close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

রেড কর্নার নোটিসেও কি ফেরানো যাবে মেহুলকে, সংশয়ে সিবিআই

পিটিআই জানাচ্ছে, অনেক বেশি আটঘাঁট বেঁধে দেশত্যাগের পরিকল্পনা করেছিল মেহুল চোকসি। বরং এ ক্ষেত্রে তার ভাগ্নে নীরব মোদী খানিকটা 'কাঁচা কাজ' করেছে।

Updated: Sep 7, 2018, 06:00 PM IST
রেড কর্নার নোটিসেও কি ফেরানো যাবে মেহুলকে, সংশয়ে সিবিআই

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইন্টারপোলের নোটিস থাকা সত্ত্বেও পিএনবি-কাণ্ডে অন্যতম দোষী মেহুল চোকসিকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সমস্যা হবে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই। অথচ ১৩ ,৫০০ কোটি টাকার দুর্নীতিতে যুক্ত এই পলাতক ব্যবসায়ীকে দেশে ফেরাতে বদ্ধপরিকর সিবিআই। এক সিবিআই কর্তাকে উদ্ধৃত করে সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানাচ্ছে, অনেক বেশি আটঘাঁট বেঁধে দেশত্যাগের পরিকল্পনা করেছিল মেহুল চোকসি। বরং এ ক্ষেত্রে তার ভাগ্নে নীরব মোদী খানিকটা 'কাঁচা কাজ' করেছে।

মেহুলের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে 'রেড কর্নার নোটিস'-এর আবেদন করার পাশাপাশি তাকে দেশে ফেরানোর জন্য অতি সচেষ্ট হয়েছে সিবিআই। এছাড়া তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া অভিযোগকে 'রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত' বলে যে দাবি মেহুল করেছে, তাও কড়া ভাষায় খণ্ডন করেছে সিবিআই। উল্লেখ্য, সিবিআই চোকসির বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিসের আবেদন করলেও চোকসির অভিযোগের কারণে ইন্টারপোল এখনও পর্যন্ত তা অনুমোদন করেনি। ইন্টারপোলের কাছে মেহুল চোকসি অভিযোগ করে যে তার বিরুদ্ধে যাবতীয় মামলা আসলে 'রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র'। পাশাপাশি, ভারতের জেলগুলির স্বাস্থ্য নিয়েও প্রশ্ন তোলে সে। এমন জেলে রাখা হলে তার ক্ষতি হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করে চোকসি। এরপরই কড়া ভাষায় এর জবাব দেয় সিবিআই। ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাটি জানিয়ে দেয়, চোকসির দাবি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। বরং, জাল নথির মাধ্যমে পঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্কের থেকে ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি টাকা লোপাটের সম্ভাব্য মূলচক্রীই সে।
আপাতত চোকসির বিরুদ্ধে 'রেড কর্নার' নোটিস জারি করার সিদ্ধান্তটি ৫ সদস্যের 'কমিশন ফর কন্ট্রোল অফ ফাইলস'-এর বিবেচনাধীন। আগামী মাসে উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে তারা।

নীরব-মেহুলের পলায়ন কোথায় আলাদা?

'ভাগ্নে' নীরব মোদী বর্তমানে ইংল্যাণ্ডে। চলতি বছর ১লা জানুয়ারিতেই সে ভারত ছেড়ে পালিয়েছে। তার বর্তমান অবস্থান চিহ্নিত হওয়ার পরই তার বিরুদ্ধে 'রেড কর্নার' নোটিস জারি করা হয়েছে। কিন্তু অন্যদিকে, 'মামা' মেহুল আগাম ভাবনা চিন্তা করেই পালানোর ছক কষেছে। সে গত বছরই আন্টিগুয়া এবং বারবুদার নাগরিকত্ব নিয়েছে। এমনকী চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি সে আন্টিগুয়ার প্রতি আনুগত্য মেনে চলার শপথও (সে দেশের জাতীয়তাবাদে দিক্ষীত হওয়ার অঙ্গ) নিয়েছে। ফলে, এই মুহূর্তে চোকসি আন্টিগুয়ার আইন দ্বারা পরিচালিত হতে পারবে। এ জন্যই তার বিরুদ্ধে 'রেড কর্নার' নোটিস জারি করা কঠিন।