মোহনবাগানকে গোল ব্যারেটোর

মোহনবাগানকে গোল দিলেন ব্যারেটো। সবুজ তোতার গোলেই জয়ের স্বপ্ন হাতছাড়া করিমের দলের। ঘরোয়া লিগে যুবভারতীতে ওডাফাহীন মোহনাবগান প্রথমার্ধ দাপট দেখাল ভবানীপুরের বিরুদ্ধে। শুরু দাপটেই অনিলকুমারের গোলে এগিয়ে যায় মোহনবাগান। আরও কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করলেন টোলগেরা। দু একটি পাস ছাড়া টোলগের পারফরম্যান্স এদিনও ছিল সাদামাঠা। দ্বিতীয়ার্ধে পুরানো দলের বিরুদ্ধে জ্বলে উঠলেন ব্যারেটো। জ্বলে উঠল গোটা ভবানীপুর দল। শেষ পঁচিশ মিনিট কার্যত মোহন ডিফেন্সকে ছিঁড়ে খেল ব্যারেটোর দল।

Updated: Feb 12, 2013, 07:14 PM IST

মোহনবাগান (১) ভবানীপুর (১)
মোহনবাগানকে গোল দিলেন ব্যারেটো। সবুজ তোতার গোলেই জয়ের স্বপ্ন হাতছাড়া করিমের দলের। ঘরোয়া লিগে যুবভারতীতে ওডাফাহীন মোহনাবগান প্রথমার্ধ দাপট দেখাল ভবানীপুরের বিরুদ্ধে। শুরু দাপটেই অনিলকুমারের গোলে এগিয়ে যায় মোহনবাগান। আরও কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করলেন টোলগেরা।দু একটি পাস ছাড়া টোলগের পারফরম্যান্স এদিনও ছিল সাদামাঠা। দ্বিতীয়ার্ধে পুরানো দলের বিরুদ্ধে জ্বলে উঠলেন ব্যারেটো। জ্বলে উঠল গোটা ভবানীপুর দল। শেষ পঁচিশ মিনিট কার্যত মোহন ডিফেন্সকে ছিঁড়ে খেল ব্যারেটোর দল।
আক্রমণের নেতৃত্ব দিলেন ব্রাজিলীয়। চাপ বাড়াল অবিনাশ রুইদাস-জগন্নাথ সানার মত তরুণতুর্কীরা। ডিফেন্সে চাপ বাড়তেই ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে দুরন্ত খেলা মোহনবাগান ডিফেন্স ভুল করে বসে। বক্সে মনীশা মাথানি হ্যান্ডবল করায় পেনাল্টি পায় ভবানীপুর। পেনাল্টি থেকে গোল করে ভবানীপুরকে সমতায় ফেরাতে ভুল করেননি ব্যারেটো। এখানেই শেষ নয় দ্বিতীয়ার্ধে ফ্রিকিক থেকে ব্যারেটোর চোখধাঁধানো শট বারে লেগে ফিরে না আসলে,মোহনবাগান এক পয়েন্ট নিয়েও ঘরে পারত কিনা সন্দেহ। চোট কাটিয়ে মাঠে ফেরা ব্যারেটোর চোখধাঁধানো টাচ দেখে হাততালি শোনা গেল খোদ মোহনবাগান গ্যালারি থেকেই। সবুজ-মেরুনে প্রাক্তন হলেও এখনও ব্যারেটোকে ছুঁয়ে দেখার চেষ্টা ধরা পড়ল মোহনবাগান সমর্থকদের মধ্যে। আর ইচে-ডেনসনরা যখন স্টেডিয়াম ছাড়ছেন,তখন শুধুই কটুক্তি।