'আপনার রায় WITH অঞ্জন'-এ 'জয় শ্রী রাম' বিতর্ক গড়াল সায়নী-তথাগতর টুইট-যুদ্ধে

Zee ২৪ ঘণ্টার 'আপনার রায় WITH অঞ্জন' অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে এসেছিলেন সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh)। 'বাঙালি অস্মিতা' নিয়ে বলতে গিয়ে জয় শ্রী রাম টেনে আনেন।

Updated By: Jan 15, 2021, 05:31 PM IST
'আপনার রায় WITH অঞ্জন'-এ 'জয় শ্রী রাম' বিতর্ক গড়াল সায়নী-তথাগতর টুইট-যুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদন: কথা হচ্ছিল 'বাঙালি অস্মিতা' নিয়ে। সেই প্রসঙ্গেই 'জয় শ্রী রাম' ধ্বনি নিয়ে মন্তব্য করেন অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh)। Zee ২৪ ঘণ্টায় 'আপনার রায় WITH অঞ্জন'-এ সায়নীর সেই মন্তব্যের জের গড়াল টুইটারে। অভিনেত্রীর সঙ্গে রীতিমতো টুইট-যুদ্ধ শুরু করে দিলেন বিজেপি নেতা তথাগত রায় (Tathagata Roy)।             

বুধবার Zee ২৪ ঘণ্টার 'আপনার রায় WITH অঞ্জন' অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে এসেছিলেন সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh)। 'বাঙালি অস্মিতা' নিয়ে বলতে গিয়ে জয় শ্রী রাম টেনে আনেন তিনি। বলেন,'ভয় দেখানোর জন্য বাইকে শয়ে শয়ে ছেলেরা জয় শ্রী রাম রণধ্বনি দিচ্ছেন। ঈশ্বরের নাম ভালবেসে বলুন। এটা তো আমাদের সংস্কৃতি নয়।' এনিয়েই বিতর্ক শুরু হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। 

জনৈক অভিজিৎ বসাক টুইট করেন,'স্টুডিওতে বসে রাজনৈতিক লেকচার দিচ্ছে এবং 1947 এর দেশভাগ ও সেই সময় ঘটে যাওয়া একাধিক জেনোসাইডকে অস্বীকার করেছে। দেশভাগ অস্বীকার করা মানে আমাদের মতন যারা বাঙাল আছে তাঁদের অস্বীকার করা। পুরো বাংলাটা আপনার ওই এলিট পাড়া নিয়ে না।' (বানান ও বাক্যগঠন অসম্পাদিত)

ওই টুইটের সূত্র ধরে প্রাক্তন রাজ্যপাল, বিজেপি নেতা তথাগত রায় (Tathagata Roy) টুইটারে লিখেছেন,'এই টাইপটাকে দেখেই কথায় বলে “মূর্খের অশেষ দোষ”। তবে এই মূর্খামির দায় শুধু @sayani06 -এর নয় । পশ্চিমবাংলার বাম ও সেকুলারপন্থীরা এদের শিখিয়েছে “ছি ! এসব বলতে নেই।করুক না ওরা কিছু হিন্দু খুন ও মেয়েদের ধর্ষণ! হোক না সোয়া কোটি হিন্দু গৃহহীন পথের ভিখারি ! ওরাও তো মানুষ!” (বানান ও বাক্যগঠন অসম্পাদিত)

ডাকাবুকো সায়নীও ছেড়ে দেওয়ার পাত্রী নন। তিনি টুইটারে লেখেন,'যারা দেশভাগের সময় কত হিন্দু মরেছিল, তাই এখন মুসলমান মারবো বলে সাফাই দিচ্ছেন, এই মুহূর্তে কত যত্ন রেখেছেন ক্ষুধাসূচক দেখলেই বোঝা যায়। হিন্দুত্ব করতে গিয়ে হিন্দু ধর্ম ভুলে গিয়েছেন। গান্ধী কলোনিকে গডসে কলোনি বানাবেন আপনারাই, আমি নিশ্চিত।' (রোমান বাংলা থেকে অনুবাদ)

তথাগতর টুইট নিয়ে সায়নীর কটাক্ষ,'আরে টাইপ গোছের কথা বলে নিজের মানসিক ও সামাজিক সংকীর্ণতার পরিচয় দিলেন। আপনার মতো জিনিস সত্যি পশ্চিমবঙ্গের মানুষের কাম্য নয়।' 

সায়নীকে পাল্টা দিয়েছেন তথাগত। টুইট করেছেন, 'এসব কি আবোলতাবোল লিখেছে ? তাও আবার রোমান হরফে!' (বানান ও বাক্যগঠন অসম্পাদিত)

সায়নী লিখেছেন,'সত্যি বললেই আবোল-তাবোল মনে হয়! আমার যে হরফে ইচ্ছে লিখব। সেটাই আমার পছন্দ। আপনারা শুদ্ধ বাংলায় হিন্দি বলে যে অশুদ্ধিকরণ করে চলেছেন সেটা চোখে পড়ে! আপনি এভাবেই পড়ার অভ্যাস করুন। বাঙালি এখন আন্তর্জাতিক। এখানেই শেষ করলাম। ভাল থাকবেন।' আবার সংযোজন করেছেন, নিজের যুক্তিকে জেতাতে আর একটা কথা ট্যাগ, ট্যাগ করে দল ভারী করবেন না। আপনার ও আমার মধ্যে কথা হচ্ছে। আপনি লিখেছেন আমার উদ্দেশে। আমি আপনাকে উত্তর দিয়েছি। সম্মান বলে একটা শব্দ হয়, মনে করালাম।' (রোমান বাংলা থেকে অনুবাদ)

তথাগত রায় এবার ইতি টানেন,'আর পারছি না ! ক্ষ্যামা দে, মা লক্ষ্মী!' (বানান ও বাক্যগঠন অসম্পাদিত)

সায়নীর মন্তব্য টেনেই একাধিক টুইটে বামেদের নিশানা করেছেন তথাগত রায়।    

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের 'বহিরাগত' তকমা দিচ্ছে তৃণমূল। কাঁথির সভায় তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় ঘোষণা করেন,'এটা বহারি বনাম বাঙালির লড়াই!' রাজ্যের শাসক দলের 'বহিরাগত' আক্রমণের পাল্টা জেপি নাড্ডা বলেছেন,'বাংলার সংস্কৃতির ধারক বিজেপিই। শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও স্বামী বিবেকানন্দের জীবন অনুসরণ করেন আমাদের দলের নেতারাই।'  বাংলার সংস্কৃতি কী? কে-ই বা বহিরাগত? এটাই ছিল 'আপনার রায় WITH অঞ্জন'-র বিতর্কের বিষয়। সেখানে সায়নীর সঙ্গে বাগযুদ্ধ বেধে যায় বিজেপি নেতা দেবজিৎ সরকারের। সেই যুদ্ধই এবার সোশ্যালে। দেখুন 'আপনার রায় WITH অঞ্জন'-এর সম্পূর্ণ অনুষ্ঠান।

বিষয়টি নিয়ে সায়নী ঘোষ ও তথাগত রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে Zee ২৪ ঘণ্টা। তবে তাঁরা টুইটারের যুদ্ধের রেশ আর টানতে চান না। বরং দু'জনেই জানান, এনিয়ে আর কথা বাড়াতে চান না। টুইটারে যা বলার বলে দিয়েছেন।         

আরও পড়ুন- মানভঞ্জনে Shatabdi-কে ফোন Sougata-র, বাড়িতে Kunal, পাল্টা খোঁচা Anubrata-র