করোনা ক্লাস্টার চিহ্নিত করতে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেছে ভারতের আরোগ্য সেতু অ্যাপ, প্রশংসা WHO প্রধানের

গত এপ্রিলে করোনা লকডাউনের প্রথম দশায় ওই অ্যাপ লঞ্চ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সরকারি, বেসরকারি কর্মচারি ও কনটেনমেন্ট এলাকার মানুষজনের জন্যে বাধ্যতামূলক করা হয় ওই অ্যাপ

Updated By: Oct 13, 2020, 04:58 PM IST
করোনা ক্লাস্টার চিহ্নিত করতে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেছে ভারতের আরোগ্য সেতু অ্যাপ, প্রশংসা WHO প্রধানের

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতে করোনা সংক্রমণ শুরুর পরপরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী চালু করেছিলেন আরোগ্য সেতু অ্যাপ। এনিয়ে শোরগোল হয় দেশজুড়ে। এতে নাকি মানুষের ব্যক্তিগত পরিসর নষ্ট হচ্ছে। এবার সেই আরোগ্য সেতু অ্যাপের প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস অ্যাডানম গেব্রিয়েসাস।

আরও পড়ুন- বেসরকারি স্কুলে ফি কমল ২০%, মকুব নন-অ্যাকাডেমিক ফি, নির্দেশ হাইকোর্টের  

হু-র ডিরেক্টর বলেন, করোনা রোগীদের চিহ্নিত করতে ভারত সরকার চালু করেছিল আরোগ্য সেতু অ্যাপ। এর ফলে করোনা ভাইরাস ক্লাস্টার চিহ্নিত করতে ও করোনা টেস্টের সংখ্যা বাড়়ানো অনেক সহজ হয়েছে। 
ভারতের ১৫ কোটি মানুষ ওই অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন।

উল্লেখ্য, গত এপ্রিলে করোনা লকডাউনের প্রথম দশায় ওই অ্যাপ লঞ্চ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সরকারি, বেসরকারি কর্মচারি ও কনটেনমেন্ট এলাকার মানুষজনের জন্যে বাধ্যতামূলক করা হয় ওই অ্যাপ। এনিয়ে কোনও কোনও মহল থেকে প্রবল সমালোচনা হয়েছিল। অভিযোগ উঠেছিল, ওই অ্যাপের সাহায্যে নাগরিকদের ব্যক্তিগত পরিসরে হাত দিচ্ছে সরকার।

আরও পড়ুন-প্রকাশ্যেই 'বেলাগাম' দলীয় নেতৃত্ব, এটাই নাকি 'স্ট্র্যাটেজি'! ফাঁস তৃণমূলের হাঁড়ির খবর

কিন্তু শেষপর্যন্ত দেখা যায়, করোন রোগীদের ওপরে নজর রাখতে খুব ভালো কাজ করছে ওই অ্যাপ। আরোগ্য সেতু অ্যাপ লঞ্চ করার কিছুদিনের মধ্যেই তা বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড করা অ্য়াপের শীর্ষে চলে আসে। এদিকে, বিরোধীরা যাই বলুক না কেন, ভারতের দেখাদেখি একই ধরনের অ্য়াপ লঞ্চ করেছে জার্মানি ও ব্রিটেন।