গণতন্ত্র বাঁচাতে এসেছেন অথচ হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট ও কমিশনে আস্থা নেই রাজ ঠাকরের

বুধবার নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন রাজ ঠাকরে। 

Updated By: Jul 31, 2019, 10:41 PM IST
গণতন্ত্র বাঁচাতে এসেছেন অথচ হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট ও কমিশনে আস্থা নেই রাজ ঠাকরের

নিজস্ব প্রতিবেদন: গণতন্ত্র বাঁচাতে চাইছেন। অথচ তাঁর আস্থা নেই দেশের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলির উপরে। নবান্নে এসে সাংবাদিকদের সামনে সেটাই স্পষ্ট করে দিয়ে গেলেন মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার রাজ ঠাকরে। 

বুধবার নবান্নে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন রাজ ঠাকরে। মমতার মতো রাজও ইভিএমে কারচুপির অভিযোগ করে আসছেন। ব্যালট ফেরানোর দাবিতে মুম্বইয়ে সভাও করতে চলেছেন এমএনএস প্রধান। ওই সভায় আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মমতাকে। ইভিএম বাতিলের দাবিতে কি আদালতের শরণাপন্ন হবেন? আইনি ব্যবস্থায় তাঁর ভরসা নেই, সেটা স্পষ্ট করে দেন রাজ ঠাকরে। বলেন, 'হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট ও নির্বাচন কমিশনের কাছ থেকে আমার কোনও প্রত্যাশা নেই'। প্রশ্ন উঠছে, ব্যালট তাহলে ফেরাবেন কীভাবে? 

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা প্রসঙ্গে রাজের বক্তব্য, 'ইভিএম নিয়ে ওনার সঙ্গে কথা বলতে এসেছিলাম। মুম্বইয়ের সভায় ওনাকে আমন্ত্রণ করেছি। উনি বলেছেন, তাঁর দল গণতন্ত্র বাঁচাতে বদ্ধপরিকর। আমার আশ্বাস দিয়েছেন, ম্যাঁ হু, অ্যায়সা সমঝ লেনা'।  

বৈঠকের পর তৃণমূল নেত্রী বলেন,'ওরা গনতন্ত্র বাঁচানোর চেষ্টা করছে। একটা মোর্চাও তৈরি করছে। ব্যালটে ভোট ওরাও চাইছে। ভোটের আগে  ২৩টি দলে নির্বাচন কমিশনের কাছে গিয়েছিলাম। ওরা এখন ঘোড়া কেনাবেচা করছে। বন্ধ করে দিচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলিকে'। মমতা-রাজ বৈঠক প্রসঙ্গে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি শিবরাজ সিং চৌহান কটাক্ষ করেন, দুজনেই ব্যর্থ। একত্রিত হয়ে হারের বাহানা খুঁজছেন।       

আরও পড়ুন- লজ্জা! বাংলার নবজাগরণের পুরোধা রামমোহনের বাড়িতে চুরি, প্রশ্নের মুখে প্রশাসন