উনি অনুপ্রাণিত করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইসরো প্রধান কে শিবন

কে শিবন এদিন বলেন,''প্রধানমন্ত্রী আমাদের অনুপ্রাণিত করেছেন। উনি পাশে আছেন।'' 

Updated By: Sep 7, 2019, 11:39 PM IST
উনি অনুপ্রাণিত করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইসরো প্রধান কে শিবন

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভেঙে পড়েছেন ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন। তাঁকে বুকে টেনে জড়িয়ে ধরে সান্ত্বনা দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গোটা দিন ধরে টিভির পর্দা থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আবেগঘন সেই ছবি। ল্যান্ডারের সঙ্গে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছিলেন, গোটা দেশ পাশে। ওঠা-পড়া লেগেই থাকে। প্রধানমন্ত্রী এমন পাশে থাকায় তাঁকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন। বললেন, প্রধানমন্ত্রীর থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছি। ওনার সমর্থন রয়েছে। 

কে শিবন এদিন বলেন,''প্রধানমন্ত্রী আমাদের অনুপ্রাণিত করেছেন। উনি পাশে আছেন।'' প্রধানমন্ত্রী ভাষণের একটা অংশ ছুঁয়ে গিয়েছে তাঁকে। শিবনের কথায়,''একটা জায়গায় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ফলের আশা নিয়ে বিজ্ঞানকে দেখা উচিত নয়। বরং পরীক্ষানিরীক্ষা চালিয়ে যাওয়া দরকার। তাতেই আসবে সুফল।''         

 

এদিন প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাতে এসে আবেগ ধরে রাখতে পারেননি ইসরো চেয়ারম্যান কে শিবন। প্রধানমন্ত্রীর সামনে কেঁদে ফেলেন। আর ঠিক তখনই অভিভাবকের মতো বুকে টেনে সান্ত্বনা দেন প্রধানমন্ত্রী।বার্তা দিলেন, কিছুই শেষ হয়নি। নতুন ভোর আসবেই। দ্বিতীয় চন্দ্রযান নিয়ে একটুও হতাশ নন প্রধানমন্ত্রী। বরং তিনি উত্সাহ দিয়েছেন ইসরোর বিজ্ঞানীদের। প্রকৃত নেতার মতো পাশে দাঁড়িয়ে নরেন্দ্র মোদী আশ্বস্ত করেছেন, আবার হবে।

বন আরও বলেন,''ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আগামী ১৪ দিনে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করব। শেষ ধাপ ঠিকঠাকভাবে সম্পন্ন হয়নি। ওই পর্বেই ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ কেটে যায়। পরে আর সংযোগ করা সম্ভব হয়নি।''

এদিন ইসরো বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, চন্দ্রযান ২ অত্যন্ত জটিল অভিযান। বিগত অভিযানের চেয়ে প্রযুক্তিগতভাবে অনেকখানি এগিয়ে। চাঁদের দক্ষিণ মেরুর অভিযানে কাজে লাগানো হয়েছিল অরবিটার, ল্যান্ডার ও রোভার। অরবিটার ক্যামেরাটি হাই রেজোলুশনের (০.৩এম)। চন্দ্র অভিযানে এর আগে কেউ এমন শক্তিশালী ক্যামেরা ব্যবহার করেনি। অরবিটারের আয়ু ১ বছরের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু সেটা পরে বাড়িয়ে করা হয়েছে ৭ বছর। ল্যান্ডার বিক্রমের অবতরণে আধুনিক প্রযুক্তি ও সেন্সরের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। অভিযানের প্রতিটি ধাপের পর্যালোচনা করেছে ইসরো। কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যের ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ সম্পূর্ণ হয়েছে।

আরও পড়ুন- কলেজে ভর্তির আগে পর্যন্ত জুতো ছিল না, কঠোর পরিশ্রমে আজ তিনিই ইসরোর প্রধান