কু কথার দু মুখ দেখে চাপা হাসাহাসি

একজন তাপস পাল। অন্যজন অনুব্রত মণ্ডল। এদের যোগাযোগটা ঠিক কোথায় সেটা আর আলাদা করে বলার প্রয়োজন নেই। একজন বলেছিলেন, ছেলে ঢুকিয়ে রেপ করে দেব। আর একজন বলছিলেন পুলিসকে বোমা মারো। দুটো কথাই একেবারে কুখ্যাতির শীর্ষে উঠেছিল। সেই দুজনই আজ হাজির ছিলেন শহীদ দিবসে। দুজনের উপস্থিতিতে আজ ঠিক কী হল সেটাই দেখে নেওয়া যাক-

Updated By: Jul 22, 2015, 09:17 AM IST
কু কথার দু মুখ দেখে চাপা হাসাহাসি

ওয়েব ডেস্ক: একজন তাপস পাল। অন্যজন অনুব্রত মণ্ডল। এদের যোগাযোগটা ঠিক কোথায় সেটা আর আলাদা করে বলার প্রয়োজন নেই। একজন বলেছিলেন, ছেলে ঢুকিয়ে রেপ করে দেব। আর একজন বলছিলেন পুলিসকে বোমা মারো। দুটো কথাই একেবারে কুখ্যাতির শীর্ষে উঠেছিল। সেই দুজনই আজ হাজির ছিলেন শহীদ দিবসে। দুজনের উপস্থিতিতে আজ ঠিক কী হল সেটাই দেখে নেওয়া যাক-

তাপস পাল- এমনিতে তিনি অভিনেতা। আর পাঁচজনের চেয়ে আলাদা হয়ে সেলেব্রিটি। তাই তাঁকে নিয়ে তো জনতার মধ্যে আলাদা উত্‍সাহ থাকবেই। কিন্তু সেই উত্‍সাহের থার্মোমিটারে একটু আলাদা খাতে বইল তৃণমূলের শহীদ দিবসের সভামঞ্চে তাপস পালের উপস্থিতি। নদিয়া চৌমাহায় দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে বিরোধী দলের হুমকি দিয়ে বলেছিলেন, ঘরে ছেলে ঢুকিয়ে রেপ করে দেব। তাপসের এ হেন হুমকিতে গোটা দেশে ধিক্কার পড়ে গিয়েছিল।

তারপর থেকে নিজেকে অনেকটা গুঁটিয়েই নিয়েছিলেন টলিউডের 'সাহেব'। কিন্তু আজ শহীদ দিবসের মঞ্চে একেবারে অন্য মেজাজে তাপস পাল। মঞ্চে উঠে দিদির পাশে দেখা গেল, কখনও বসলেন সামনের সারিতে। বডি ল্যাঙ্গুয়েজেই প্রমাণ দাদার কীর্তির নায়ক নিজের কীর্তি ভুলে আবার স্বমহিমায় ফিরতে চাইছেন। কিন্তু তাপসের সেই হুমকির কথা কী ভুলে গিয়েছেন তৃণমূলের নিচুতলার কর্মীরা? মঞ্চে উঠে যখন তাপস স্বাভাবিক হওয়ার চেষ্টায়। তখন মঞ্চের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা কর্মীদের মুখে চাপা হাসি। বোঝা যাচ্ছে এই হাসির মানেটা ঠিক কী।

অনুব্রত মণ্ডল- তিনি হলেন বীরভূমের বেতাজ বাদশা। দিদির কাছে তিনি আদরের কেষ্ট। সেই বেতাজ বাদশা আজ শহীদ দিবসের সমাবেশ এলেন একেবারে স্বমহিমায়। মঞ্চের নিচে দাঁড়িয়ে থেকে ভিড় সামলানোর দায়িত্ব দিলেন। ছোটখাটো দু একটা নির্দেশও দিলেন। জেলায় নেতাদের দেখলেই কাছে ডেকে কিছু একটা বললেন। তবে যাঁরা তার জেলার নন, কিংবা শুধু তার কীর্তি দেখেই একডাকে চেনেন, তাঁরা কিন্তু অনুব্রতকে দেখেই একেবারে সেলেব দৃষ্টি দিলেন। মঞ্চের কিছুটা পিছনে দাঁডি়য়ে থাকা এক মহিলা তাঁর ছেলেকে বললেন, ওই দেখ সেই লোকটা। ছেলে পাল্টা তার মায়েকে বলল, ওই যে বলছিল পুলিসকে বোমা মারতে।