দুধ খেতে গিয়েই মৃত্যু ছোট্ট শেরিনের, জেরায় কবুল 'বাবা' ম্যাথিউসের

Updated By: Oct 25, 2017, 02:20 PM IST
দুধ খেতে গিয়েই মৃত্যু ছোট্ট শেরিনের, জেরায় কবুল 'বাবা' ম্যাথিউসের

নিজস্ব প্রতিবেদন : দুধ খেতে গিয়েই দম আটকে মৃত্যু হয়েছে মেয়ে শেরিনের। টেক্সাস পুলিসের জেরার মুখে মেয়ের মৃত্যুর কথা স্বীকার করে নিল পালিত বাবা ওয়েসলি ম্যাথিউস। ম্যাথিউসের জবানবন্দির নথি পেশ করেছে টেক্সাস পুলিস। মেয়েকে খুনের দায়ে ফের গ্রেফতার করা হয়েছে ওয়েসলি ম্যাথিউসকে।

বছর তিনেকের ভারতীয় কন্যার মার্কিন পালিত বাবা ওয়েসলি ম্যাথিউস টেক্সাস পুলিসের জেরার মুখে জানিয়েছেন, ৭ অক্টোবর গ্যারেজের মধ্যে মেয়ে শেরিনকে দুধ খাওয়ানোর চেষ্টা করছিল সে। কিন্তু মেয়ে কিছুতেই দুধ খাচ্ছিল না। তখন সে কিছুটা জোর করেই চেষ্টা করে শেরিনকে দুধটা খাইয়ে দিতে। আর তাতেই শেরিনের শ্বাসনালীতে আটকে যায় দুধ। শেরিন কাশতে শুরু করে। ধীরে ধীরে কমে আসে শ্বাসপ্রশ্বাস। একসময় নেতিয়ে পড়ে শেরিন। নাড়ির স্পন্দন পরীক্ষা করে কোনও সাড়া না পেয়ে ম্যাথিউস বুঝতে পারে যে, শেরিনের মৃত্যু হয়েছে। তারপরই শেরিনের মৃতদেহটি বাড়ি থেকে সরিয়ে ফেলে সে। বাড়ি থেকে একটু দূরে গর্ত খুঁড়ে দেহটি পুঁতে দেয়।

পুলিসের জেরার মুখে অবশেষে নিজের দোষ কবুল করে নিল শেরিনের পালিত বাবা ওয়েসলি ম্যাথিউস। ম্যাথিউসের বিরুদ্ধে শিশুকে আঘাত ও নিগ্রহের ধারায় চার্জ গঠন করা হয়েছে। দোষ প্রমাণিত হলে যাবজ্জীবন সাজা হবে ম্যাথিউসের।

এর আগে অবশ্য পুলিসের কাছে ভিন্ন দাবি করেছিল ম্যাথিউস। সে জানিয়েছিল, দুধ না খাওয়ার শাস্তি হিসেবে ৭ অক্টোবর বাড়ির বাইরে শেরিনকে দাঁড় করিয়ে রেখেছিল সে। কিছু পরে ফিরে এসে দেখে শেরিন সেখানে নেই। এরপর রবিবার রাতেই ম্যাথিউসদের বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে শেরিনের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিস। শিশু অবহেলা আইনে গ্রেফতার করা হয় ওয়েসলিকেও। যদিও জামিনে মুক্তি পেয়ে যায় সে।

প্রসঙ্গত, দুবছর আগে বিহারের একটি অনাথ আশ্রম থেকে শেরিনকে দত্তক নিয়েছিল ম্যাথিউস দম্পতি। তাকে টেক্সাসে নিয়ে গিয়েছিল তারা। শেরিনের মৃত্যুতে খতিয়ে দেখা হয়েছে পালিতা মা সিনির ভূমিকাও। যদিও পুলিসকে সিনি জানিয়েছে, ঘটনার সময় সে ঘুমাচ্ছিল।

আরও পড়ুন, গুজরাটে ভোট ৯ ও ১৪ ডিসেম্বর, ফল ঘোষণা ১৮ ডিসেম্বর