আর কয়েক সপ্তাহের অপেক্ষা! রেমডিসিভিরের ১ লক্ষ ডোজ বাজারে ছাড়বে ভারতের হেটেরো ল্যাব!

হেটেরো ল্যাবের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জানান, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই রেমডিসিভিরের জেনেরিক ওষুধ Covifor নামে বাজারে আনতে চলেছে সংস্থা।

Edited By: সুদীপ দে | Updated By: Jun 23, 2020, 08:18 PM IST
আর কয়েক সপ্তাহের অপেক্ষা! রেমডিসিভিরের ১ লক্ষ ডোজ বাজারে ছাড়বে ভারতের হেটেরো ল্যাব!

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনার চিকিৎসায় নতুন শক্তিশালী ওষুধ Cipremi ইতিমধ্যেই লঞ্চ করেছে ভারতের প্রথম সারির ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা সিপলা (Cipla)। এটি আসলে ‘গিলেড সায়েন্স’-এর তৈরি রেমডিসিভিরের জেনেরিক ওষুধ যা Cipremi নামে বাজারে আনল সিপলা। সিপলার পরেই আগামী এক মাসের মধ্যেই রেমডিসিভিরের ১ লক্ষ ডোজ বাজারে ছাড়ার কথা ঘোষণা করল ভারতের আর এক নামী ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা হেটেরো ল্যাব (Hetero Labs Ltd)।

হেটেরো ল্যাবের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডঃ বংশী কৃষ্ণ বুন্দি জানান, আগামী ৩-৪ সপ্তাহের মধ্যে রেমডিসিভিরের জেনেরিক ওষুধ Covifor নামে বাজারে আনতে চলেছে সংস্থা। তিনি জানান, Covifor হল ১০০ মিলিগ্রামের একটি ইনজেকশন যার একেকটি ডোজের দাম মোটামুটি ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা। রোগীকে পর পর পাঁচ দিন দেওয়ার পর Covifor-এর ‘কোর্স’ সম্পূর্ণ হবে। অর্থাৎ, Covifor-এর সাহায্যে করোনার চিকিৎসার আনুমানিক খরচ ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। সংস্থা জানিয়েছে, মুম্বই আর দিল্লিকেই এই ওষুধ দেওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কারণ, এই দুই শহরের করোনা পরিস্থিতি দেশের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ।

করোনার চিকিৎসায় গোটা বিশ্বে আশা জাগিয়েছে মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়েন্ট ‘গিলেড সায়েন্স’-এর তৈরি রেমডিসিভির। ভারতের সিপলা (Cipla), হেটেরো ল্যাব (Hetero Labs Ltd) আর জুবিল্যান্ট লাইফ (Jubilant Life)-কে রেমডেসিভির তৈরির অনুমতি দিয়েছে ‘গিলেড সায়েন্স’।

আরও পড়ুন: করোনার চিকিৎসায় নতুন ‘অস্ত্র’ হাতে পেল ভারত! শক্তিশালী ওষুধ Cipremi বাজারে ছাড়ল Cipla

এই তিন সংস্থার মধ্যে সিপলা (Cipla) আর হেটেরো ল্যাব (Hetero Labs Ltd) সরাসরি রেমডেসিভির উৎপাদনের অনুমতি চেয়েছিল কেন্দ্রের ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল (Drug Controller General of India) বোর্ডের কাছে। দেশের করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে অনুমতিও দেওয়া হয় এই দুই সংস্থাকে। অনুমতি মেলার এক মাসের মধ্যেই করোনার চিকিৎসায় রেমডিসিভিরের জেনেরিক ওষুধ Cipremi বাজারে ছেড়েছে সিপলা (Cipla)। আর পরবর্তী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই আরও ১ লক্ষ ডোজ বাজারে ছাড়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগোচ্ছে হেটেরো ল্যাব (Hetero Labs Ltd)।