মাত্র ১৫ সেকন্ডেই করোনা জীবানু ধ্বংস করতে পারে সহজলভ্য উপাদানে তৈরি এই দ্রবণ! দাবি বিজ্ঞানীদের

বিজ্ঞানীদের দাবি, অত্যন্ত সহজলভ্য রাসায়নিক উপাদান মিশ্রিত এই দ্রবণ মাত্র ১৫ সেকন্ডেই করোনা জীবানু সম্পূর্ণ রূপে ধ্বংস করতে পারে! 

Edited By: সুদীপ দে | Updated By: Sep 20, 2020, 02:55 PM IST
মাত্র ১৫ সেকন্ডেই করোনা জীবানু ধ্বংস করতে পারে সহজলভ্য উপাদানে তৈরি এই দ্রবণ! দাবি বিজ্ঞানীদের
—প্রতীকী চিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতির ক্রমশ অবনতি হচ্ছে। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা। পিছিয়ে নেই ভারতও। গত ক'দিনে ভারতে রেকর্ড সংখ্যক মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। রোজই প্রায় এক লক্ষের কাছাকাছি নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে আশা জাগাচ্ছে সাম্প্রতিক একটি গবেষণার রিপোর্ট।

ওই গবেষণাপত্রে একদল বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, অত্যন্ত সহজলভ্য রাসায়নিক উপাদান মিশ্রিত একটি দ্রবণ মাত্র ১৫ সেকন্ডেই করোনা জীবানু ধ্বংস করতে পারে! সহজলভ্য ওই রাসায়নিক উপাদানটি হল আয়োডিন (Iodine)।

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব কানেকটিকাট স্কুল অব মেডিসিন (University of Connecticut School of Medicine)-এর একদল গবেষক জানান, তিনটি পৃথক মাত্রায় পোভিডোন-আয়োডিনের দ্রবণ করোনাভাইরাস কণার উপর প্রয়োগ করে দেখেছেন। তাঁদের দাবি, মাত্র ১৫ সেকন্ডের মধ্যেই করোনা জীবানুকে সমূলে ধ্বংস করতে পারে। সম্প্রতি ‘জামা ওটোলারিঙ্গোলজি’ (JAMA otolaryngology)-এর ডিজিটাল সংস্করণে এই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত বিশ্বের অধিকাংশ করোনা সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে নাক ও গলার মাধ্যমে। নাক ও গলা থেকে ভাইরাস কণা সংক্রমিত হয়েছে শরীরের বিভিন্ন অংশে। মার্কিন গবেষকদের দাবি, এই দ্রবণের সাহায্যে নাক ও মুখ ভাল করে পরিষ্কার করে নিতে পারলে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি অনেকাংশেই এড়ানো সম্ভব। তাঁদের দাবি, নাজাল স্প্রে বা মাউথওয়াশের মতো নির্দিষ্ট মাত্রার আয়োডিনের দ্রবণ মাত্র ১৫ সেকন্ডের মধ্যেই করোনা জীবানুকে সম্পূর্ণ রূপে ধ্বংস করতে সক্ষম।

আরও পড়ুন: করোনা সংক্রমণের ভয়াবহতা থেকে সুরক্ষা দিতে পারে ইলিশের তেল! গবেষণায় মিলল প্রমাণ

তবে বাড়িতে অবৈজ্ঞানিক উপায়ে আয়োডিনের দ্রবণ ব্যবহার করে নাক ও মুখ জীবানুমুক্ত করার চেষ্টা অত্যন্ত বিপজ্জনক হতে পারে বলে সতর্ক করেছেন মার্কিন বিজ্ঞানীরা। তাঁরা জানান, কী ভাবে এই দ্রবণকে নাক ও মুখ জীবানুমুক্ত করার কাজে ব্যবহারোপযোগী করে তোলা যায়, বর্তমানে সে বিষয়েই গবেষণা চালাচ্ছেন তাঁরা।