বিজেপির বিরুদ্ধে সব পদক্ষেপ করেছি নবান্নের নির্দেশে, ম্যারাথন বৈঠকে দিলীপকে সাফাই ভারতীর

বিজেপির অন্দরে খবর, ভারতীকে যোগদান করিয়ে দলের রাজ্য নেতাদের সাপের ছুঁচো গেলার দশা। তাঁকে মেনে নিতে নারাজ দলের অধিকাংশ নেতা-কর্মীই। এই পরিস্থিতিতে ভারতীকে কীভাবে দলের কাজে লাগানো যায় তা জানতে এদিন ভারতীর সঙ্গে বৈঠক করেন দিলীপ ঘোষ।

Updated By: Mar 1, 2019, 03:56 PM IST
বিজেপির বিরুদ্ধে সব পদক্ষেপ করেছি নবান্নের নির্দেশে, ম্যারাথন বৈঠকে দিলীপকে সাফাই ভারতীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: দিন কয়েক আগেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। দিল্লিতে দলের সদর দফতরে হাতে তুলে নিয়েছেন গেরুয়া পতাকা। ইতিমধ্যে ঝাড়গ্রাম কেন্দ্রে লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী হিসাবে প্রাক্তন IPS ভারতী ঘোষের নামে শুরু হয়েছে তুমুল গুঞ্জন। তবে রয়ে গিয়েছে অনেক 'কিন্তু'। সেই সব ধোঁয়াশা স্পষ্ট করতে দলের রাজ্য সভাপতির সঙ্গে ম্যারাথন বৈঠক সারলেন ভারতী ঘোষ। বৃহস্পতিবার রাতে দিলীপ ঘোষের বাসভবনে এই বৈঠক চলে প্রায় দেড় ঘণ্টা। 

সূত্রের খবর, ভারতীয় বিজেপিতে যোগদানে ক্ষুব্ধ দলেরই একাংশের নেতা-কর্মী। তাঁদের অভিযোগ, যে ভারতী মাস কয়েক আগেও জঙ্গলমহলে দলের নেতা-কর্মীদের বেছে বেছে নিগ্রহ করেছেন। মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছে বহু বিজেপি কর্মীকে তাকে কী ভাবে আপন করে নেবেন দলের কর্মীরা? ভারতীকে ময়দানে নামানোর আগে এই সমস্যার সমাধানে নামলেন দিলীপ ঘোষ নিজে। বৃহস্পতিবার রাতের বৈঠকে সেই ব্যাপারেই বিস্তারিত আলোচনা হয় বলে খবর। 

জানা গিয়েছে, বৈঠকে দিলীপ ঘোষকে বিজেপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে তাঁর গ্রহণ করা যাবতীয় পদক্ষেপের সাফাই দিয়েছেন ভারতী। জানিয়েছেন, বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে তিনি যা করেছেন সব রাজ্য সরকারের নির্দেশে। নবান্নের নির্দেশেই বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি। বিজেপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে তাঁর কোনও ব্যক্তিগত দ্বেষ নেই বলেও এদিন স্পষ্ট করেছেন তিনি। 

যাবতীয় প্রক্রিয়া সারা, অভিনন্দনের দেশে ফেরা শুধু সময়ের অপেক্ষা, ওয়াঘায় চলছে উত্সব

বিজেপির অন্দরে খবর, ভারতীকে যোগদান করিয়ে দলের রাজ্য নেতাদের সাপের ছুঁচো গেলার দশা। তাঁকে মেনে নিতে নারাজ দলের অধিকাংশ নেতা-কর্মীই। এই পরিস্থিতিতে ভারতীকে কীভাবে দলের কাজে লাগানো যায় তা জানতে এদিন ভারতীর সঙ্গে বৈঠক করেন দিলীপ ঘোষ। ভারতী দলে কী ধরণের দায়িত্ব পালন করতে চান তা জানতে চান দলের রাজ্য সভাপতি। 

এদিনের বৈঠকে ভারতী নিজের বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগ নিয়েও সাফাই দেন। জানান, অন্যায্য নির্দেশ মানতে অস্বীকার করায় তাঁর বিরুদ্ধে প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে উঠেছে রাজ্য সরকার। তাই একের পর এক ভুয়ো মামলা দায়ের করা হচ্ছে তাঁর বিরুদ্ধে। আয় বহির্ভূত সম্পত্তি ও সোনা পাচারের অভিযোগে তদন্ত চলছে প্রাক্তন IPS ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন ঝাড়গ্রামের SP-র পদে ছিলেন তিনি। গত বছর তাঁকে বদলি করে নবান্ন। এর পরই চাকরিতে ইস্তফা দেন ভারতী।