আইপিএল কলঙ্কের সালতামামি, দ্বিতীয় দিন

Last Updated: Thursday, May 16, 2013 - 14:10

রাত ৮টা: দিল্লি পুলিসের মতে, রাহুল দ্রাবিড় বা রাজস্থান রয়ালসের মালিক রাজ কুন্দ্রা ও শীল্পা শেঠিকে জেরা করার কোনও মানেই নেই। দলের তিন জন ক্রিকেটার ম্যাচ ফিক্সিং কাণ্ডে গ্রেফতার হওয়া সত্ত্বেও, এই ঘটনায় এঁদের জরিত থাকার সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করছে পুলিস।
সন্ধ্যে ৭টা: স্পটফিক্সিং নিয়ে প্রতিক্রিয়া রাজীব শুক্লর, "দোষীদের কঠিনতম শাস্তি হবে। রবিবার চেন্নাইয়ে কার্যনির্বাহি সমিতির বৈঠক ডাক হয়েছে। গোটা বিষয় ও ভবিষৎতের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা হবে সেখানেই। আমরা কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেব সেই বৈঠকে।"
৬টা ৩৪: মুম্বই পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০০৯ আইপিএল সিজনে সুনীল অভিচান্দনি চন্দ্রেশের সঙ্গে যোগাযোগ করে খেলোয়াড়দের স্পট ফিক্সিংয়ের চেষ্টা চালায়। সে বছর অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কার আইপিএল ক্রিকেটারদের নিশানা করা হয়।
৬টা: দায় স্বীকার করে নিয়েছেন শ্রিসন্ত। দিল্লি পুলিসকে সব কথা জানিয়েছেন তিনি। তবে ফিক্সিংয়ের সমস্ত টাকা এখনও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিস।
বিকেল ৫টা ২৫: স্পট ফিক্সিং কণ্ডে এবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে রাজস্থান রয়েল চ্যালেঞ্জার ক্যাপ্টেন রাহুল দ্রাবিড়কেও। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, তদন্তে রাহুল ও দলের অন্যরা সাহায্য করতে পারেন।
৫টা ২০: পুলিসের নজরে রয়েছে আরও ক্রিকেট। বেশকিছু ক্রিকেটারকে গ্রেফতার করা হতে পারে বলে জানিয়েছে মুম্বই পুলিস।  যুগ্ম কমিশনর হিমাংশু রায় জানিয়েছে, "কালবা দেবী এলাকা থেকে বেশকিছু বুকিকে আটক করা হয়েছে। দুবাই ও পাকিস্তানে তাঁদের কল রেকর্ড খতিয়ে দেখছে পুলিস। একটি দলের শুধুমাত্র তিনজন ক্রিকেটারের জড়িয়ে থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ।" অর্থাৎ পুলিস মনে করছে, আইপিএল ছয়ের বৃহত্তম ম্যাচ ফিক্সিং কাণ্ডে আরও খেলোয়াড় জড়িত রয়েছেন।
৪টে ০৩: তদন্তকারীদের অঙ্কিত চৌহান জানিয়েছেন, বুকিরা রাজস্থানের দুই ব্যাটসম্যানকে প্রথম নিশানা করে। তবে কেন তাঁরা ফাঁদে পা দেননি তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।
৩টে ৪০: রাজস্থান রয়ালসের তিন খেলোয়াড়দের জেরা করে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেল পুলিস। পুলিস মনে করছে, রাজস্থানের অন্য খেলোয়াড়রাও এই ঘটনায় জরিত। তাঁদের মধ্যে একজন ভারতীয় দলের ক্রিকেটার। অন্যজন আন্তর্জাতিক স্তরের খেলোয়াড় বলে জানতে পেড়েছে পুলিস।
বিকেল ৩টে: এস শ্রীসন্ত, অজিত চান্ডেলিয়া ও অঙ্কিত চৌহানের বিরুদ্ধে অপরাধ মূলক ধারায় তদন্ত চালানোর পরিকল্পনা করছে বিসিসিআই। রবিবারের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে।
১টা ৩০: পুলিস সূত্রে খবর শ্রীসন্থ জানিয়েছেন জিজু জনার্ধন নামের এক বুকি তাঁরকে লোভ দেখিয়েছিল।
১টা ২৬: রবিবার চেন্নাইয়ে ১১টায় জরুরী সভার ডাক বিসিসিআইয়ের।
১টা ১৩: অঙ্কিত চৌহান দোষ স্বীকার করলেও তাঁর পরিবারের পক্ষে দাবি করা হয় তিনি নির্দোষ।
১২টা ৩৬: শ্রীসন্থ নির্দোষ। দাবি তাঁর ভাই দীপুর।
১২টা ৬: সূত্রে খবর, অঙ্কিত চৌহান প্রাথমিক ভাবে বেটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে চাননি। পরে বিবিধ প্ররোচনায় পা দেন তিনি।
১১টা ৫৬: রাজস্থান রয়্যালসের অঙ্কিত চৌহান পুলিসে জেরায় ভেঙে পড়লেন। স্বীকার করেনিলেন স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ। জানালেন লোভে পরে বিশাল বড় ভুল করেফেলেছেন তিনি।
১১টা ৩২: দুবাই বাসী বুকি সুনীল অভিচন্দানি ওরফে সুনীল দুবাই এই ফিক্সিংয়ের মূল মাথা বলে সূত্রে খবর। সুনীল দাউদ ইব্রাহিমের ঘনিষ্ট। চন্দ্রেশ নামের এক বুকি সুনীলের হয়ে ভারতে কাজ করত বলে তদন্তে প্রকাশ।
১১টা ১৫:  দীপক প্রকাশ দাবি করেছেন তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। তিনি জানিয়েছেন দিল্লি পুলিস নিজেদের মুখ রক্ষা করার জন্য শ্রীসন্থকে ফাঁসিয়েছ।
১১টা ১৫: এস শ্রীসন্থের আইনজীবী দীপক প্রকাশ জানিয়েছেন শনিবার তাঁরা শ্রীসন্থের জামিনের আবেদন করবেন। তিনি মন্তব্য করেছেন শ্রীসন্থের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণই নেই। শ্রীসন্থকে ফাঁসানো হয়েছে বলেও দাবি করেছেন তিনি।
১১টা ৫: সিবিসিআইডি তামিলনাড়ুতে তল্লাশি চালাল। ছয় জন বুকি গ্রেফতার। উদ্ধার ১৪ লাখ টাকা সহ ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন।
১০টা১০: অজিত চান্ডালিয়া গত বারের আইপিএলেও গড়াপেটআর সঙ্গে জড়িত ছিল বলে সন্দেহ। সূত্রে খবর, চান্ডালিয়া আরও ক্রিকেটারদের গড়াপেটায় নিয়ে আসবেন বলে কথা দিয়েছিলেন।
৯টা ১৪: সূত্রে খবর, বিসিসিআই-এর দূর্নীতি বিরোধী কমিটি এই স্পট ফিক্সিংয়ের তদন্ত করবে। আহমেদাবাদ থেকে গ্রেফতার হওয়া বুকি অমিত সিং রাজস্থান রয়্যালসের প্রাক্তন ক্রিকেটার।
৮টা ৪৭: কলঙ্কিত পেপসি আইপিএলে স্পট ফিক্সিং তদন্তে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ। পুলিস সূত্রে খবর, বুকিরা টাকার সঙ্গে ক্রিকেটারদের নারী সঙ্গেরও যোগান দিত।
গতকালের কিস্যা:
দুপুর ৩.৩০টা-- এবার সেই ম্যাচে চান্দিলার বিতর্কিত ওভারের ফুটেজ দেখানো শুরু করলেন পুলিস কমিশনার।
সেই সিগন্যালটা ছিল বুকিদের উদ্দেশ্যে নিজের শার্টে হাত দিয়ে দেখাবেন চান্দিলা। কিন্তু সেটা করতে ভুল যান।
চাঞ্চল্যকর সব তথ্য দিচ্ছেন নীরজ কুমার।
দুপুর ৩.৩০টা- "প্রথম স্পট ফিক্সিংয়ের ঘটনা ঘটে ৫ মে পুণে ওয়ারিয়র্স বনাম রাজস্থান রয়্যালস ম্যাচে। স্পট ফিক্সিং করবেন বলে বুকিদের সঙ্গে কথা হয় রাজস্থান রয়্যালসের অজিত চান্দিলার । ২০ লক্ষ টাকার অগ্রিমও নেন চান্দিলা।
কথা ছিল চান্দিলা এই ম্যাচে তাঁর স্পেলের দ্বিতীয় ওভারে ১৪ রান দেবেন। শর্ত ছিল এই ওভারের আগে সিগন্যাল দিতে হবে চান্দিলাকে। কিন্তু ওভার শুরুর আগে বুকিদের উদ্দেশ্যে সিগন্যাল দিতে ভুলে যান। তাই বুকিরা চান্দিলার কাছ থেকে টাকা ফেরত চান।"-- নীরজ কুমার
দুপুর ৩টা- ম্যাচ ফিক্সিং বিতর্কে সাংবাদিক সম্মেলন শুরু দিল্লি পুলিস কমিশনার নীরজ কুমার।
দুপুর ২.৩০টা-- 'কিছু ক্রিকেটারের এটা ব্যক্তিগত ভুল। আইপিএলের কলঙ্ক বলে মনে করি না।'
দুপুর ২.১৫টা- 'ক্রিকেটাররা ভালই রোজগার করেন, তাই এই দোষটাকে তাঁদের লোভ বলা যায়।'
দুপুর ২টা-- 'বোর্ড সভাপতি এন শ্রীনাবাস বললেন, পুরো ঘটনায় তিনি হতবাক, বোর্ড হতবাক।'
দুপুর ২.১০টা-টেলিকনফারেন্সে সাংবাদিক সম্মেলন শুরু বোর্ড সভাপতি এন শ্রীনিবাসনের।
সকাল ১২টা-- শ্রীসন্থের আত্মীয় জিজু জর্নাদনকে গ্রেফতার করা হল। কেরালার হয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে খেলা জিজু বুকি হিসাবে কাজ করেতন। শ্রীসন্থের সঙ্গে জিজুই বুকিদের যোগাযোগ করে দিয়ে ছিলেন বলে অভিযোগ।

সকাল ১১.৩০টা- তিন বুকি জুপিটার, বুন্টি ও কোঠারির নাম উঠে এল৷ এই তিন বুকিই দাউদ ইব্রাহিমের গ্যাংয়ের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত৷ দুবাই থেকে করাচি ও আমেদাবাদ- প্রাথমিক ভাবে এই নেটওয়ার্কের সন্ধান মিলেছে৷
সকাল ১১.১৫টা-- শ্রীসন্থের বাবা অভিযোগ করলেন, তাঁর ছেলেকে ফাঁসিয়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনি ও হরভজন সিং। সৌরভ গাঙ্গুলি বললেন, খুব রাগ হচ্ছে, আর হতাশা লাগছে। দোষী প্রমাণিত হলে ওদের আজীবন নির্বাসিত করা উচিত। সঙ্গে সৌরভ বললেন, রাজস্থান রয়্যালসের অধিনায়ক দ্রাবিড়ের কথা ভেবেও খুব খারাপ লাগছে।

সকাল ১১টা-- শ্রীসন্থকে সাসপেন্ড করল বোর্ড। সেই সঙ্গে সাসপেন্ড হলেন অজিত চান্দিলা, অঙ্কিত চৌহান। দোষী সাব্যস্ত হলে আজীবন নির্বাসিত করা হব শ্রীসন্থ সহ দুই ক্রিকেটারকে জানাল ভারতীয় বোর্ড।
২০১৩ আইপিএলেও অন্তত ১২ ম্যাচ ফিক্সিং হয়েছে বলেই সন্দেহ করছে দিল্লি পুলিশ। পুলিসের নজরে আছে একাধিক ক্রিকেটার। তাঁদেরকেও যে কোনও সময় গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছেন দিল্লি পুলিসের কমিশনার।
সকাল ১০.৪৫টা-- রাজস্থান রয়্যালসের দুই বিদেশি ক্রিকেটারের হোটেল রুম থেকে এক কোটি টাকা উদ্ধার। সূত্রের খবর এই দুজন ক্রিকেটার হলেন ওয়েজ শাহ আর শন টেট।
সকাল ১০.৩০টা- কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শশী থারুর বললেন, শ্রীসন্থ গ্রেফতার হওয়ায় আমি খুব দুঃখিত। ও দারুণ ক্রিকেটার, কেরালার গর্ব। দোষী প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত ওকে নির্দোষ বলেই মনে করছি।
সকাল ১০.২৫টা-- শ্রীসন্থ, চান্দিলা, অঙ্কিতের পর আইপিএলে খেলা আরও চার ক্রিকেটারের নাম জড়ালো। তবে তাঁদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত প্রমাণ না থাকায় গ্রেফতার করা গেল না বলে খবর।

সকাল ১০.২০টা-- রাজস্থান রয়্যালসের মালকিন শিল্পা শেঠি বললেন, তিনি হতবাক। 'আমাকে একাধিকবার প্রশ্ন করা হয়েছে, আইপিএল-এর পুরোটাই গড়াপেটা কি না৷ আমি বলেছি, কোনও দলকে কেনা যায় না৷ তবে অসত্‍ ক্রিকেটারদের কেনা সম্ভব৷'
সকাল ১০.১৫টা- শ্রীসন্থের মা বললেন, তাঁর ছেলে নির্দোষ।
দিল্লি পুলিশের সন্দেহ, বেটিং চক্রের নেপথ্যে সক্রিয় ভূমিকা রয়েছে আন্ডারওয়ার্ল্ডের৷ বুকি ও ক্রিকেটারদের কাছে দুবাই থেকে ফোন এসেছিল৷ আর এই ফোন থেকেই আন্ডারওয়ার্ল্ডের যোগসূত্র জোরালো হচ্ছে৷
সকাল ১০টা-- ফোন ট্যাপ করেই শ্রীসন্থদের ধরা হয়েছে বলে দিল্লি পুলিস সূত্রের খবর। ভিডিও প্রমাণও রয়েছে পুলিসের কাছে।
ধৃত তিন ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিস। এই তিনজনের বিরুদ্ধে ১২০ ও ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সকাল ৯.৪৫-- গ্রেফতার করা হল রাজস্থান রয়্যালসের আরও দুই ক্রিকেটার অজিত চান্দিলা, আঙ্কিত চৌহানকে। দুইজনের বিরুদ্ধেই অভিযোগ স্পট ফিক্সিংয়ের।
আইপিএল-এর চেয়ারম্যান রাজীব শুক্ল বলেছেন, 'আমি এখনও সবিস্তারে ঘটনাটি জানি না৷ জেনে মন্তব্য করব৷'
সকাল ৯.৩০টা- গ্রেফতার করা হল এস শ্রীসন্থকে। আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে পড়ার জন্যই শ্রীসন্থকে গ্রেফতার করা হল।
গ্রেফতার করা হল সাত বুকিকে। এদের মধ্যে দুই ভারতীয়কে দিল্লিতে নিয়ে আসা হল।
সকাল ৭টা--জানা গেল স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় গতকাল গভীর রাতে মুম্বইয়ের ট্রাইডেন্ট হোটেল থেকে তিন জনকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশের বিশেষ দল৷
জানা গেল আইপিএলে গড়াপেটার তদন্তের জন্য জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই শ্রীসন্থকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
রাত ২টো নাগাদ- মুম্বইয়ের বন্ধুর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশের বিশেষ দল৷
রাত ১২.৩০টা- ট্রাইডেন্ট হোটেলের বাইরে মোতায়েন করা হল পুলিস। মনে করা হল ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার স্বার্থে অতিরিক্ত পুলিস আনা হয়েছে।
রাত ১২টা-- ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে মুম্বই ইন্ডিয়ন্সের বিরুদ্ধে ম্যাচ শেষে হোটেল ফিরলেন রাজস্থান রয়্যালসের ক্রিকেটাররা।



First Published: Friday, May 17, 2013 - 20:28


comments powered by Disqus