হাত দিয়ে মেরে, মুখ দিয়ে বলছে, 'লাগেনি তো'?

'আরে, লাগেনি তো'? লালবাজার অভিযান শেষ হতে না হতেই বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিজ্ঞাকে উর্দিধারী পুলিসের প্রশ্ন, 'তখন, লাগেনি তো'? 'তখন' বলতে যখন বিজেপি নেতা-কর্মী আর পুলিসের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তি চলছে। তারপর একগাল হাসি, একে একে পুলিসের উচ্চ পদস্থ কর্মচারিদের সঙ্গে করমর্দন করার পর মনোজ টিজ্ঞা পুলিসদের বললেন, 'পরে, দেখা হবে'... লালবাজার অভিযানের এই শেষ ফ্রেমটাই এখন বঙ্গ রাজনীতির চর্চার কেন্দ্রে।    

Updated By: May 29, 2017, 07:22 PM IST
হাত দিয়ে মেরে, মুখ দিয়ে বলছে, 'লাগেনি তো'?

কলকাতা, সৌরভ পাল: 'আরে, লাগেনি তো'? লালবাজার অভিযান শেষ হতে না হতেই বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিজ্ঞাকে উর্দিধারী পুলিসের প্রশ্ন, 'তখন, লাগেনি তো'? 'তখন' বলতে যখন বিজেপি নেতা-কর্মী আর পুলিসের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তি চলছে। তারপর একগাল হাসি, একে একে পুলিসের উচ্চ পদস্থ কর্মচারিদের সঙ্গে করমর্দন করার পর মনোজ টিজ্ঞা পুলিসদের বললেন, 'পরে, দেখা হবে'... লালবাজার অভিযানের এই শেষ ফ্রেমটাই এখন বঙ্গ রাজনীতির চর্চার কেন্দ্রে।    

পুলিসই মারছে, আবার পুলিসই বলছে, 'লাগেনি তো'? লালবাজার অভিযান কর্মসূচিকে ঘিরে বেন্টিংক স্ট্রিটে যখন পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তি চলছে রূপা এবং রাহুলের, মনে হচ্ছিল এই বুঝি 'ব্ল্যাক মানডে' ফিরছে। তবে সেটা হল না, আধ ঘণ্টা ধস্তাধস্তির পর রাজ্যসভার সাংসদ রূপা গাঙ্গুলী অসুস্থ হয়ে 'বিশ্রাম'-এর জন্য আড়ালে গেলেন। উল্লেখ্য, বিজেপি সমর্থকরাই 'দিদি'কে আড়াল করলেন। অন্যদিকে রাজ্যের একদা বিজেপি সভাপতি রাহুল সিনহা রাস্তায় বসে পুলিসের উপরে বিষদ্গার করে যাচ্ছেন। তখনও দিল্লিতে মোদী-মমতা বৈঠক শুরু হয়নি। 'নিয়ম মেনে' গ্রেফতার হলেন দুই নেতাই। রূপা-রাহুলকে নিয়ে অ্যাম্বুলেন্স বেন্টিংক স্ট্রিটের গণ্ডি পেরোতেই সব স্বাভাবিক, চলতে শুরু করল গাড়ি। এপর্যন্ত সবই ছিল অতিস্বাভাবিক।

কিন্ত 'তখন, লাগেনি তো?' এই ফ্রেমটাই কেবল অচেনা। একটা খণ্ডচিত্রই যে সামগ্রিক ঘটনার পরিচায়ক তা দাবি করা যায় না, তবে 'নাটক' কোন দিকে গড়াবে, তার ইঙ্গিত অবশ্যই দেয়। 'দিল্লিতে দোস্তি, রাজ্যে কুস্তি', মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ বরাবরই করেছে বামেরা। আজ যখন দিল্লিতে মোদী-মমতা বৈঠক করছেন, তখন একই সময়ে রাজ্যে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগছেন বিজেপি নেতা দীলিপ ঘোষ, রাহুল সিনহা, রাজ্যসভার সাংসদ রূপা, মহিলা মোর্চা নেত্রী লকেট। এই ছবি সামনে রেখেই 'ম্যাচ ফিক্সিং'-এর অভিযোগ করছে বামেরা। ৭২ ঘণ্টা আগে, বামেদের নবান্ন অভিযানে 'মমতার যে পুলিস' ৮ থেকে ৮০ সবার ওপরে লাঠি চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে, সেই পুলিসই আজ বিজেপির লালবাজার অভিযানে একবারে 'মমতাময়ী', অভিযোগ এমনটাই। আর উর্দিধারীদের এই আচরণেই প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি সত্যি 'মোদী ভাই, দিদি ভাই সেটিং হয়ে গেল'? এই প্রশ্নের উত্তর দেবে সময়ই। বিজেপি অবশ্য এই গোটা বিষয়কেই 'মমতার সিপিএমকে অক্সিজেন দেওয়া' বলে আক্রমণ হেনেছে। তৃণমূল এই বিষয়ে কোরাস সুরে বলেছে, 'প্রশাসন প্রশাসনের ভূমিকা পালন করছে'।