জায়ান্ট পান্ডার দেখভালে বছরে মিলবে ২ লক্ষ ইউয়ান বেতন

বেতন বছরে দু লক্ষ ইউয়ান। কাজ? জায়ান্ট পান্ডাদের দেখভাল। আর এমনই এক বিজ্ঞাপন নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে চিনের সিচুয়ান প্রদেশে। জায়ান্ট পান্ডার সংরক্ষণ আর গবেষণা। দুটোই হয় এখানে। এই সংরক্ষণ কেন্দ্রে রয়েছে একশো ষাটটি জায়ান্ট পান্ডা।

ঝর্ণার জল থেকে গাছের পাতা, বরফে মোড়া প্রকৃতির নৈস্বর্গিকতা উপলব্ধি করতে চিনের সিচুয়ানে পর্যটকের ভিড়

ঝর্ণার জল থেকে শুরু করে গাছের পাতা। কোনও কিছুই এখানে নড়ে না। প্রকৃতি যেন একেবারে স্তব্ধ। আর সেই স্তব্ধতার নৈস্বর্গিক অনুভুতি উপলব্ধি করতে, প্রতি বছর দক্ষিণ পশ্চিম চিনের সিচুয়ান প্রদেশে হাজির হন দেশ বিদেশের পর্যটকরা। কারণ জিউঝাইগৌ উপত্যকায় শুরু হয়েছে বরফ উত্‍সব। চলবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

আকাশ ছোঁয়া, পৃথিবীর উচ্চতম বিমানবন্দর তৈরি করল চিন

পর্যটনের নতুন দিগন্ত ছোঁয়ার আশায় সিচুয়ান প্রদেশে আকাশ ছোঁয়া বিমানবন্দর তৈরি করল চিন। গার্জিতে অবস্থিত এই দাওচেং ইয়াডিং বিমানবন্দর সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ৪,৩৩৪ মিটার উঁচু। পৃথিবীতে উচ্চতম। বাকি চিনের সঙ্গে সিচুয়ান প্রদেশের রাজধানী চেংদুতে পৌঁছানোর সময়সীমাও কমিয়ে দেবে এই বিমানবন্দর।

চিনের ভয়াবহ ভূমিকম্পে মৃত অন্তত ১৯৫, আহত ১০,৫০০

চিনের সিচুয়ান প্রদেশে ভূমিকম্পে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১৯৫ জনের। আহতদের সংখ্যা প্রায় ১০,৫০০ জন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রশাসনের তরফে শুরু হয়েছে উদ্ধারকাজ। রয়েছেন সেনাবাহিনীর জওয়ানারাও।

তীব্র ভূমিকম্পে চিনে মৃত ১১৩, আহত অন্ত্যত ৩০০০

তীব্র ভূকম্পনে কেঁপে উঠল চিন। শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা দুই নাগাদ দক্ষিণ পশ্চিম চিনের সিচুয়ান প্রদেশে এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ইতিমধ্যেই ১১৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। গুরুতর আহত ৩০০০-র বেশি মানুষ। হতাহতের সংখ্যা বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত,  ২০০৮-এ এই সিচুয়ান প্রদেশেই ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রাণ হারিয়েছিলেন ৯০,০০০ মানুষ।