Travel life: সব্যসাচী, রাইমাদের হাত ধরে চলুন বেড়িয়ে আসি

বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে লঞ্চ করা হল এই সংস্থার লোগো।

Updated By: Aug 27, 2021, 11:37 PM IST
Travel life: সব্যসাচী, রাইমাদের হাত ধরে চলুন বেড়িয়ে আসি

নিজস্ব প্রতিবেদন-  করোনার দাপটে ভ্রমণপ্রেমীদের মন খারাপ।  সুরক্ষা নিশ্চিত করতে না পেরে কেউই  বেড়াতে যাওয়ার ঝুঁকি নিচ্ছেন না।  সকলের মনেই ভয় কাজ করছে. পাহাড়, জঙ্গল বা সমুদ্র,  ঘুরতে ভালোবাসেন যাঁরা তাঁদের জন্য এবার এল সুখবর- ট্রাভেল লাইভ Where travel meets Passion। সকলের জন্য নিয়ে এলো নতুন উপহার। এটি এমন একটি সংস্থা, যেটির মাধ্যমে আপনারা নিজেদের পছন্দের ডেস্টিনেশনে পৌঁছে যেতে পারেন। অবশ্যই  আপনার সুরক্ষার দায়িত্ব থাকবে ট্রাভেল লাইফের হাতে।  সুরক্ষা নিশ্চিত করেই পৌঁছে যাওয়া যাবে পৃথিবীর কোনায় কোনায়.। অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তী  ওয়াইল্ডলাইফ এর সঙ্গে বহু দিন ধরে যুক্ত, সুযোগ পেলেই ক্যামেরা হাতে বেরিয়ে পড়েন।  ভ্রমণপিপাসু হওয়ার সুবাদে  পরিবার নিয়ে মেতে ওঠেন আনন্দে, তারই রেশ ধরে এবার এই সংস্থার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হলেন সব্যসাচী চক্রবর্তী,  স্ত্রী মিঠু চক্রবর্তী,  বড় ছেলে গৌরব চক্রবর্তী এবং  গৌরবের স্ত্রী ঋধিমা।  খুব শিগগির তাঁরাও  সপরিবারে বেরিয়ে পড়বেন। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গা ঘুরে সেখানকার সংস্কৃতি, জীবনযাপন দেখে  পরিধিটা ছোট করে নেওয়ার  চেষ্টায় অভিনেতা। সব্যসাচীর মতে  'আমার পরিবারের দুজনকে হারিয়েছি আমি করোনায়। তবুও হার মানিনি। কারণ উঠে দাঁড়াতে হবে। যে পরিস্থিতিই হোক না কেন আমাদের লড়াই থামলে চলবে না। আর ঘুরতে না গেলে অক্সিজেন যোগাতে পারবোনা '.। বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে লঞ্চ করা হল এই সংস্থার লোগো। মঞ্চে হাজির ছিলেন বিশিষ্টরা। লোগো লঞ্চ করলেন সংস্থার  কর্ণধার। এর পাশাপাশি হাজির ছিলেন সব্যসাচী চক্রবর্তী, তাঁর স্ত্রী মিঠু চক্রবর্তী, বড় ছেলে গৌরব চক্রবর্তী, বড় বৌমা ঋধিমা, এবং রাইমা সেন।

আরও পড়ুন: Osama bin Laden: লাদেন পরিবারের প্রাসাদের বিক্রয়মূল্য কয়েক কোটি ডলার, কেমন দেখতে সেই সম্পত্তি?

এই সংস্থার খুব তাড়াতাড়ি বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে আসছে। অনলাইনে ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনাও  করতে পারেন আপনি.  তা নিয়েও ভাবনা চলছে এই সংস্থার। এক বছরের মধ্যেই একটি অনলাইন সিস্টেম তৈরি হবে যেখানে নিমেষে আপনি পৌঁছে যেতে পারবেন আপনার পছন্দের ডেস্টিনেশন তাও আবার অনলাইনে।  লাইভ ভিডিও দেখে উপভোগ করতে পারবেন আপনার প্রিয়  জায়গার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। সব ঠিক থাকলে এক বছরের মধ্যেই অনলাইন সিস্টেম চালু হওয়ার সম্ভাবনা।