ব্যালকনিতে সিংহ শাবক

Last Updated: Saturday, October 8, 2011 - 16:56

দিনের আলোয় কাকের তাড়া খেয়ে প্যাঁচার ছানা ঘরের ব্যালকনিতে আসতেই পারে। মাছের গন্ধে ব্যালকনিতে এসে বসে থাকতে পারে পাড়া চষে বেড়ানো গুঁফো বিড়াল। কিন্তু ব্যালকনিতে যদি বসে থাকে সিংহ শাবক, তাহলে! শুনে অবাক লাগলেও এমনই ঘটেছে লেবাননের বেইরুটে। তবে অতিথি এখানে অনাহুত নয়। বাড়ির পোষ্য। ব্যালকনি থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে গিয়েছে একটি পশু কল্যাণ সংস্থা।স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম বা বিমান বন্দরের ক্লোকরুম নয়। চোরা কারবারিদের হাত ঘুরে আসা সিংহ শাবক মিলল একেবারে গৃহস্থের ব্যালকনি থেকে। লেবাননের বেইরুট শহরের একটি বাড়ি থেকে এক সিংহ শাবককে উদ্ধার করেছে অ্যানিমেলস লেবানন নামের একটি পশু কল্যাণ সংস্থা। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, পাঁচ সপ্তাহের শাবকটি আফ্রিকান লায়ন। পশু বিষেশজ্ঞদের ধারণা, সিরিয়া থেকে শাবকটিকে আনা হয়েছে। কিন্তু গৃহস্থ বাড়ির চৌহদ্দিতে তার দেখা মিলল কীভাবে? উত্তর দিতে গিয়ে পশু বিশেষজ্ঞরা এক বড় বিপদের কথা শুনিয়েছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, গত কয়েক বছরে লেবাননের নাগরিকদের মধ্যে সিংহ পোষার শখ ব্যাপক ভাবে বেড়েছে। তাদের সেই চাহিদা মেটাতে চোরাকারবারিদের হাত ধরে সিরিয়া থেকে সিংহ আসছে লেবাননে। এই অসাধু কারবার রমরমিয়ে চলছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। পশু বিশেষজ্ঞদের অভিযোগ, গৃহস্থের শখ মেটাতে সিংহ আসছে অনেক। কিন্তু তার বেশিরভাগই বাঁচছে না। অ্যানিমেলস লেবানন সংস্থার এগজিকিউটিভ ডিরেক্টর জ্যাসন মায়ার জানিয়েছেন, কী করে সিংহের পরিচর্যা করতে হয়, তা বেশিরভাগ মানুষ জানেন না। তার সঙ্গে রয়েছে উপযুক্ত ও পর্যাপ্ত খাবারের অভাব। লেবাননের অনেক চিড়িয়াখানায় ডজন ডজন সিংহ আনা হচ্ছে। কিন্তু পরিচর্যার অভাবে তার বেশির ভাগই মারা যাচ্ছে। কিন্তু বেছে বেছে লেবাননেই এত সিংহ আসছে কেন? পশু বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বিপন্ন প্রজাতির প্রাণীর ব্যবসা নিয়ে যে আন্তর্জাতিক চুক্তি হয়েছিল, তাতে সিংহকে এনডেঞ্জারড স্পিসিসের তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। লেবানন সরকার সেই চুক্তিতে সই করেনি। ফলে লেবাননের মাটি এখন সিংহের অবৈধ ব্যবসার মুক্তাঞ্চল। মানুষের শখ মেটাতে গিয়ে আফ্রিকার রাজার এখন যাইযাই অবস্থা। আফ্রিকা বলতেই ঘন কেশরওয়ালা যে সিংহের ছবি আমাদের সামনে ভেসে ওঠে, কমতে কমতে তার সংখ্যা এখন চল্লিশ হাজারে গিয়ে ঠেকেছে। গত বাইশ বছরে আফ্রিকায় আটচল্লিশ শতাংশ সিংহ মারা গিয়েছে। বেইরুটের ব্যালকনি থেকে উদ্ধার হওয়া সিংহ শাবকের বরাত সেদিক দিয়ে ভাল। পশুপ্রেমীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় চিড়িয়াখানায় পাঠিয়েছেন। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে শাবকটিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠিয়ে দেওয়া সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তাঁরা।



First Published: Saturday, October 8, 2011 - 16:56
TAGS:


comments powered by Disqus