সরকারি টাকায় বিধায়কদের গাড়ি! বিতর্কে অখিলেশ

ক্ষমতা বদলেও নেই খরচের উলটপুরাণ! পূর্বতন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর জমানায় বারেবারেই সরকারি টাকার নয়ছয় নিয়ে সোচ্চার হয়েছে সমাজবাদী পার্টি। বহেনজির আর হাতির (বহুজন সমাজ পার্টির নির্বাচনী প্রতীক) পিঙ্ক স্যান্ড স্টোনের মূর্তি লক্ষ্য করে ছুঁড়ে দেওয়া হয়েছে জনগণের অর্থ অপব্যবহার অভিযোগ।

Updated By: Jul 3, 2012, 05:17 PM IST

ক্ষমতা বদলেও নেই খরচের উলটপুরাণ! পূর্বতন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর জমানায় বারেবারেই সরকারি টাকার নয়ছয় নিয়ে সোচ্চার হয়েছে সমাজবাদী পার্টি। বহেনজির আর হাতির (বহুজন সমাজ পার্টির নির্বাচনী প্রতীক) পিঙ্ক স্যান্ড স্টোনের মূর্তি লক্ষ্য করে ছুঁড়ে দেওয়া হয়েছে জনগণের অর্থ অপব্যবহার অভিযোগ। পাঁচ বছর পর লখনউয়ের মসনদে ফিরে কিন্তু একই পথের যাত্রী হল মুলায়মের দল। মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব রাজ্যের প্রত্যেক বিধায়ককে সরকারি অর্থে গাড়ি কেনার সুযোগ দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন।
এদিন রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর মুলায়ম-পুত্র অখিলেশ জানিয়েছেন, বিধায়কদের স্ব স্ব এলাকায় উন্নয়নের কাজ তদরকির জন্য `এলাকা উন্নয়ন তহবিল` বা `বিধায়ক নিধি` থেকে ১টি করে গাড়ি কেনার টাকা মঞ্জুর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকা মূল্যের গাড়ি কিনতে পারবেন বিধায়করা। রাজ্যের ৪০৩ জন বিধায়কের জন্য আনুমানিক খরচ হবে প্রায় ৮০ কোটি টাকা। শুধু তাই নয় বিধায়কদের গাড়ি কেনার খরচ যোগাতে গিয়ে যাতে উন্নয়নে ভাটা না পড়ে, সেদিকে লক্ষ্য রেখে বিধায়ক-পিছু এলাকা উন্নয়ন তহবিল-এর পরিমাণ ১ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা থেকে বাড়িয়ে দেড় কোটি টাকা করারও ঘোষণা করেন অখিলেশ।
চলতি বছরের মার্চ মাসে বিধানসভা ভোটে পালাবদলের পরই নবগঠিত সমাজবাদী পার্টির সরকারের তরফে তীব্র অর্থসঙ্কটের কথা বলা হয়েছিল। মায়াবতী সরকারের জমানায় সরকারি অর্থের অপব্যবহারের কারণে রাজকোষ শূন্য হয়ে পড়েছে বলেও অভিযোগ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ। সঙ্গত কারণেই মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার চার মাসের মাথাতেই তাঁর এই সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা। বিজেপি`র পরিষদীয় নেতা হুকুম সিং এবং বহুজন সমাজ পার্টির রাজ্য সভাপতি স্বামীপ্রসাদ মৌর্য জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁদের দলের বিধায়করা `বিধায়ক নিধি`-র অর্থে নিজেদের ব্যবহারের জন্য গাড়ি কিনবেন না।