এই প্রথম গরমের অপেক্ষায় 'চাতক' রাজ্যবাসী, কী বলছে হাওয়া অফিস?

কারণ তাপমাত্রা বাড়লেই কমবে করোনার ঝুঁকি। যদিও এই তথ্যে কোনও সিলমোহর দেয়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

Reported By: Priyanka Dutta | Updated By: Mar 17, 2020, 05:15 PM IST
এই প্রথম গরমের অপেক্ষায় 'চাতক' রাজ্যবাসী, কী বলছে হাওয়া অফিস?

নিজস্ব প্রতিবেদন: এমন দিন বোধহয় এর আগে দেখেনি রাজ্য। অন্যান্যবার গ্রীষ্মের কাঠফাটা রোদের নাম শুনেই কালঘাম ছুটত আমআদমির। তবে এবার ছবিটা একেবারেই উল্টো। অনেকেই চাইছেন রাজ্যে বাড়ুক তাপমাত্রা। কারণ তাপমাত্রা বাড়লেই কমবে করোনার ঝুঁকি। যদিও এই তথ্যে কোনও সিলমোহর দেয়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন মারণ ভাইরাসের করাল থাবার থেকে ভারতকে আড়াল করে ঢালের মতো রয়েছে ভারতের আবহওয়া। জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটালকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডঃ অরিন্দম বিশ্বাস। চিকিৎসকরা বলছেন করোনার গুরুতর প্রভাব থেকে ভারত সুরক্ষিত। আর এই সুরক্ষার কারণ হল ভারতের উষ্ণ-আর্দ্র জলবায়ু। 

COVID-19 এর প্রভাব মূলত শীতল পরিবেশের দেশগুলিতে। উষ্ণ-আর্দ্র আবহওয়াই আটকাবে এই ভাইরাসের সংক্রমণ এবং সে জন্যই ভারতে প্রভাব সে ভাবে হয়তো পড়বে না বলেই মত, ডঃ অরিন্দম বিশ্বাস-সহ অন্যান্যদের। তাঁরা বলছেন আসলে শীতকাল সব ধরনের ভাইরাসের বৃদ্ধির জন্য উপযুক্ত সময়। তাই পরিবেশের তাপমাত্রা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গেই কমে আসবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের গতি। 

সুতরাং সবমিলিয়ে গরমকালের দিকেই তাকিয়ে রাজ্যবাসী। প্রত্যেকেরই ধারনা গরম পড়লেই বাঁচা যাবে করোনার থাবা থেকে। অন্যান্যবারের তুলনায় এখনও তেমন গরম পড়েনি বললেই চলে। চৈত্রের শুরুতেই আংশিক মেঘলা আকাশ নিয়েই দিন শুরু হচ্ছে রাজ্যবাসীর। তবে বৃষ্টি পিছু ছাড়েনি বঙ্গের। ভোরের দিকে শীতের আমেজ থাকছেই। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, এপ্রিল-মে নাগাদ স্বাভাবিক নিয়মেই বাড়বে তাপমাত্রা। 

আগামী ৪৮ ঘণ্টাই রাজ্যে জারি থাকবে শুষ্ক আবহাওয়া। আগামী দুদিন রাত ও দিনের তাপমাত্রা খুব একটা পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই। সপ্তাহান্তে আবারও ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস আবহাওয়া দফতরের তরফে। বৃহস্পতি শুক্রবার ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা জোরালো গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। মূলত পশ্চিমের জেলাগুলিতে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। সম্ভাবনা বেশি শুক্রবার। বঙ্গোপসাগরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে সপ্তাহের মাঝামাঝি তার জেরেই প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকবে রাজ্যে। এর থেকে বজ্রগর্ভ মেঘ হয়ে ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই কলকাতায় রাতের তাপমাত্রা বেড়েছে ১ ডিগ্রি। আজ কলকাতায় সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৩.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি কম। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে এই সপ্তাহেই তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে পাঞ্জাব-সহ দিল্লিতে।