close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

৩৮-৩৮ আসনে লড়বেন মায়াবতী-অখিলেশ, কংগ্রেসকে ‘গিফট’ অমেঠি-রায়বেরিলি

কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না করেই অমেঠি ও রায়বেরিলি কেন্দ্র  রাহুলদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। 

Updated: Jan 12, 2019, 02:40 PM IST
৩৮-৩৮ আসনে লড়বেন মায়াবতী-অখিলেশ,  কংগ্রেসকে ‘গিফট’ অমেঠি-রায়বেরিলি
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: পঁচিশ বছর পর জোট করছে সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজ পার্টি। নজিরবিহীনভাবে কংগ্রেস-বিজেপিকে এক সারিতে রেখে কার্যত পুরো আসনেই লড়ছেন অখিলেশ যাদব ও মায়াবতী।  আজ সাংবাদিক বৈঠকে মায়াবতী চাঁচাছোলা ভাষায় জানিয়ে দেন, ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে লাভ নেই তাদের। সমান আসনে লড়বে সপা-বসপা। মায়াবতী বলেন, দু’দলই ৩৮টি করে আসনে লড়বে। কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না করেই অমেঠি ও রায়বেরিলি কেন্দ্র  রাহুলদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। ওই দুটি কেন্দ্র ছাড়া কংগ্রেসের যে গতি নেই, সেটাও আবভাবে বুঝিয়ে দেন মায়াবতী। বাকি দুটি অন্যান্যদের জন্য রাখা হয়েছে। তবে, ওই দুটি আসনের একটি কংগ্রেসকে দেওয়া হবে কি-না তা জল্পনার মধ্যেই রেখে দিলেন মায়াবতী।

আরও পড়ুন- শুধুমাত্র চা খেয়েই কাটিয়ে দিলেন ৩০ বছর, দিব্যি রয়েছেন ছত্তীসগড়ের ‘চায়ে ওয়ালি চাচি’

এ দিন গোটা সাংবাদিক বৈঠকে টুঁ শব্দটি করেননি সপা সুপ্রিমো অখিলেশ যাদব। মায়াবতী উল্লেখ করেন, বিজেপি কংবা কংগ্রেসের জমানায় যখনই রাজ্যে বিপর্যয় নেমে এসেছে, হাতে হাত মিলিয়ে লড়াই করেছে সপ-বসপা। নব্বইয়ের শুরুতে বিজেপির সাম্প্রদায়িক রাজনীতির প্রসঙ্গ তুলে মায়াবতী বলেন বিজেপিকে রুখতে সে সময় সপা-বসপা জোট করেছে। ১৯৯৫-তে লখনউ গ্যাস কাণ্ডের জেরেও হাত মিলিয়েছে দুই দল। পাশাপাশি, ১৯৯৩ সালের কাঁসিরাম-মুলায়ম জোটেরও উল্লেখ করেন মায়াবতী। অর্থাত্ মায়াবতী বুঝিয়ে দিলেন, যখনই দেশ এবং রাজ্যে অরাজনৈতিকতার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তখনই জোট করেছে সপা-বসপা। এখন তো উত্তরপ্রদেশে অঘোষিত জরুরী অবস্থা চলছে দাবি করেন বহেনজি।

কংগ্রেস যেখানে মহাজোট নিয়ে প্রতিদিন সওয়াল করছে, সেখানে উল্লেখযোগ্য ভাবে কংগ্রেসকেই প্রত্যাখ্যান করল সপা-বসপা জোট। মায়াবতী এ দিন বলেন, স্বাধীনতার পর অনেকটা সময়ই উত্তর প্রদেশের সরকারে ছিল কংগ্রেস। কিন্তু গরিব, কৃষক, শ্রমিক, ব্যবসায়ীদের জন্য কোনও উন্নয়ন করেনি তারা। মোদী জমানায় একই দৃষ্টান্ত লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বফোর্স দুর্নীতে যেমন কংগ্রেস সরকার পড়ে গিয়েছিল, রাফাল দুর্নীতে একই দশা হবে মোদী সরকারের। এ দিন মায়াবতী, কংগ্রেসকে আপাদমস্তক দুর্নীর্তিগ্রস্ত বলে দাবি করেন।

আরও পড়ুন- জাতীয় যুব দিবসে স্মরণে স্বামী বিবেকানন্দ

ভোটের সমীকরণেও কংগ্রেস সঙ্গে জোট গেলে তারা যে কোনও লাভবান হবে এ কথা জানিয়ে দিলেন মায়াবতী। তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশে উপনির্বাচনে কংগ্রেসের জমানত জব্দ হয়েছে। বিধানসভায় কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে অখিলেশ যাদব তার সিংহাসন খুইয়েছেন। এমনকি কংগ্রেসের সঙ্গে জোটে তাঁর অভিজ্ঞতা যে তিক্ত, যে কথাও ব্যক্ত করলেন মায়াবতী। তবে, উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলি এবং অমেঠি কেন্দ্রের সঙ্গে কংগ্রেসের আবেগ জড়িয়ে রয়েছে বলে, সেই দুটো কেন্দ্র রাহুল গান্ধীদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হয়। এই দুই কেন্দ্রে কংগ্রেসের সঙ্গে কোনও জোটে আসবে না বলে স্পষ্ট করেন মায়াবতী। এ দিন পুরো সাংবাদিক বৈঠকে কোনও রা না কেটে মুখর বুয়ার বক্তৃতায় শুধুই ঘাড় নাড়তে দেখা গেল বাবুয়াকে।