নারীশরীরে ক্যামেরার তাক, ক্ষুব্ধ ফিফা

বিশ্বকাপে বল গড়ানোর আগে ফিফার মূল চিন্তা ছিল, সমকামিতা ও বর্ণবিদ্বেষ নিয়ে।

Updated: Jul 12, 2018, 04:14 PM IST
নারীশরীরে ক্যামেরার তাক, ক্ষুব্ধ ফিফা

নিজস্ব প্রতিনিধি : এক সংস্থার ওয়েবসাইটে দেখা যাচ্ছিল ছবিগুলো। তারা সেই ফটোগ্যালারির নাম দিয়েছিল, '''দ্য হটেস্ট ফ্যানস অ্যাট দ্য ওয়ার্ল্ড কাপ।' বিশ্বকাপ দেখতে আসা বিভিন্ন দেশের সুন্দরী মেয়েদের অনেক ছবি ছিল সেখানে। রমরমিয়ে বাড়ছিল পেজ ভিউ। কিন্তু শেষমেশ ফিফার রোষের মুখে পড়ে সেই ফটো গ্যালারি সরিয়ে ফেলতে বাধ্য হয় সংশ্লিষ্ট সংস্থা। পরে সংস্থার তরফে বলা হয়, ''এমন ভুল করার জন্য তাঁরা দুঃখিত।''

আরও পড়ুন-  কর্তব্য পালনের পাঠ পড়িয়ে গেলেন ক্রোয়েশিয়ার দমকলকর্মীরা

কিছুদিন আগেই একটা ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছিল। তাতে দেখা যাচ্ছিল, ক্যামেরার সামনে লাইভ হওয়ার সময় এক মহিলা সাংবাদিককে অতর্কিতে চুমু খেলেন এক সমর্থক। নিন্দনীয় এই ঘটনার প্রতিবাদ হয়েছিল বিশ্বজুড়ে। এর পরও অবশ্য আরেক মহিলা সাংবাদিকের সঙ্গে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। কিন্তু তিনি রুখে দাঁড়ানোয় শেষমেশ রক্ষা পান। রাশিয়া বিশ্বকাপে এই সমস্ত বিচ্ছিন্ন ঘটনার জন্য কড়া হচ্ছে ফিফা। বিশ্বকাপে বল গড়ানোর আগে ফিফার মূল চিন্তা ছিল, সমকামিতা ও বর্ণবিদ্বেষ নিয়ে। কিন্তু টুর্নমেন্ট শুরুর পর থেকে এই দুই ব্যাপার নিয়ে তেমন একটা চিন্তা বাড়েনি ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার। তবে মহিলাদের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে চিন্তা বেড়েছিল অবশ্যই।

আরও পড়ুন-  বাইকে চড়ে বিশ্বকাপ!

ফিফার মুখপত্র ফেড্রিকো আদিচি বলছিলেন, ''আমরা ম্যাচ সম্প্রচারকদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলাম। সেখানে ওদের বারবার করে বোঝানো হয়েছে, কোনওভাবেই নারীশরীরে ক্যামেরার ইচ্ছাকৃত তাক করার প্রবণতা মেনে নেওয়া হবে না। এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩০ বার ক্যামেরার এই কারসাজি ধরা পড়েছে। আমরা অন্য ক্যামেরাম্যানদেরও একইভাবে সতর্ক করেছি।'' যদিও সম্প্রচারকদের অনেকেই এমন অভিযোগ মেনে নেননি। তাদের পাল্টা যুক্তি, ম্যাচ চলাকালীন গ্যালারির ছবি তুলে ধরাটা পুরনো প্রথা। আর গ্যালারিতে থাকা সুন্দরীদের ছবি তোলাটাও সেই প্রথারই অন্তর্গত।