'রক্তপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক', শহরের 'ড্রাকুলা স্যার'-এর থেকে সাবধান করছেন মিমি!

 শহরের এক 'ড্রাকুলা স্যার'-এর পোস্টারে উঠে এল এমনই সতর্কবার্তা...

Edited By: রণিতা গোস্বামী | Updated By: Mar 13, 2020, 01:54 PM IST
'রক্তপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক', শহরের 'ড্রাকুলা স্যার'-এর থেকে সাবধান করছেন মিমি!

নিজস্ব প্রতিবেদন : 'ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক' স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। এই সতর্কীকরণ প্রত্যেক সিনেমার শুরুতে দেখতে দেখতে আমরা অভ্যস্ত। তবে এই সতর্কীকরণ বদলে গিয়ে যদি লেখা থাকে 'রক্তপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক'। তাহলে হয়ত আপনিও চমকে যাবেন। তবে শহরের এক 'ড্রাকুলা স্যার'-এর পোস্টারে উঠে এল এমনই সতর্কবার্তা।

'ড্রাকুলা স্যার'-এর পোস্টারে রক্ত মাখা ঠোঁটে দেখা দিয়েছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। ঠোঁটের দুই ধার দিয়ে বেরিয়ে পড়েছে লম্বা লম্বা দুটো দাঁত। হঠাৎ করে তাঁকে এই চেহারায় দেখে হয়ত আপনিও ভয় পেয়ে যাবেন। অন্যদিকে মিমি চক্রবর্তীকে দেখা যাচ্ছে হাতে ল্যাম্প হাতে। ১ মে মুক্তি পাবে অনির্বাণ-মিমি অভিনীত এই ছবি। বৃহস্পতিবার সকালে 'রক্তপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক' জানিয়ে বিকেলে রক্তপানের কারণ জানতে পারবেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন। আর বৃহস্পতিবার বিকেলেই প্রকাশ্যে আনা হয় ছবির পোস্টার।

আরও পড়ুন-করোনা-ই কাল, দেখা করা বন্ধ সৃজিত-মিথিলার

আরও পড়ুন-সৃজিতের সঙ্গে থাকতে ভারতীয় নাগরিকত্ব নেবেন? মিথিলা বললেন...

SVF-এর প্রযোজনা মিমির নতুন ছবির পরিচালক হলেন দেবালয় ভট্টাচার্য। ড্রাকুলা স্যার ছবিতে মিমির চরিত্রের নাম মঞ্জরী, আর ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করতে চলা অনির্বাণের চরিত্রের নাম রক্তিম, যিনি একজন প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। যাঁর সামনের দুটো দাঁত উঁচু হওয়ার কারণেই তাঁকে সকলে 'ড্রাকুলা স্যর' বলে ডাকে। শিক্ষক রক্তিমে কথায় উঠে আসে ১৯৭১ সালে ঘটে যাওয়া তাঁর জীবনের বেশকিছু ঘটনা। জড়িয়ে রয়েছে তাঁর ভালোবাসা ও প্রতিশোধ নেওয়ার কিছু কাহিনী।

এর আগে 'ড্রাকুলা স্যর' প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে পরিচালক দেবালয় ভট্টাচার্য জানান, ''এই ছবিতে এমন এক ড্রাকুলার গল্প বলা হবে যাঁর কোনও প্রাসাদ নেই, সে নিজেই নিজের গল্প বানাবে। ছবিতে মিমির যে চরিত্রটি তুলে ধরা হবে, যাঁর মধ্যে একটা চাপা দুঃখ লুকিয়ে রয়েছে। মিমিকে এর আগে পর্দায় এভাবে কেউ তুলে ধরেনি। মিমির মঞ্জরী চরিত্রটিও ১৯৭১-এর একটি চরিত্র। সেই 'গানের ওপারে' র সময় থেকেই মিমি আমার ভীষণ পছন্দের। আমি ভাগ্যবান যে মিমি যখন পর্দায় ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ঠিক তখনই আমি ওকে আমার ছবির মঞ্জরীর ভূমিকার জন্য বেছে নিতে পেরেছি। ''

ছবির মুখ্য অভিনেতা অনির্বাণের কথা বলতে গিয়ে পরিচালক দেবালয় ভট্টাচার্য বলেন, ''ছবিতে রক্তিমের চরিত্রটির জন্য অনির্বাণই আমার প্রথম ও শেষ পছন্দ। ওর চরিত্রটি একটি Lager Than Life একটি চরিত্র। বর্তমানে অনির্বাণ ভীষণই জনপ্রিয় একটি মুখ। ওকে আমার ছবিতে নিতে পেরে আমি খুব খুশি।''