মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন; হায়দরাবাদে রহস্যমৃত্যু ইসরোর বিজ্ঞানীর, ফ্ল্যাটেই মিলল দেহ

ন্যাশানাল রিমোট সেন্সিং ইউনিটে কাজ করতেন সুরেশ । গত ২০ বছর ধরে ছিলেন হায়দরাবাদে

Updated By: Oct 2, 2019, 07:26 AM IST
মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন; হায়দরাবাদে রহস্যমৃত্যু ইসরোর বিজ্ঞানীর, ফ্ল্যাটেই মিলল দেহ

নিজস্ব প্রতিবেদন: হায়দরাবাদে রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হল ইসরোর এক বিজ্ঞানীর। মঙ্গলবার শহরের আমিরপেট এলাকার একটি ফ্ল্যাট থেকে এস সুরেশ(৫৬) নামে ওই বরিষ্ঠ বিজ্ঞানীর দেহ উদ্ধার করে পুলিস। সুরেশ কাজ করতেন ন্যাশানাল রিমোট সেন্সিং ইউনিটে। গত ২০ বছর ধরে ছিলেন হায়দরাবাদে।

আরও পড়ুন-আর্থিক মন্দা অথচ মাত্র ৩৬ ঘণ্টায় এত টাকার ফোন বেচে রেকর্ড অ্যামাজনের   

পুলিসের দাবি, রহস্যজনক ভাবেই মৃত্যু হয়েছে সুরেশের। আমিরপেটের অন্নপূর্ণা রেসিডেন্সিতে সুরেশের ফ্ল্যাট থেকেই উদ্ধার হয়েছে বিজ্ঞানীর মৃতদেহ। প্রাথমিকভাবে দেখা যাচ্ছে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে সুরেশের মাথায়। মনে হচ্ছে কোনও ভারী অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা হয়েছে। এক্ষেত্রে কেউ জোর করে তাঁর ফ্ল্যাটে ঢুকেছিল, নাকি আততায়ী তাঁর পূর্ব পরিচিত তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

আদতে কেরলের বাসিন্দা সুরেশ কর্মরত ছিলেন ন্যাশানাল রিমোট সেন্সিং ইউনিটে। তাঁর স্ত্রী চাকরি করেন ব্যাঙ্কে। বদলি হয়ে গিয়েছেন চেন্নাইয়ে। এক ছেলে থাকেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবং এক মেয়ে থাকেন দিল্লিতে।

আরও পড়ুন-রোড শোয়ে ভেঙেছিল মূর্তি, ৫ মাস পর অমিতের হাতে বিদ্যাসাগর  

মঙ্গলবার সকালে ফোনে সুরেশকে না পেয়ে তাঁর এক সহকর্মীকে ফোন করেন সুরেশের স্ত্রী। সেই সহকর্মীও ফোন করে সুরেশকে পাননি। এর পরেই তিনি পুলিসকে ফোন করেন।

ঘটনাস্থলে এসেছিলেন হায়দরাবাদ পুলিসের আধিকারিকরা। অ্যাপার্টমেন্ট কমপ্লেক্সের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিস।