সংবাদপত্রের মাধ্যমেও কি ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনাভাইরাস?

এ ধারণা কতটা সত্যি? আসুন জেনে নেওয়া যাক এ বিষয়ে ঠিক কী বলছেন চিকিৎসকেরা...

Edited By: সুদীপ দে | Updated By: Mar 24, 2020, 01:30 PM IST
সংবাদপত্রের মাধ্যমেও কি ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনাভাইরাস?

নিজস্ব প্রতিবেদন: এ পর্যন্ত গোটা বিশ্বে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮০ জন। এ পর্যন্ত ১৬,৫২৪ জনের প্রাণ কেড়েছে এই ভাইরাস। এই ভাইরাসে ভারতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এ পর্যন্ত ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯৯ আর মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের। করোনা আতঙ্কের পাশাপাশি ছড়িয়ে পড়ছে একাধিক গুজব আর ভ্রান্ত ধারণাও যা বিভ্রান্ত করছে লক্ষ লক্ষ সাধারণ মানুষকে। যেমন, ইদানীং শোনা যাচ্ছে, সংবাদপত্র বা অনলাইনে কেনা জিনিসের মাধ্যমে নাকি ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস!

এই খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে অনেকেই বাড়িতে সংবাদপত্র নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। ঘর-বন্দি থেকেও অনলাইলে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনাকাটার ঝুঁকি নিচ্ছেন না। উল্টে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তায় বেরচ্ছেন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে। কিন্তু এ ধারণা কতটা সত্যি? আসুন জেনে নেওয়া যাক এ বিষয়ে ঠিক কী বলছেন চিকিৎসকেরা...

চিকিৎসক ডঃ অনুপ কুমার জানিয়েছেন, বিনা যুক্তিতেই বলা হয়েছে যে সংবাদপত্র থেকে ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস। যদি কোনও ব্যক্তি ভিড়ের মধ্যে গিয়ে সংবাদপত্র পড়েন, তাহলে সেখান থেকে এই ভাইরাস ছড়াতে পারে। কিন্তু কিন্তু সেই ব্যক্তি যদি নিজের বাড়িতে আলাদা হয়ে সংবাদপত্র ব্যবহার করেন তাহলে কোনও ভাবেই এই ভাইরাস ছড়ায় না। তাই বারবার বলা হয়েছিল ভিড় এড়িয়ে চলার কথা। এই তথ্য একেবারেই ভুল যে সংবাদপত্র থেকে করোনাভাইরাস ছড়ায়। সংবাদপত্র থেকে কোনও ভাবেই এই ভাইরাস ছড়ায় না বলেই মত ডঃ কুমারের।

আরও পড়ুন: মদ্যপান করলে কি ঠেকানো যাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ? জেনে নিন কী বলছে WHO

ডঃ ওম শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, সংবাদপত্র বা অনলাইনে কেনা জিনিস থেকে করোনাভাইরাস ছড়ায়— এই তত্বটির সত্যতাই সবচেয়ে আগে প্রমাণ করতে হবে।

ডঃ অনুপ মিশ্র জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত কোনও গবেষণায় প্রমাণ হয়নি যে সংবাদপত্রের মধ্যে করোনাভাইরাস সজীব থাকে এবং সংবাদপত্রের মাধ্যমে ছড়াতে পারে এই ভাইরাস।

ডঃ ভি রবি জানিয়েছেন, এই মারণ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে প্রত্যেকেই নিয়মিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হ্যান্ড ওয়াশ ব্যবহার করছেন আর তার পরেই হয়তো মুখে হাত দিচ্ছেন। তার পরেও অনেকে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। আসলে অসাবধান হলে যে কোনও জিনিস থেকেই ছড়াতে পারে এই ভাইরাস। শুধু যে সংবাদপত্র থেকেই এই ভাইরাস ছড়াতে পারে এর কোনও মানে নেই। সুতরাং, আগে প্রমাণ করতে হবে যে সংবাদপত্র বা অনলাইনে কেনা কোনও জিনিস থেকেই একমাত্র ছড়াচ্ছে ভাইরাস।

এইমসের ডিরেক্টর ডঃ রণদীপ গুলেরিয়া জানিয়েছেন, ভাইরাস বেশি ক্ষণ কাগজের উপরে সজীব থাকতে পারে না। তাই কোনও ভাবেই বলা যায় না যে সংবাদপত্রের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। সুতরাং, গুজবে কান দিতে বারণ করেছেন তিনি।