চলন্ত ট্রেন থেকে পরে মৃত্যু কিশোরীর

চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হল এক কিশোরীর। দুর্ঘটনাটি বর্ধমান এবং তালিত স্টেশনের মাঝে  ঘটেছে। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কলকাতার খিদিরপুর অঞ্চল থেকে স্বপরিবারে বিহার শরিফ যাচ্ছিলেন পারভেজ ইকবাল নামে এক স্কুল শিক্ষক। দানাপুর এক্সপ্রেসের সংরক্ষিত কামরায় তাঁরা ছিলেন। পারভেজ ইকবালের দাবি, তালিত ছাড়ার পরই তাঁর শালার মেয়ে হাত ধুতে গিয়েছিল। হঠাত্‍ই সে পড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা চেন টেনে ট্রেন থামান এবং গার্ডকে অনুরোধ করেন একটু খুঁজে দেখার। যদিও গার্ড তাঁদের কোনও সাহায্য করেননি বলে অভিযোগ পারভেজ ইকবালের। প্রায় ৩ ঘণ্টা পরে রেল পুলিস গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। কিন্তু রাতে সংরক্ষিত কামরার দুটি দরজা কেন খোলা ছিল, তার কোনও জবাব মেলেনি রেল কর্মীদের কাছে। ফলে ফের প্রশ্নের মুখে যাত্রীদের নিরাপত্তা।

Updated By: Mar 14, 2015, 02:55 PM IST
চলন্ত ট্রেন থেকে পরে মৃত্যু কিশোরীর

ওয়েব ডেস্ক:চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হল এক কিশোরীর। দুর্ঘটনাটি বর্ধমান এবং তালিত স্টেশনের মাঝে  ঘটেছে। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কলকাতার খিদিরপুর অঞ্চল থেকে স্বপরিবারে বিহার শরিফ যাচ্ছিলেন পারভেজ ইকবাল নামে এক স্কুল শিক্ষক। দানাপুর এক্সপ্রেসের সংরক্ষিত কামরায় তাঁরা ছিলেন। পারভেজ ইকবালের দাবি, তালিত ছাড়ার পরই তাঁর শালার মেয়ে হাত ধুতে গিয়েছিল। হঠাত্‍ই সে পড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা চেন টেনে ট্রেন থামান এবং গার্ডকে অনুরোধ করেন একটু খুঁজে দেখার। যদিও গার্ড তাঁদের কোনও সাহায্য করেননি বলে অভিযোগ পারভেজ ইকবালের। প্রায় ৩ ঘণ্টা পরে রেল পুলিস গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। কিন্তু রাতে সংরক্ষিত কামরার দুটি দরজা কেন খোলা ছিল, তার কোনও জবাব মেলেনি রেল কর্মীদের কাছে। ফলে ফের প্রশ্নের মুখে যাত্রীদের নিরাপত্তা।