জং জারি হ্যায়, ভারতী বিজেপিতে যোগ দিতেই ফের গ্রেফতার তাঁর অনুগামী

সিআইডির দাবি, তদন্তে জানা গিয়েছে, আলিপুরদুয়ারের পুলিস সুপারের ইমেইল আইডি ব্যবহার করে ওই কল ডিটেইলস জোগাড় করেছেন প্রদীপবাবু। বর্তমানে আলিপুরদুয়ারের পুলিস সুপারের দফতরেই কর্মরত তিনি। 

Updated By: Feb 9, 2019, 05:27 PM IST
জং জারি হ্যায়, ভারতী বিজেপিতে যোগ দিতেই ফের গ্রেফতার তাঁর অনুগামী

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতী ঘোষের গলার ফাঁস আরও শক্ত করল সিআইডি। ফের গ্রেফতার হলেন তাঁর আরও এক অনুগামী। গ্রেফতার হলেন ভারতীর অনুগামী বলে পরিচিত পুলিস আধিকারিক প্রদীপ রথ। শনিবার তাঁকে তথ্যপাচারের অভিযোগে গ্রেফতার করে সিআইডি। 

দাসপুর সোনাপাচার মামলায় আগেই গ্রেফতার হয়েছিলেন সেখানকার প্রাক্তন ওসি প্রদীপ রথ। পরে জামিনও পান। এদিন ফের গ্রেফতার হলেন তিনি। সিআইডির দাবি, আলিপুরদুয়ারের পুলিস সুপারের দফতর থেকে তথ্য পাচার করেছেন প্রদীপবাবু। 

দাসপুর সোনাপাচার কাণ্ডে সরকারের অভিষন্ধি প্রমাণে সুপ্রিম কোর্টে বেশ কয়েকজন পুলিসকর্তার কল ডিটেইলস পেশ করেন ভারতী ঘোষ। ভারতীর দাবি, ওই কল রেকর্ড থেকেই স্পষ্ট কী ভাবে মামলাকারী ও সাক্ষীদের শাসাচ্ছে পুলিস ও সিআইডি। কিন্তু ভারতীর হাতে ওই কল ডিটেইলস এল কোথা থেকে? পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিস সুপারের পদ থেকে বদলির পরই ইস্তফা দেন ভারতী। ওদিকে পুলিসকর্তা ছাড়া কারও পক্ষে ওই কল ডেটা জোগাড় করা সম্ভব নয়। 

টানা ৩ ঘণ্টা আলোচনা শেষ রাজীব-সিবিআইয়ের, শুরু হচ্ছে আরেক দফা

সিআইডির দাবি, তদন্তে জানা গিয়েছে, আলিপুরদুয়ারের পুলিস সুপারের ইমেইল আইডি ব্যবহার করে ওই কল ডিটেইলস জোগাড় করেছেন প্রদীপবাবু। বর্তমানে আলিপুরদুয়ারের পুলিস সুপারের দফতরেই কর্মরত তিনি। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৬৭, ১৬৮, ৪০৯, ১২০বি-সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিস।