এনডিএ-তে জোর ধাক্কা, বিহারের বাইরে একা লড়ার সিদ্ধান্ত নীতীশের

গত ৩১ মে নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী শপথ নেওয়ার পরই মনোমালিন্য তৈরি হয় জেডিইউ সুপ্রিমো নীতীশের সঙ্গে। তাঁর দলের এক জনকে মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। যেখানে জেডিইউ-র দাবি ছিল ২ মন্ত্রীর

Updated By: Jun 9, 2019, 04:15 PM IST
এনডিএ-তে জোর ধাক্কা, বিহারের বাইরে একা লড়ার সিদ্ধান্ত নীতীশের
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: ফাটল অব্যাহত। রবিবার, জেডিইউ-র জাতীয় কার্যনির্বাহী সমিতির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় বিহারের বাইরে নির্বাচনে একাই লড়বে দল। বৈঠকের শেষে সরকারিভাবে জেডিইউ-র তরফে জানানো হয়, আসন্ন দিল্লি, হরিয়ানা, ঝড়খণ্ড, জম্মু ও কাশ্মীরের নির্বাচনে এনডিএ- শরিক হিসাবে লড়বে না দল।

গত ৩১ মে নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী শপথ নেওয়ার পরই মনোমালিন্য তৈরি হয় জেডিইউ সুপ্রিমো নীতীশের সঙ্গে। তাঁর দলের এক জনকে মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। যেখানে জেডিইউ-র দাবি ছিল ২ মন্ত্রীর। এরপরই জেডিইউ-র তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, আগামী দিনে মোদীর ক্যাবিনেটে তাদের কেউ থাকবে না। যদিও, তারা এই মুহূর্তে এনডিএ থেকে সরে আসছে না বলেও জানিয়ে দেয় জেডিইউ।

আরও পড়ুন- রাহুলের জন্মের ‘সাক্ষী’ কেরলের এই নার্স, খুশিতে জড়িয়ে ধরলেন কংগ্রেস সভাপতি

এর পর, নীতীশ কুমার দ্বিতীয় চমক দেন নিজের ক্যাবিনেট সম্প্রসারণ করে। নয়া ৮ মন্ত্রী নিজের ক্যাবিনেটে যুক্ত করেন কিন্তু সবাই জেডিইউ-র। বিশেষজ্ঞদের দাবি, মোদীর ক্যাবিনেটে জেডিইউ-র কেউ না থাকায় এই সিদ্ধান্তে নীতীশ তাঁর অভিমান স্পষ্ট বুঝিয়ে দেন। ইতিহাসের পাতা ওলটালেই দেখা যায়, নীতীশ কুমারের দল পরিবর্তনের একাধিক নজির রয়েছে। বিহারের বাইরে জেডিইউ-র একা লড়ার সিদ্ধান্ত আরও জল্পনা উস্কে দিল বলে মনে করছেন তাঁরা।