পানামা কেলেঙ্কারিতে ছেলে জড়িত থাকার অভিযোগে রমনকে বিঁধলেন রাহুল

ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপে ছত্তিসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের ছেলের বেনামে সম্পত্তি রয়েছে বলে অভিযোগ।

Updated: Aug 10, 2018, 09:45 PM IST
পানামা কেলেঙ্কারিতে ছেলে জড়িত থাকার অভিযোগে রমনকে বিঁধলেন রাহুল

নিজস্ব প্রতিবেদন: পানামা কেলেঙ্কারিতে ছত্তিসগঢ়ের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীর ছেলের যোগের অভিযোগ তুলে ভোটের দামামা বাজালেন রাহুল গান্ধী। শুক্রবার রায়পুরে কংগ্রেস সভাপতি বলেন, ''পানামা কেলেঙ্কারিতে জেলে যেতে হয়েছে পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে। অথচ একই অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও অভিষেক সিংয়ের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি''।

ছত্তিসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের ছেলের সম্পত্তি ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপে রয়েছে বলে অভিযোগ। এনিয়ে তদন্তের জন্য সরকারের কাছে দাবি করেছে বিরোধীরা। তবে কোনও তদন্ত শুরু হয়নি। 

চলতি বছরের শেষের দিকে ছত্তিসগঢ়ে নির্বাচন। শুক্রবার  থেকে সে রাজ্যে কংগ্রেস সভাপতির প্রচারের ঢাকে কাঠি পড়ল। আর শুরুতেই দুর্নীতি অস্ত্রে বিজেপিকে কোণঠাসা করার কৌশল নিলেন রাহুল গান্ধী। বলেন, ''ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপে ছত্তিসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের ছেলের বেনামে সম্পত্তি রয়েছে বলে অভিযোগ। ছত্তিসগঢ়ে মুখ্যমন্ত্রীর ছেলের নাম রয়েছে পানামা পেপারে। অথচ তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুই হয়নি। এটাই এনডিএ-র চৌকিদারি''। 

কংগ্রেস তাঁর বিরুদ্ধে পানামা কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগ করলেও তা উড়িয়ে দিয়েছেন অভিষেক সিং। তাঁর কথায়, ''এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত''। 

রাফাল বিমান চুক্তির প্রসঙ্গ টেনে কংগ্রেস সভাপতি বলেন, ''নিজের বন্ধুকে রাফাল চুক্তি পাইয়ে দিয়েছেন মোদী।'' অনাস্থা বিতর্কে লোকসভায় রাহুল গান্ধী দাবি করেন, রাফাল বিমান চুক্তিতে বিমানের দাম গোপন রাখার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়নি বলে তাঁকে জানিয়েছেন খোদ ফরাসী প্রেসিডেন্ট। এদিনও ফের সে কথা উল্লেখ করেন কংগ্রেস সভাপতি। উল্লেখ্য, রাহুলের ভাষণের ঘণ্টাখানেক পরই ফ্রান্সের ইউরোপ ও বিদেশ বিষয়ক মন্ত্রক বিবৃতি দিয়ে জানায়,'২০০৮ সালে নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষর করে ফ্রান্স ও ভারত। তার জেরে আইনত তথ্য সুরক্ষিত রাখতে বদ্ধপরিকর দুই অংশীদার দেশ। তথ্য প্রকাশ্যে আসলে ভারত অথবা ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা সামগ্রীর ব্যবহারিক দক্ষতা ও নিরাপত্তার উপরে প্রভাব পড়তে পারে। ২০১৬ সালে ২৩ সেপ্টেম্বরে ২৬ রাফাল বিমান কেনার চুক্তিতেও স্বাভাবিকভাবেই এই শর্ত রয়েছে।'

ফরাসী সরকারের বিবৃতির পরও নিজের বক্তব্যে অনড় রাহুল গান্ধী। তাঁর প্রতিক্রিয়া, ''ওরা এখন অস্বীকার করছে। মাঁকর যখন একথা বলেছেনস তখন আনন্দ শর্মা ও মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে আমিও ছিলাম।'' 

রাহুলের বক্তব্যকে খারিজ করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন বলেন, ''চুক্তিতে গোপনীয়তার শর্তটি সম্বন্ধে অবগত কংগ্রেস। ওদের সরকারই চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী একে অ্যান্টনি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন।''   

আরও পড়ুন- স্বামী মুসলিম হওয়ায় স্ত্রীর শ্রাদ্ধের অনুমতি দিল না দিল্লির কালী মন্দির