২১ শে জুলাইয়ের ১৩ জন শহিদ

২১ শে জুলাইয়ের ১৩ জন শহিদ

সালটা ছিল ১৯৯৩। দিনটি ছিল আজকেরই দিন, ২১ জুলাই। ভিক্টোরিয়া হাউসের সামনে প্রতিবাদ কর্মসূচি নিয়েছিল তৎকালীন প্রদেশ কংগ্রেস। তখনও তৃণমূল কংগ্রেস তৈরি হয়নি। প্রতিবাদ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন সেই সময়ের যুব কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেদিন মহাকরণ অভিযান কর্মসূচীতে সামিল ছিলেন বর্তমান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ও। সেই দিনে ওই কর্মসূচীতে পুলিসের গুলিতে শহিদ হয়েছিলেন ১৩ জন কংগ্রেস কর্মী। এরপর থেকেই প্রতিদিন ১৩ জন শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জনসভা করে তৃণমূল কংগ্রেস। যদিও ভোট লুঠের প্রতিবাদে এই সভা হওয়ার কথা ছিল ১৪ জুলাই। কিন্তু সেবছর ১২ জুলাই প্রাক্তন রাজ্যপাল নুরুল হাসানের মৃত্যুর জন্য কর্মসূচী নেওয়া হয় ২১ জুলাই। সেই থেকে এই দিনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই সভা আয়োজিত হয়ে আসছে। দুই দশকেরও বেশি সময়, ২৩ বছর ধরে ২১ শে জুলাই শহিদ দিবস পালন করা হয়।  

মহাকরণ অভিযানে ডিওয়াইএফআই

রাজ্যজুড়ে বেকারদের কাজের দাবিতে আজ মহাকরণ অভিযান করছে ডিওয়াইএফআই সহ আটটি বাম যুব সংগঠন। বেলা আড়াইটে নাগাদ কলেজ স্ট্রিট থেকে তাদের মিছিল শুরু হয়। মিছিল যাবে মহাকরণের উদ্দেশে।

বেকারদের দাবি নিয়ে মহাকরণ অভিযানে বাম যুব সংগঠন

বেকারদের চাকরির দাবি নিয়ে ২৫ এপ্রিল মহাকরণ অভিযান করবে ৮টি বাম যুব সংগঠন। একইসঙ্গে পুলিস হেফাজতে সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর বিচারবিভাগীয় তদন্তেরও দাবি তুলবেন তাঁরা। ২ এপ্রিল বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলির আইন অমান্য আন্দোলনের পর এবার পথে নামছে ৮টি বাম যুব সংগঠন। কলেজ স্ট্রীট থেকে মিছিল করে মহাকরণে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে নিজেদের দাবিসনদ তুলে দিতে চান তাঁরা।

কাল কংগ্রেসের মহাকরণ অভিযান

কংগ্রেসের মহাকরণ অভিযানকে কেন্দ্র করে ক্রমশ চড়ছে উত্তেজনার পারদ। বুধবারই উত্তরবঙ্গ থেকে কয়েকহাজার কংগ্রেস কর্মী এসে পৌঁছেছেন কলকাতায়। কংগ্রেসের টার্গেট, ৫০ হাজার কর্মী নিয়ে মহাকরণের পথে হাঁটবেন তাঁরা। যদি বাধা দেওয়ার চেষ্টা হয় তাহলে পরিস্থিতির জন্য যে দায়ী থাকবে রাজ্য সরকার সেই হুমকিও কংগ্রেসের গলায়।

১০ জানুয়ারি মহাকরণ অভিযানের ডাক কংগ্রেসের

লালগড়, তেহট্টের পর এবার `মহাকরণ চলো`র ডাক দিল কংগ্রেস। পুলিসের গুলিচালানো ও রাজ্য সরকারের চরম ব্যর্থতার প্রতিবাদে, আগামী ১০ জানুয়ারি কংগ্রেসের মহাকরণ অভিযান। তেহট্টে পুলিসের গুলি চালানোর ঘটনায়, ফের সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হয়েছেন দীপা দাশমুন্সি-প্রদীপ ভট্টাচার্যরা।