ্রের নির্দেশমতো ডাউন মেনে চলার জন্য রাজ্যবাসীকে আহ্বান জানান তিনি।

আরও পড়ুন, 'ফেক নিউজ ছড়াচ্ছে আইটি সেল... রাজ্যে করোনা আক্রান্ত ৬১, মৃত ৩'