যাদবপুরকাণ্ডে বাবুলকেই দায়ী করে রাজ্যজুড়ে শুক্রবার বিক্ষোভের ডাক এসএফআই-র

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে এদিন এবিভিপির অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়।

Updated: Sep 19, 2019, 10:33 PM IST
যাদবপুরকাণ্ডে বাবুলকেই দায়ী করে রাজ্যজুড়ে শুক্রবার বিক্ষোভের ডাক এসএফআই-র

নিজস্ব প্রতিবেদন: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বাবুল সুপ্রিয়র প্ররোচনাতেই চলেছে তাণ্ডব। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কাঠগড়ায় তুলে শুক্রবার রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ ও অবরোধের ডাক দিল সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআই। শুক্রবার বেলা ১২টায় দক্ষিণাপন থেকে মিছিল করবে এসএফআই। 

প্রেস বিবৃতিতে এসএফআই জানিয়েছে,''আমাদের সংগঠন কখনই দেশের কোনও ক্যাম্পাসে কারওর প্রবেশাধিকার নিয়ে হস্তক্ষেপ করাকে সমর্থন করে না। এর আগেও সোচ্চারে একাধিকবার জানানো হয়েছে। কিন্তু আজ কেন্দ্রের এক প্রতিমন্ত্রী যাদবপুর ক্যাম্পাসে যেভাবে দীর্ঘক্ষণ ধরে প্ররোটনা  ও উস্কানি ছড়ান তার তীব্র প্রতিবাদ জানায় ভারতের ছাত্র ফেডারেশন। এবং কার্যত মন্ত্রীর প্ররোচনাতেই বহিরাগত গুন্ডাদের তাণ্ডবলীলা চলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে। ভাঙচুর করা হয় আটর্স ফ্যাকাল্টির ইউনিয়ন রুমে। কোনও সুস্থ গণতান্ত্রিক শক্তিই কোনও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এই উস্কানিমূলক পদক্ষেপ নিতে পারে না। ক্যাম্পাসে ওই ফ্যাসিবাদী শক্তির সন্ত্রাস ছড়ানোর এই ঘটানাকে তীব্র নিন্দা জানায় ভারতের ছাত্র ফেডারেশন। একইসঙ্গে ন্যক্কারজনক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বৃহত্তর ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দিচ্ছে এসএফআই।''                   

 

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে এদিন এবিভিপির অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি ক্যাম্পাসে ঢুকতেই চড়াও হয় ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। কোনওক্রমে অনুষ্ঠান করেন বাবুল। এরপর বাইরে আসার সময় তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন পড়ুয়ারা। বাবুলের অভিযোগ, তাঁর চুল ধরে টানা হয়েছে। মারা হয়েছে কিল। বাবুলের নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে পাল্টা মারধরের অভিযোগ করেন ছাত্রছাত্রীরা। দীর্ঘক্ষণ আটক বাবুলকে হাত ধরে বের করে আনেন রাজ্যপাল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য জগদীপ ধনখড়। তবে আচার্যের গাড়িও পড়েছিল বিক্ষোভের মুখে। পুলিসের তত্পরতায় ঘণ্টাখানেক আটক থাকার বেরিয়ে আসে কনভয়। 

আরও পড়ুন- ঘণ্টাখানেক আটক থাকার পর বিক্ষোভকারীদের চোখে ধুলো দিয়ে বেরোল রাজ্যপালের কনভয়