আগামিকাল শীত আরও বাড়বে!

আগামিকাল শীত আরও বাড়বে!

আগামিকাল শীত আরও বাড়বে। তবে শীতের মেয়াদ বেশি দিনের নয়, একেবারে বিজ্ঞানের শর্ত অনুসরণ করে না বললেও, পাঁচিশে জানুয়ারির পরই রাজ্যে শীতের বিদায়। তবে যাওয়ার আগে শীতের  শেষ কামড়ে জবুথুবু দশা রাজ্যের উত্তর থেকে দক্ষিণ। এবার তেমন শীত নেই, এই ধরনের হা-হুতাশ নয়, এবছর শীতই পড়েনি।  গোটা পৌষ গেছে বসন্তের  উষ্ণতায়। মাঘের শীতে বাঘ পালায়, একথাও সত্যি মনে হচ্ছিল না মাঘের প্রথম দিকে ।  

পৌষ পার্বণ স্পেশাল: তিলের পিঠে পৌষ পার্বণ স্পেশাল: তিলের পিঠে

মকর সংক্রান্তি বাড়িতে বাড়িতে এখন চলছে পিঠে পার্বণ। আজ রইল তিলের পিঠের রেসিপি।

পৌষ পার্বণে পিঠে আছে ঠিকই, তবে ঢেকিতে ভাঙা চালের গুঁড়ি পৌষ পার্বণে পিঠে আছে ঠিকই, তবে ঢেকিতে ভাঙা চালের গুঁড়ি

এক সময় বাংলার ঘরে ঘরে ঢেঁকিতে ভাঙা চাল গুঁড়ি দিয়ে তৈরি হত হরেক রকমের পিঠে। সেই ঢেঁকি এখন অতীত। তবে ঢেঁকির ট্র্যাডিশন এখনও বজায় রেখেছেন হুগলির পোলবার ডুবিরভেরি গ্রামের বাসিন্দারা।

পৌষ পার্বণ স্পেশাল: পোয়া পিঠে পৌষ পার্বণ স্পেশাল: পোয়া পিঠে

পৌষ পার্বণে বাঙালির অন্যতম প্রিয় রেসিপি পোয়া পিঠে। একে তেল পিঠেও বলে।

পৌষ পার্বণ স্পেশাল: মালপোয়া পিঠে পৌষ পার্বণ স্পেশাল: মালপোয়া পিঠে

বাঙালির শীত মানেই পৌষ পার্বণ। আর বিভিন্ন রকম মজার পিঠের স্বাদ দিতে আজ রইল মালপোয়া পিঠের রেসিপি।

পৌষ পার্বণের রেসিপি: ভাপা পিঠে পৌষ পার্বণের রেসিপি: ভাপা পিঠে

ভাপা পিঠে পৌষ পার্বণের অন্যতম উপাদেয় পদ। এখন ইডলি বানানোর স্ট্যান্ডে খুব সহজে বানানো যায় ভাপা পিঠে। আমরা দিলাম সনাতন পদ্ধতি। মা, জেঠিমারা এইভাবেই বানাতেন ভাপা পিঠে। ইডলি স্ট্যান্ড না থাকলেও এভাবে বানিয়ে নিতে পারেন ভাপা পিঠে।

ভাজা পুলি ও সিদ্ধ পুলি

এমনিতে পিঠে পরিবারের লোকজন একটু ক্যালরি কনসাস। তেলের থেকে কিছুটা দূরে দূরে থাকতেই পছন্দ করে তারা। কিন্তু সব পরিবারেই তো একজন দু`জন `নিয়মহারা হিসাবহীন` সদস্যরা থাকেন। ভাজা পুলি অনেকটা সেই ক্যাটগরিতেই পড়ে।

সরু চাকলি

সরু চাকলিকে বলা হয় বাঙালিদের ধোসা। চাল আর ডাল বাটার মিশ্রণে উপাদেও সরু চাকলি পিঠের মর্যাদা পেলেও বানানোর ঝক্কি প্রায় নেই বললেই চলে। সঙ্গে একবাটি মিষ্টি ঝোলা গুড় সরু চাকলির মহিমা বাড়িয়ে দেয় কয়েক গুণ।

দুধ পুলি

পিঠে সিসনের ওপেনিং ব্যাটিংটা সবসময় দুধপুলিই করতে আসে। এই ওপেনারের `পিঠেয়` কেরিয়ার সচিন তেন্ডুলকরকেও লজ্জা দেবে। নতুন গুড় মেশানো দুধের মধ্যে নারকেল পুরের সাদা সাদা পুলি পিঠের সোহাগি সাঁতার চোখ আর মনকে তৃপ্ত তো করেই, তার সঙ্গে জিভের জন্য যে অ-সাধারণ স্বাদের জোগান দেয় তার সঠিক বর্ণনা বোধহয় শুধুমাত্র জিভের স্বাদকোরক গুলোর কাছেই লুকিয়ে থাকে।

পাটিসাপটা

পৌষ সংক্রান্তি এসে গেল। এই সময়টা এলেই মনটা কেমন পিঠে পিঠে করে ওঠে। নলেন গুড়ের পিঠে না খেলে আর বাঙালির শীতকাল কি! আর পিঠের রাজা পাটিসাপটা। চালের গুঁড়োর মোড়কে পিঠের কামড়ে কামড়ে পাওয়া যায় গুড়, নারকেলের পুর। ক্ষীরের পাটিসাপটাও সমান লোভনীয়। দু`রকম রেসিপিই তুলে দিলাম আপনাদের জন্য।

মিল্ক কেক

ক্রিসমাস, নিউইয়ার কেটে যেতেই বাঙালিরা ব্যস্ত হয়ে পড়ে পৌষপার্বনের ব্যবস্থাপনায়। পৌষসংক্রান্তি মানেই হরেকরকম পিঠেপুলি আর মিষ্টির সম্ভার। পিঠে বানাতে যেরকম সময় লাগে, সেরকমই লাগে দক্ষতা। চাই বহুক্ষণ ধরে পাক দেওয়ার ধৈর্যও। তাই আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এলাম সহজ মিষ্টির রেসিপি মিল্ক কেক। বানাতে সময় যেরকম কম লাগে, তেমনই পদ্ধতিও খুব সহজ। আর স্বাদ? একবার বানিয়েই দেখুন না।