কলেজে কলেজে অধ্যক্ষ ঘেরাও

সারা দিনে রাজ্যের একাধিক কলেজে ঘেরাও হলেন অধ্যক্ষরা। রায়গঞ্জে ছাত্রছাত্রীদের দাবিকে ভিত্তিহীন বলায় ঘেরাও হন নতুন অধ্যক্ষ। পরে পুলিস গিয়ে তাঁকে ঘেরাও মুক্ত করে। মনোনয়ন পত্র বাতিল হওয়ায় কারচুপির অভিযোগে অধ্যক্ষকে ঘেরাও করা হয় নৈহাটিতে। পুরুলিয়ার জেকে কলেজে আবার অধ্যক্ষকে ঘেরাও করেন অধ্যপকদেরই একাংশ। শেষ পর্যন্ত দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে পুরুলিয়ার ওই অধ্যক্ষকে অপসারণের সিদ্ধান্ত কলেজের গভর্নিংবডি।

Updated By: Feb 27, 2012, 05:14 PM IST

সারা দিনে রাজ্যের একাধিক কলেজে ঘেরাও হলেন অধ্যক্ষরা। রায়গঞ্জে ছাত্রছাত্রীদের দাবিকে ভিত্তিহীন বলায় ঘেরাও হন নতুন অধ্যক্ষ। পরে পুলিস গিয়ে তাঁকে ঘেরাও মুক্ত করে। মনোনয়ন পত্র বাতিল হওয়ায় কারচুপির অভিযোগে অধ্যক্ষকে ঘেরাও করা হয় নৈহাটিতে। পুরুলিয়ার জেকে কলেজে আবার অধ্যক্ষকে ঘেরাও করেন অধ্যপকদেরই একাংশ। শেষ পর্যন্ত দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে পুরুলিয়ার ওই অধ্যক্ষকে অপসারণের সিদ্ধান্ত কলেজের গভর্নিংবডি।

নিগ্রহের ঘটনায় রায়গঞ্জ ইউনিভার্সিটি কলেজের আগের অধ্যক্ষের ইস্তফার পরই সেই দায়িত্ব এসেছেন অধ্যাপক শত্রুঘ্ন সিনহা। এবারে ছাত্রছাত্রীদের হাতে ঘেরাও হলেন তিনিও। শনিবারই ছ-দফা দাবিতে স্মারকলিপি জমা দেয় ছাত্রছাত্রীরা। সেই দাবিকে ভিত্তিহীন বলায় সোমবার সকাল থেকেই ঘেরাও করা হয় অধ্যক্ষকে। কলেজ চত্বরে উত্তেজনা থাকায় রায়গঞ্জের আইসির নেতৃত্বে বিশাল পুলিস বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। পরে পুলিসি প্রহরাতে বের করে আনা হয় অধ্যক্ষকে।
পুরুলিয়ার জেকে কলেজে আবার অধ্যাপকদের একাংশের হাতেই ঘেরাও হন অধ্যক্ষ আবু সুফিয়ান। তাঁর বিরুদ্ধে কলেজ পরিচালনায় দুর্নীতি এবং স্বেচ্ছাচারের অভিযোগ করেন আন্দোলনরত অধ্যাপকেরা। যদিও কলেজে কড়া নিয়ম চালুর জন্যই তিনি ষড়যন্ত্রের স্বীকার বলে অভিযোগ করেন আবু সুফিয়ান। সোমবারই অধ্যক্ষকে অপসারণের কথা ঘোষণা করেন কলেজের পরিচালন সমিতির সভাপতি তৃণমূল বিধায়ক কেপি সিং দেও।
নৈহাটির ঋষি বঙ্কিম কলেজের নির্বাচনে টিএমসিপির ৪৭টি মনোনয়নের মধ্যে ৪০টি বাতিল হয়ে যায়। ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দিতাতেই জয়লাভ করে এসএফআই। এই ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে টিএমসিপির সমর্থেরা।