নেট নিরপেক্ষতায় নতুন নীতিতে অনুমোদন টেলিকম কমিশনের

ইন্টারনেটে কোনও বিষয়বস্তকে বন্ধ বা কণ্ঠরোধ করা যাবে না। 

Updated: Jul 11, 2018, 11:37 PM IST
নেট নিরপেক্ষতায় নতুন নীতিতে অনুমোদন টেলিকম কমিশনের

নিজস্ব প্রতিবেদন: নেট নিরপেক্ষতা নিয়ে বুধবার আরও এক ধাপ এগোল ভারত। ইন্টারনেটের বিষয়বস্তুর উপরে কোনওরকম বৈষম্য করতে পারবে না পরিষেবাপ্রদানকারী সংস্থাগুলি। এদিন এমন নতুন নিয়মাবলীকে অনুমোদন দিল টেলিকম কমিশন। ফলে ইন্টারনেটে কোনও বিষয়বস্তকে বন্ধ বা কণ্ঠরোধ করা যাবে না। তবে কয়েকটি ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। নতুন নিয়মের আওতা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে কঠিন অস্ত্রোপচার ও স্বয়ংক্রিয় গাড়িকে।     

টেলিকম কমিশনের চেয়ারম্যান অরুণা সুন্দারাজন জানিয়েছেন, ট্রাইয়ের প্রস্তাব মেনে নেট নিরপেক্ষতাকে অনুমোদন দিয়েছে টেলিকম কমিশন। ট্রাই সুপারিশ সুপারিশ করেছিল, ইন্টারনেটে বৈষম্য আনতে পারে এমন কোনও চুক্তি থেকে বিরত থাকতে হবে পরিষেবাপ্রদানকারীদের। নেট নিরপেক্ষতার উপরে নজরজারির জন্য একটি কমিটি গঠন করবে ডিপার্টমেন্ট অব টেলিকম (ডট)। তাতে সরকারি প্রতিনিধিরাও থাকবেন। আপত্কালীন পরিষেবায় ট্রাফিক ম্যানেজমেন্টের জন্য ট্রাইয়ের কাছে সুপারিশ করবে ডট।          

নতুন নিয়মে ইন্টারনেটের কোনও বিষয়বস্তুর উপরে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না মোবাইল পরিষেবাপ্রদানকারী সংস্থা, ইন্টারনেটপ্রদানকারী বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সংস্থাগুলি। ওয়েবসাইট বা অ্যাপে কোনও বিষয়বস্তু নিষিদ্ধ বা কণ্ঠরোধ করা যাবে না। অথবা গুরুত্বও দেওয়া যাবে না।

টেলিকম কমিশন এদিন নতুন টেলিকম নীতি- জাতীয় ডিজিটাল যোগাযোগ নীতির অনুমোদনও করেছে। এর ফলে ২০২২ সালের মধ্যে আসতে পারে ৬.৫ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগ। ৪০ লক্ষ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হতে পারে। অরুণা সুন্দারাজনের কথায়, ''সাধারণ পরিকাঠামোর চেয়ে  ডিজিটাল পরিকাঠামোকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া দরকার বলে বৈঠকে সকল সদস্যই সহমত পোষণ করেছেন। নীতি আয়োগের সিইও (অমিতাভ কান্ত) বলেছেন, জেলায় জেলায় ডিজিটাল পরিকাঠানো নিশ্চিত করতে হবে। এতে ভারত ব্যবসা বান্ধব হয়ে উঠবে।''

টেলিকম কমিশনের বৈঠকে থাকা এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, দেশের প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে ১২.৫ লক্ষ ওয়াইফাই হটস্পট বসানোর প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে টেলিকম কমিশন। লক্ষ্যমাত্র নেওয়া হয়েছে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর। এজন্য খরচ হবে প্রায় ৬০০০ কোটি টাকা। পুলিস স্টেশন, পোস্ট অফিস, প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সঙ্গে যোগ করা হবে ওয়াইফাই পরিষেবা। সাধারণের ব্যবহারের জন্য থাকবে কয়েকটি ওয়াইফাই। 

আরও পড়ুন- অযোধ্যায় সরযূ তীরে কোরাণ পাঠের ব্যবস্থা আরএসএসের