Dilip-র জায়গায় BJP-র রাজ্য সভাপতি পদে 'বাংলার মেয়ে'কে চাইছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব!

রাজ্য সভাপতি পদে দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) মেয়াদ হচ্ছে চলতি বছর ডিসেম্বরে। 

Updated By: Jun 15, 2021, 06:03 PM IST
Dilip-র জায়গায় BJP-র রাজ্য সভাপতি পদে 'বাংলার মেয়ে'কে চাইছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব!

নিজস্ব প্রতিবেদন: চলতি বছর বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদে মেয়াদ হচ্ছে দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh)। বিজেপির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, তাঁর পুনর্নির্বাচনের সম্ভাবনা নেই। ফলে নতুন সভাপতি পেতে চলেছে রাজ্য সভাপতি। দিলীপের স্থলাভিষিক্ত হবেন কে? রাজ্য বিজেপি সূত্রে খবর,রাজ্যের সংগঠনের দায়িত্ব দলের মহিলা নেত্রীর হাতে দেওয়ার ভাবনাচিন্তা করছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। 

রাজ্য সভাপতি পদে দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) মেয়াদ হচ্ছে চলতি বছর ডিসেম্বরে। বিজেপির গঠনতন্ত্র বলছে, পরপর দুবার অথবা সর্বোচ্চ ৬ বছর সভাপতির আসনে থাকা যায়। দিলীপের অভিষেক হয়েছিল ২০১৫-র ডিসেম্বরে। ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনের আগে সাংগঠনিক রদবদল করেনি বিজেপি। ফলত মেয়াদ বৃদ্ধি হয় রাজ্য সভাপতির। ২০২০-র জানুয়ারিতে দ্বিতীয়বার সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। সেই হিসেবে দিলীপের থাকার কথা ২০২৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত। কিন্তু সভাপতি পদের ৬ বছরের মেয়াদ পূর্ণ হচ্ছে চলতি বছর ডিসেম্বরে। এই অবস্থায় দিলীপের পরিবর্তে কে, তা নিয়ে শুরু হয়েছে ভাবনাচিন্তা। বিজেপির সূত্রে প্রাথমিক খবর, 'বাংলার মেয়ে'র বিরুদ্ধে 'বাংলার মেয়ে'কেই নামানোর তোড়জোড় করছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। সেক্ষেত্রে দিলীপকে (Dilip Ghosh) করা হতে পারে কেন্দ্রীয় পূর্ণমন্ত্রী। 

বিজেপির একটি সূত্র বলছে, দেবশ্রী চৌধুরী (Debasree Chaudhuri) এবং লকেট চট্টোপাধ্যায় (Locket Chatterjee)- এই দুটি নাম নিয়ে চর্চা চলছে। দেবশ্রী রায়গঞ্জের সাংসদ ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী। আসন্ন মন্ত্রিসভার রদবদলে তাঁকে মন্ত্রিত্ব থেকে সরিয়ে রাজ্য সভানেত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। ভেসে আসছে লকেট চট্টোপাধ্যায়ের নামও। লকেট (Locket Chatterjee) হুগলির সাংসদ, উপরন্তু দীর্ঘদিন রাজ্যের মহিলা মোর্চার সভানেত্রী ছিলেন। বর্তমানে রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক। ফলে সংগঠন চালানোর অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ার আগে দেবশ্রীও ছিলেন রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক। 

বিধানসভা ভোটের পারফরম্যান্স ধরলে দেবশ্রীর (Debasree Chaudhuri) চেয়ে লকেট খানিকটা পিছিয়ে। তিনি নিজে প্রার্থী হয়ে হেরেছেন। তাঁর লোকসভা কেন্দ্রে একটাও আসন জিততে পারেনি বিজেপি। দেবশ্রী ভোটে লড়েননি। ফলে হার-জিতের প্রশ্নই নেই। তাঁর লোকসভা কেন্দ্রে ২টি আসন জিতেছে বিজেপি- রায়গঞ্জ ও কালিয়াগঞ্জ। উপনির্বাচনে হেরে যাওয়া কালিয়াগঞ্জ পুনরুদ্ধার করেছে গেরুয়া শিবির। প্রণিধানযোগ্য দেবশ্রীর পরিবার আরএসএসের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে যুক্ত। তিনি নিজেও সঙ্ঘের ঘরের মেয়ে। স্বাভাবিকভাবে রাজ্য সভানেত্রী হওয়ার দৌড়ে লকেটের চেয়ে দেবশ্রী এগিয়ে বলে মত বিজেপির একটি অংশের।  

বিজেপি একটা মহল মনে করছে, গত বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের সংখ্যাগরিষ্ঠ মহিলার ভোট গিয়েছে শাসক দলের দিকে। তৃণমূলেও যুবর দায়িত্বে এসেছেন সায়নী ঘোষের মতো তরুণ মুখ। স্বাভাবিকভাবে মহিলা নেত্রীকে সংগঠনের সম্মুখভাগে আনা তার রাজনৈতিক অভিঘাত জোরালো হবে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। যদিও মহিলা সভানেত্রী নিয়ে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। রাজ্য নেতারাও মুখ খুলতে নারাজ। 

আরও পড়ুন- Mukul-কে পদত্যাগের 'মঙ্গল-ক্ষণ' বেঁধে আইনি পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি Suvendu-র

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)