পাটিসাপটা

পাটিসাপটা

পাটিসাপটাপৌষ সংক্রান্তি এসে গেল। এই সময়টা এলেই মনটা কেমন পিঠে পিঠে করে ওঠে। নলেন গুড়ের পিঠে না খেলে আর বাঙালির শীতকাল কি! আর পিঠের রাজা পাটিসাপটা। চালের গুঁড়োর মোড়কে পিঠের কামড়ে কামড়ে পাওয়া যায় গুড়, নারকেলের পুর। ক্ষীরের পাটিসাপটাও সমান লোভনীয়। দু`রকম রেসিপিই তুলে দিলাম আপনাদের জন্য।

নারকেল পাটিসাপটা

কী কী লাগবে

যে কোনও সুগন্ধি আতপ চালের গুঁড়ো- ২৫০ গ্রাম
ময়দা-২৫০ গ্রাম
মিহি করে কোরানো নারকেল-১ কাপ
খেজুড় গুড়- ১৫০ গ্রাম
দুধ- ২ কাপ
ভাজার জন্য সাদা তেল

কীভাবে বানাবেন

প্রথমে গুড় আর লারকেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। কড়াইতে তেল দিয়ে ঢিমে আঁচে নারকেল, গুড়ের মিশ্রণ দিয়ে পাক দিন। সুন্দর গন্ধ বেরোলে এক কাপ দুধ দিয়ে আঁচ বাড়িয়ে ভাল করে পাক দিন। পুর আঠালো হয়ে কড়াইয়ের গা ছেড়ে এলে নামিয়ে নিন। ক্রমাগত নাড়তে থাকবেন। খেয়াল রাখবেন পুর যেন কড়াইতে লেগে না যায়।

এবারে চালের গুঁড়ো, গুড় ও দুধ দিয়ে ঘন গোলা তৈরি করুন। গোলা বেশি পাতলা হলে পিঠে ভাজার সময় চাটুতে লেগে যাবে। ননস্টিক প্যানে অল্প তেল দিয়ে প্যানে ছড়িয়ে দিন। হাতায় করে গোলা তুলে প্যানে দিয়ে হাতার পিছন দিয়ে ছড়িয়ে দিন। মাঝখানে লম্বা করে নারকেলের পুর দিয়ে কাঠের হাতা দিয়ে পাটিসাপটা রোল করে নিন। পিঠে ভাজার পুরো পদ্ধতিটাই কিন্তু একদম ঢিমে আঁচে হবে। প্রতিটা পিঠে ভেজে তোলার পর পাতলা ন্যাকড়া দিয়ে ননস্টিক প্যান একটু মুছে নিয়ে পরের পিঠের জন্য তেল দেবেন।
পাটিসাপটা
ক্ষীরের পাটিসাপটা

কী কী লাগবে


খোয়া ক্ষীর-১৫০ গ্রাম
সুগন্ধি আতপ চালের গুঁড়ো- ২৫০ গ্রাম
ময়দা-২৫০ গ্রাম
খেজুড় গুড়- ১৫০ গ্রাম
দুধ- ১ কাপের একটু বেশি
ভাজার জন্য সাদা তেল

কীভাবে বানাবেন

ক্ষীর আর গুড় একসঙ্গে মিশিয় অল্প দুধ দিয়ে একটু পাতলা করে নিন। কড়াইতে তেল দিয়ে ঢিমে আঁচে ক্ষীর, গুড়ের মিশ্রণ পাক দিয়ে নিন। আঠালো হয়ে গা ছেড়ে এলে নামিয়ে ফেলুন। পাক দেওয়ার সময় ক্রমাগত নাড়তে থাকবেন।

চালের গুঁড়ো, ময়দা, গুড় ও দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন গোলা তৈরি করুন। ননস্টিক প্যানে অল্প তেল দিয়ে প্যানে ছড়িয়ে দিন। হাতায় করে গোলা তুলে প্যানে দিয়ে হাতার পিছন দিয়ে ছড়িয়ে দিন। মাঝখানে লম্বা করে ক্ষীরের পুর দিয়ে কাঠের হাতা দিয়ে পাটিসাপটা রোল করে নিন।







First Published: Sunday, January 13, 2013, 15:21


comments powered by Disqus